রাজশাহী অঞ্চলে পৃথক রেল ও সড়ক দুর্ঘটনায় ৯ জনের প্রাণহানি

আপডেট: জানুয়ারি ২৪, ২০২২, ১০:৪০ অপরাহ্ণ

চাঁপাইনবাবগঞ্জ, নওগাঁ ও নাটোর প্রতিনিধি:


রাজশাহী অঞ্চলের চাঁপাইনবাবগঞ্জ, নওগাঁ ও নাটোরে পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় ৯ জনের প্রাণহানির ঘটনা ঘটেছে। চাঁপাইনবাবগঞ্জে ট্রেনে কাটা পড়ে ৩ জন, নওগাঁয় ৫ জন এবং নাটোরে এক সাইকেল চালকের মৃত্যু হয়েছে।

জানা গেছে, চাঁপাইনবাবগঞ্জ-রাজশাহী রেললাইনের আলিনগর হাজির মোড় এলাকায় সোমবার (২৪ জানুয়ারি) সকালে ট্রেন-ভুটভুটি সংর্ঘষ হয়। এসময় চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌর এলাকার আলীনগর ভুতপুকুর মহল্লার মৃত গরীবুল্লাহর ছেলে ফুলচান আলী (৫৫), আলীনগর মহল্লার মৃত রইস উদ্দীনের ছেলে সেহের আলী (৪৫) ও ভুটভুটি চালক ঝিলিম ইউনিয়নের আমনুরা এলাকার আমানুল্লাহ ছেলে নাইমুল ইসলাম (৩৫) নিহত হয়।

চাঁপাইনবাবগঞ্জ রেল স্টেশনের স্টেশন মাস্টার শহিদুল আলম ট্রেনের গার্ডের বরাত দিয়ে জানান, সোমবার সকাল সাড়ে ৮টায় যথারীতি চাঁপাইনবাবগঞ্জ স্টেশন থেকে ঈশ^রদীগামী ৬ ডাউন লোকাল ট্রেন ছেড়ে যায়। ৮ টা ৪০ মিনিটের দিকে হাজির মোড় এলাকার আউটার সিগন্যালের কাছাকাছি একটি মাছবাহী ভুটভুটি রেললাইন পাড় হওয়ার সময় ট্রেনের সাথে ধাক্কা লাগে। এতে ভুটভুটি চালকসহ তিনজন ঘটনাস্থলেই মারা যান। খবর পেয়ে জিআরপি থানা পুলিশ ও স্থানীয় ফায়ার সার্ভিসের উদ্ধারকারী দল ঘটনাস্থল পরিদর্শন এবং মরদেহ ৩টি উদ্ধার করে। এছাড়া সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার ইফফাত জাহান ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

নিহতের পরিবারের সদস্য তরিকুল ইসলাম জানান, নিহতদের ব্যাপারে তাদের কোন অভিযোগ না থাকায় রেলের জিআরপি থানায় আবেদন করা হয়েছে।
নওগাঁর ধামইরহাটে ট্রাকচাপায় এক মোটরসাইকেলের ৪ আরোহী নিহত হয়েছে। উপজেলার হরতকীডাঙ্গা বাজার এলাকায় ধামইরহাট-জয়পুরহাট সড়কে এ রোববার রাত ৯টার দিকে এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহতদের মধ্যে সোমবার ভোর পাঁচটার দিকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান উপজেলার দক্ষিণ জাহানপুর গ্রামের হেলাল উদ্দিনের ছেলে সজল হোসেন (২২) ও জুয়েল হোসেনের ছেলে মিনহাজ হোসেন (২০)। এ দিকে ঘটনাস্থলেই নিহত হন উপজেলার নানাইচ গ্রামের গোলজার হোসেনের ছেলে আবু সুফিয়ান (১৮) ও একই গ্রামের মোজ্জাম্মেল হকের ছেলে আব্দুস সালাম (৩০)।

প্রত্যক্ষদর্শীদের বরাত দিয়ে ধামইরহাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কে এম রাকিবুল হুদা জানান, নিহতরা সবাই সবজি ব্যবসায়ী ছিলেন। রোববার ধামইরহাট উপজেলা সদর বাজারে হাটবার ছিল। হাটে মালামাল বেচাকেনা শেষে একই এলাকায় বাড়ি হওয়ায় একটি মোটরসাইকেলে করেই তারা বাড়ি ফিরছিলেন। রাত ৯টার দিকে জয়পুরহাট-ধামইরহাট আঞ্চলিক মহাসড়কের হরতকীডাঙ্গা বাজার এলাকায় পৌঁছালে বিপরীত দিক থেকে আসা একটি ট্রাক তাদের মোটরসাইকেলকে চাপা দেয়। এতে ঘটনাস্থলেই দুইজন নিহত হন। আহত দুজনকে উদ্ধার করে স্থানীয়রা ধামাইরহাট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। আশঙ্কাজনক হওয়ায় প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে তাদেরকে রাত ১১টার দিকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়। পরে সোমবার ভোর ৫টার দিকে আহত দুজনও মারা যান।

এদিকে, নওগাঁর মহাদেবপুরে সোমবার সকাল ৯টার দিকে সড়ক দুর্ঘটনায় নওগাঁ সিভিল সার্জন অফিসের প্রধান হিসাব রক্ষক আবুল কালাম আজাদের মৃত্যু হয়েছে। তিনি উপজেলার সারতা পশ্চিম পাড়া গ্রামের মৃত আব্দুস সামাদের ছেলে। পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, প্রতিদিনের ন্যায় গতকাল সোমবার সকাল ৯ টার দিকে তার ব্যাক্তিগত মোটর সাইকেল নিয়ে নওগাঁ সিভিল সার্জন অফিসে যাওয়ার পথে মহাদেবপুর উপজেলার হেলিপ্যাড এলাকায় পৌঁছালে বিপরীত দিক থেকে আসা একটি ড্রাম ট্রাকের সংঘর্ষে আবুল কালাম আজাদের মর্মান্তিক মৃত্যু হয়।

এ বিষয়ে মহাদেবপুর থানার ওসি (তদন্ত) আবুল কালাম আজাদ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ড্রাম ট্রাকটি উদ্ধার করা হয়েছে এবং মামলা প্রক্রিয়াধীন।
এছাড়া নাটোরের সিংড়ায় বাস-মোটর সাইকেলের মুখোমুখি সংঘর্ষে রাসেল আহমেদ (৩৫) নামে মোটর সাইকেল আরোহী নিহত হয়েছেন। সোমবার (২৪ জানুয়ারি) সকাল সাড়ে দশটার দিকে উপজেলার বাঁশের ব্রিজ এলাকায় এই দুর্ঘটনা ঘটে। নিহত রাসেল আহমেদ বগুড়া জেলার নন্দীগ্রাম উপজেলার দাঁত মানিক গ্রামের আনোয়ার হোসেনের ছেলে।

এলাকাবাসী জানান, ২৪ জানুয়ারি সোমবার সকালে রাসেল আহমেদ সিংড়ার দিক থেকে মোটরসাইকেল যোগে নন্দিগ্রামের নিজ বাড়িতে ফিরছিলেন। পথিমধ্যে জামতলি টু বাঁশের ব্রিজ নামক বিশ্বরোড এর মাঝামাঝি স্থানে পৌঁছালে নাটোরগামী ঢাকা মেট্রো-ব -১৩-০৯৬৩ বসুন্ধরা বাস, নন্দীগ্রামগামী মোটরসাইকেল মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে ঘটনাস্থলেই মোটরসাইকেল আরোহী রাসেল আহমেদ নিহত হন। মৃতের আত্মীয়-স্বজন মরদেহ তার নিজ বাড়িতে নিয়ে গেছে মর্মে জানা যায়। এদিকে বাসটিকে হাইওয়ে পুলিশ আটক করেছে।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ