রাজশাহীর মধুমতি পদ্মা সেতু পাড়ি দিয়ে ছুটবে ঢাকায়

আপডেট: ডিসেম্বর ১, ২০২৩, ১২:০৩ পূর্বাহ্ণ


নিজস্ব প্রতিবেদক:


রাজশাহী-ঢাকা রুটে শুক্রবার (১ ডিসেম্বর) বিজয় মাসের শুরুর দিন থেকে চলবে মধুমতি এক্সপ্রেস। ট্রেনটির অনুষ্ঠানিক উদ্বোধন না থাকলেও সকাল ৬:৪০ মিনেটে রাজশাহী রেলওয়ে স্টেশন থেকে ঢাকার উদ্দেশ্যে ছেড়ে যাবে। ফলে রাজশাহী-ঢাকা রুটের চলাচলরত সিল্কসিটি, পদ্মা, বনলতা, ধূমকেতুর বহরে যুক্ত হলো মধুমতি এক্সপ্রেস। যদিও মধুমতি ট্রেনটি রাজশাহী থেকে ভাঙ্গা স্টেশন পর্যন্ত চলাচল করতো। তবে পাঁচটি স্টেশন যুক্ত হয়ে পদ্মা সেতু পাড়ি দিয়ে মধুমতি এক্সপ্রেস পৌঁছাবে ঢাকায়।

ইতোমধ্যে পশ্চিমাঞ্চল রেলওয়ের পক্ষ থেকে ট্রেন চলাচলের সব ধরনের প্রস্তুতি সম্পন্ন করা হয়েছে। একই সাথে শুক্রবার থেকে পশ্চিমাঞ্চল রেলওয়ের ট্রেনগুলোর নতুন সময়সূচি কার্যকর হবে। সময়সূচিতে মধুমতি এক্সপ্রেস ট্রেনের সাপ্তাহিক ছুটির দিন বৃহস্পতিবার অপরিবর্তিত থাকবে।

রেলওয়ে সূত্রে জানা গেছে, রাজশাহী থেকে ছেড়ে এই প্রথম কোনো ট্রেন পদ্মা সেতু হয়ে ঢাকায় যাচ্ছে। মধুমতি এক্সপ্রেস পদ্মা সেতু হয়ে চলাচলকারী তৃতীয় আন্তঃনগর ট্রেন। এদিন পদ্মা সেতু থেকে চলবে খুলনা-ঢাকা রুটে প্রথম কমিউটার ট্রেনও। এছাড়া মধুমতি এক্সপ্রেসে থাকছে আটটি কোচ। ট্রেনে যাত্রীদের আসন সংখ্যা মোট ৫৫৮টি। এরমধ্যে প্রথম শ্রেণির একটি কোচে আসন সংখ্যা ২৪টি। আর শোভন চেয়ারে ৪৪ এবং শোভন শ্রেণিতে ৪৯০টি আসন থাকবে। এছাড়া ঢাকা থেকে রাজশাহী পর্যন্ত শোভন কোচে ভাড়া ৩৯৫ টাকা, শোভন চেয়ারে ভাড়া ৪৭০ টাকা আর প্রথম শ্রেণিতে ভাড়া ৭১৯ টাকা। তবে যাত্রী ওঠা-নামার সুবিধা না থাকার জন্য আপাতত ভাঙ্গা জংশন স্টেশনে যাত্রাবিরতি থাকবে না।

জানা গেছে, মধুমতি এক্সেপ্রেস অন্যদিনে রাজশাহী থেকে ভাঙ্গা স্টেশনের উদ্দেশ্যে ছাড়তো সকাল ৮টায়। নতুন সময়সূচিতে ছাড়বে সকাল ৬:৪০ মিনিটে। আর ঢাকায় পৌঁছাবে দুপুর ২ টায়। ঢাকা থেকে বিকেল ৩ টায় রাজশাহীর উদ্দেশ্যে ছাড়বে মধুমতি এক্সেপ্রেস।

রাজশাহী রেলওয়ের স্টেশন মাস্টার সুরাইয়া পারভীন বলেন, নতুন সময়সূচি অনুযায়ী মধুমতি এক্সেপ্রেস ট্রেন ছাড়বে সকাল ৬:৪০ মিনিটে। আগে ছাড়তো সকাল ৮টায়। এই ট্রেনে নতুন করে কোনো কোচ যুক্ত হচ্ছে না। এছাড়া মধুমতি এক্সপ্রেসে থাকছে আটটি কোচে আসন সংখ্যা ৫৫৮টি।

তিনি বলেন, একইভাবে সময়ের পরিবর্তন হয়েছে সাগরদাড়ি এক্সেপ্রেসে। ট্রেনটি আগে ছাড়তো সকাল ৬:৪০ মিনিটে। নতুন সময় অনুযায়ী ছাড়বে সকাল ৬ টায়। এছাড়া নতুন সময়সূচিতে কপোতক্ষ্য এক্সেপ্রেস ট্রেনের সাপ্তাহিক ছুটি মঙ্গলবারের পরিবর্তে শুক্রবার করা হয়েছে। আর সাগরদাড়ি এক্সেপ্রেসে সাপ্তাহিক ছুটি সোমবার।

এ বিষয়ে পশ্চিমাঞ্চল রেলওয়ের ব্যবস্থাপনা পরিচালক অসীম কুমার তালুকদার বলেন, শুক্রবার থেকে পশ্চিমাঞ্চল রেলওয়ের ট্রেনগুলো নতুন সময়সূচি অনুযায়ী চলাচল করবে। এদিন সকালে প্রথম মধুমতি এক্সেপ্রেস রাজশাহী থেকে ঢাকার উদ্দেশ্যে ছাড়বে। ট্রেনটি পদ্মা সেতু হয়ে ঢাকায় প্রবেশ করবে। ইতোমধ্যে পশ্চিমাঞ্চল রেলওয়ের পক্ষ থেকে সব ধরনের প্রস্তুতি সম্পন্ন করা হয়েছে।

সময় সূচির পরিবর্তন:
পরিবর্তন হয়েছে পশ্চিমাঞ্চল রেলওয়ের সময়সূচিতে। বর্তমানে ১৯ জোড়া ট্রেন চলাচল করে। এরমধ্যে মোটাদাগে ধুমকেতু ও সাগরদাড়ী এক্সেপ্রেসের ট্রেনের সময় সূচির পরিবর্তন হয়েছে। এছাড়া পাবনার ঢালারচর স্টেশন থেকে ছেড়ে আসা ঢালাচর এক্সপ্রেসকে চাঁপাইনবাবগঞ্জ পর্যন্ত বর্ধিত করা হয়েছে। আগে রাজশাহী স্টেশন পর্যন্ত ছিল।

জানা গেছে, নতুন সময়সূচিতে রাজশাহী থেকে মধুমতি এক্সপ্রেসকে পদ্মা সেতু হয়ে ঢাকা পর্যন্ত এবং ঢালাচর থেকে রাজশাহী পর্যন্ত ঢালাচর এক্সপ্রেসকে চাঁপাইনবাবগঞ্জ পর্যন্ত বর্ধিত করা হয়েছে। পশ্চিমাঞ্চলের ট্রেনগুলোর মধ্যে ঢাকা থেকে রাজশাহীর দিকে আগের সময়েই ছাড়বে ধূমকেতু এক্সপ্রেস। তবে সিল্কসিটি এক্সপ্রেস দুপুর ২:৪৫ মিনিটের পরিবর্তে ২:৪০ মিনিটে ও পদ্মা এক্সপ্রেস রাত ১১টার পরিবর্তে ১০:৪৫ মিনিটে ঢাকা ছাড়বে। ফেরার পথে রাজশাহীর আগের ৩টি ট্রেনই নির্ধারিত সময়ে ঢাকার উদ্দেশ্যে ছেড়ে আসবে।

পদ্মা সেতু হয়ে ঢাকা রাজশাহীর পথে নতুন যোগ হওয়া মধুমতি এক্সপ্রেস বিকাল ৩ টায় ঢাকা ত্যাগ করবে, রাজশাহী থেকে ছাড়বে সকাল ৬:৪০ মিনিটে। তবে ঢাকা থেকে রাজশাহী হয়ে চাঁপাইনবাবগঞ্জের মধ্যে চলাচল করা বনলতা এক্সপ্রেসের সময়-সূচিতে কোনো প্রকার পরিবর্তন হচ্ছে না।

রাজশাহী রেলওয়ের স্টেশন মাস্টার সুরাইয়া পারভীন বলেন, বর্তমানে ১৯ জোড়া ট্রেন চলাচল করে। তার জানা মতে ট্রেনগুলোর খুব বেশি সময় পরিবর্তন হচ্ছে না। কোনো ট্রেন ছাড়ার সময় কমে এসেছে, কোনটার বেড়ে গেছে।