রাজশাহীর ৩৯ প্রার্থীর মধ্যে প্রতীক বরাদ্দ

আপডেট: ডিসেম্বর ১৯, ২০২৩, ১২:০৫ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক:


দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে রাজশাহীর ছয়টি আসনের ৩৯ প্রার্থীকে প্রতীক বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। প্রতীক বরাদ্দ পেয়েই প্রার্থীরা প্রচারযুদ্ধে নেমেছেন। সোমবার (১৮ ডিসেম্বর) সকালে রাজশাহীর ছয়টি সংসদীয় আসনের প্রার্থী ও তাদের প্রতিনিধির উপস্থিতিতে প্রতীক বরাদ্দ দেন রাজশাহী জেলা রিটার্নিং অফিসার ও জেলা প্রশাসক শামীম আহমেদ।

প্রতীক পেয়েই নিজ নিজ নির্বাচনী এলাকায় প্রচার-প্রচারণা শুরু করেছেন প্রার্থীরা। মূল সড়ক ও অলিগলিতে শুরু হয়েছে নৌকাসহ বিভিন্ন প্রতীকের স্লোগান। এতে রাজশাহী জেলার সর্বত্রই বইছে নির্বাচনী হাওয়া। চায়ের দোকানের আড্ডাতেও চলছে নির্বাচনের আলোচনা।

প্রতীক বরাদ্দের পর রাজশাহীর ছয়টি সংসদীয় আসনের প্রার্থীর সমর্থকরা মিছিল করেন। এছাড়া নিজ নিজ আসনে প্রার্থীদের পোস্টার ও ব্যানার-ফেস্টুন লাগানো শুরু হয়। এমনকি প্রতীক বরাদ্দের দিন সকালেও কোনো কোনো এলাকায় প্রার্থীদের পোস্টার দেখা যায়। আবার অনেকে রাতেই পোস্টার-ফেস্টুন ঝুলিয়েছেন।

রিটার্নিং অফিসারের দফতর থেকে গেছে, রাজশাহী-১ (গোদাগাড়ী-তানোর) আসনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী ওমর ফারুক চৌধুরী নৌকা, স্বতন্ত্র প্রার্থী শারমিন আক্তার নিপা (মাহিয়া মাহি) ট্রাক, ন্যাশনাল পিপল্স পার্টির নুরুন্নেসা আম, তৃণমুল বিএনপির জামাল খান দুদু সোনালী আঁশ, জাতীয় পার্টির শামসুদ্দিন লাঙ্গল, বিএনএফের আল সামাদ টেলিভিশন, বাংলাদেশ সাংস্কৃতির মুক্তিজোটের বশির আহমেদ ছড়ি, ও বিএনএমের সামসুজ্জোহা বাবু নোঙর প্রতীক পেয়েছেন।

রাজশাহী-২ (সদর) আসনে আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন ১৪ দলীয় জোটের প্রার্থী ফজলে হোসেন বাদশা নৌকা, জাসদের আবদুল্লাহ আল মাসুদ শিবলী মশাল, জাতীয় পার্টির সাইফুল ইসলাম স্বপন লাঙ্গল, বাংলাদেশ কংগ্রেসের মারুফ শাহরিয়ার ডাব, বিএনএমের কামরুল হাসান নোঙর ও বাংলাদেশ সাংস্কৃতিক মুক্তিজোটের ইয়াসির আলিফ বিন শাহরিয়ার ছড়ি প্রতীক পেয়েছেন।

রাজশাহী-৩ (মোহনপুর-পবা) আসনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী আসাদুজ্জামান আসাদ নৌকা, বিএনএমের মতিউর রহমান মন্টু নোঙর, ন্যাশনাল পিপল্স পার্টির সইবুর রহমান আম, বিএনএফের বজলুর রহমান টেলিভিশন, সাংস্কৃতিক মুক্তিজোটের এনামুল হক ছবি ও জাতীয় পার্টির আব্দুস সালাম খান লাঙ্গল প্রতীক পেয়েছেন।

রাজশাহী-৪ (বাগমারা) আসনে আওয়ামী লীগের আবুল কালাম আজাদ নৌকা, জাতীয় পার্টির আবু তালেব প্রামাণিক লাঙ্গল, স্বতন্ত্র প্রার্থী ইঞ্জিনিয়ার এনামুল হক কাঁচি, বিএনএমের সাইফুর রহমান রায়হান নোঙর, পিপল্স পার্টির জিন্নাতুন নেসা জিন্নাহ আম ও স্বতন্ত্র প্রার্থী বাবুল হোসেন মাথল প্রতীক পেয়েছেন।

রাজশাহী-৫ (পুঠিয়া-দুর্গাপুর) আসনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী আব্দুল ওয়াদুদ দারা নৌকা, জাতীয় পার্টির আবুল হোসেন লাঙল, বাংলাদেশ সুপ্রীম পার্টির আলতাফ হোসেন মোল্লা একতারা, স্বতন্ত্র ওবায়দুর রহমান ঈগল, গণফ্রন্টের মখলেসুর রহমান মাছ ও বিএনএমের শরিফুল ইসলাম নোঙর প্রতীক পেয়েছেন।

এছাড়া, রাজশাহী-৬ (চারঘাট-বাঘা) আসনে আওয়ামী লীগের শাহরিয়ার আলম নৌকা, জাতীয় পার্টির শামসুদ্দিন রিন্টু লাঙ্গল, স্বতন্ত্র রাহেনুল হক কাঁচি, ন্যাশনাল পিপল্স পার্টির মহসিন আলী আম, বিএনএমের আব্দুস সামাদ নোঙর ও জাসদের জুলফিকার মান্নান জামী মশাল প্রতীক পেয়েছেন।

রিটার্নিং কর্মকর্তা ও জেলা প্রশাসক শামীম আহমেদ জানান, রাজশাহীর ৬টি আসনে মোট ৪৪ জনের প্রার্থীতা বৈধ হয়। রোববার শেষদিনে ৪ জন প্রার্থী তাদের মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করেন। এরপর রাজশাহী-২ আসনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী মোহাম্মদ আলী কামালের মনোনয়ন দল থেকে বাতিল করা হয়। অন্যদিকে রাজশাহী-৩ আসনে জাতীয় পার্টির দুই প্রার্থীর মধ্যে একজনকে সরিয়ে দেওয়া হয় দলীয় সিদ্ধান্তে। বর্তমানে ৬ আসনে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীর সংখ্যা দাঁড়াল ৩৯ জন।

ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী, আগামী ৭ জানুয়ারি রোববার দ্বাদশ সংসদ নির্বাচনের ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। এ লক্ষ্যে সোমবার প্রতীক বরাদ্দ দেয়া হয়। আগামী ৫ জানুয়ারি পর্যন্ত ভোটের প্রচারের জন্য সময় পাবেন তারা।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ