রাজশাহীর স্বাস্থ্য খাতকে আরো নতুন করে সাজানো হবে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক

আপডেট: জানুয়ারি ৫, ২০২০, ১২:৫৫ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক


মতবিনিময় সভায় বক্তব্য রাখেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক-সোনার দেশ

স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেছেন, রাজশাহীর স্বাস্থ্য খাতকে আরো আধুনিকভাবে সাজানো হবে। রামেক হাসপাতালে প্রতিনিয়ত হাজারো রোগীর স্বাস্থ্যসেবার জন্য প্রয়োজনীয় যন্ত্রপাতি জনবলের সমস্যার সমাধান করা হবে। এখানে সকল ইউনিট নতুনভাবে ঢেলে সাজানো হবে।
গতকাল শনিবার রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালের কলেজ মিলনায়তনে এক সভায় চিকিৎসক ও কর্মকর্তাদের সাথে মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন। প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি আরো বলেন, এ বছরেই রাজশাহী মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের (রামেবি) নির্মাণ কাজ শুরু হবে। আমরা আজ (শনিবার) তিনটি জায়গা দেখেছি। এ সময় আমার সঙ্গে সচিব এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসিও উপস্থিত ছিলেন। এখন আমরা রামেবির নকশা প্রায় চূড়ান্ত করে এনেছি। এখানে এখন সার্ভে করার প্রয়োজন। এ জন্য পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়কেও দরকার। ডিপিপি চূড়ান্ত হবে সার্ভের পর। তিনি বলেন, দেশের তিনটি জেলায় সার্ভের কাজ একসঙ্গে হচ্ছে তার মাঝে রাজশাহী, চট্টগ্রাম ও সিলেট মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়। সার্ভে হয়ে গেলেই আমরা প্রকল্পটি একনেকে নিয়ে যাব। আশা করি নতুন করে অর্থ বরাদ্দ হয়ে যাবে। সে সময় দ্রুত সময়ের মধ্যেই আমরা অবকাঠামোগত কাজ শুরু করতে পারব। তিনি বলেন, রামেক হাসপাতালে অনেক রোগীর সংখ্যা। তাই সব সময় অগ্রাধিকার পাবে এই হাসপাতালটি। এই হাসপাতালের আইসিইউ এর শয্যা সংখ্যা দ্বিগুণ করে দেয়া হবে। বাড়ানো হবে আরো অনেক শয্যা। আর রামেক কলেজ ডেন্টাল ইউনিটকে ডেন্টাল কলেজ করা হবে। হাসপাতালটির সিটি স্ক্যানসহ অনেক প্রয়োজনীয় যন্ত্রপাতি দ্রুত দেয়ার পরিকল্পনা রয়েছে। আর এখানে একটি গাড়ি আছে তাই প্রয়োজনে আরো একটি গাড়ি দেয়া হবে। এবং প্রয়োজনে আরো অ্যাম্বুলেন্সও দেয়া হবে। হাসপাতালটির বর্তমান চারতলা ভবনটি ১০ তলার কাজ শুরু হবে।
তিনি আরো বলেন, আমাদের প্রধানমন্ত্রী স্বাস্থ্যখাতের উন্নয়নে অনেক বেশি আন্তরিক। স্বাস্থ্য খাতের উন্নয়নে তিনি ভ্যাকসিন হিরোর পুরস্কারও পেয়েছেন। তাই স্থাস্থ্য খাতের সকল কাজ তিনি খুব আন্তরিক ভাবে দেখেন। রাজশাহী মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ ডা. নওশাদ আলীর সভাপতিত্বে এ সময় উপস্থিত ছিলেন, স্বাস্থ্য-শিক্ষা ও পরিবার কল্যাণ বিভাগের সচিব মো.আলী নূর, মেডিকেল কলেজ উপাধ্যক্ষ বুলবুল হাসান, রামেক হাসপাতালের পরিচালক বিগ্রেডিয়ার জেনারেল জামিুলর রহমান, উপ-পরিচালক সাইফুল ফেরদৌস, রাজশাহী-৫ আসনের সংসদ সদস্য ডা. মুনসুর রহমান, স্বাস্থ্য শিক্ষা সচিব আলী নূর, রামেবির উপচার্য ডা. মাসুম হাবিব, বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালক গোপেন্দ্রনাথ আচার্য, স্বচিপের সভাপতি ডা. এবি সিদ্দিক, রামেক স্বচিপ সভাপতি ডা. খলিলুর রহমান. নগর আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ডাবলু সরকারসহ রামেক হাসপাতাল ও কলেজের শিক্ষাক ও কর্মচারিবৃন্দ।