রাজশাহী অঞ্চলে বিদ্যার দেবীর আরাধনা

আপডেট: ফেব্রুয়ারি ৫, ২০২২, ১০:১৫ অপরাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক:


পুষ্পাঞ্জলি অর্পণ, পূজার্চনা, প্রসাদ বিতরণ ও বিসর্জনের মধ্য দিয়ে রাজশাহী অঞ্চলের বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে বিদ্যার দেবী সরস্বতীর আরাধনা সম্পন্ন হলো। রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় মন্দির, রাজশাহী কলেজের মহারাণী হেমন্তুকুমারী হিন্দু ছাত্রাবাস ও ছাত্রীনিবাস এবং রাজশাহী সরকারি মহিলা কলেজসহ বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ও মন্দিরে শনিবার (৫ ফেব্রুয়ারি) সরস্বতী পূজার আয়োজন করা হয়।

জ্ঞান ও বিদ্যা লাভের আশায় ভক্তরা বীণাপাণি দেবীর পূজা অর্চনা করেন। সকালে প্রতিমা স্থাপনের মধ্য দিয়ে শুরু হয় আনুষ্ঠানিকতা। এরপর পূজা অর্চনা ও পুষ্পাঞ্জলি অর্পণ, আলোচনা সভা এবং শেষে প্রসাদ বিতরণ করা হয়। কোথাও কোথাও আয়োজন করা হয় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান।

শনিবার (৫ ফেব্রুয়ারি) নগরী ঘুরে দেখা গেছে, মন্ডপে মন্ডপে ভক্তদের পূজা অর্চনার দৃশ্য। সবাই জানালেন তাদের মনের কথা। কুমারপাড়া মন্দিরে আসা মার্কেটিং অফিসার শ্রী দীপক কুমার বলেন, খুব আনন্দ করতে পারি নি। কাজের অনেক চাপ। তারপরও মা সরস্বতীর আশীর্বাদ ও মুখ দর্শনের সুযোগ পেলাম। আবার অপেক্ষায় থাকব সামনে বছরের পূজার জন্য। ছেলেবেলায় পূজোর সময় গান, বাজনা ও নাচ করতাম।

এখন সেই সময় হয়ে ওঠে না। এই পূজায় আমরা জ্ঞান ও বিদ্যা প্রার্থনা করি। নগরীর রাজার হাতা কালী মাতার মন্দিরের সভাপতি শ্রী জিতু হালদার জানান, এই দিনে সকালে ঘুম থেকে উঠে কাঁচা হলুদ মেখে স্নান করেন। পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন কাপড় পরে মন্দিরে মন্দিরে গিয়ে পূজায় সামিল হন। পুষ্পাঞ্জলির মধ্যে দিয়ে শেষ করেন মায়ের পূজা। বিভিন্ন মন্দিরে ঘুরে ঘুরে মা সরস্বতীর মূর্তি দর্শন করেন। নগরীর রাজার হাতা মন্দির, ষষ্ঠীতলা কালিমাতার মন্দির, ঘোষপাড়া মিলন মন্দির, রাজশাহী মেডিকেল মন্দিরসহ বিভিন্ন মন্ডপে স্বাস্থ্যবিধি মেনে পূজা উদযাপন করতে দেখা গেছে।

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়:
রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে সীমিত পরিসরে সরস্বতী পূজা অনুষ্ঠিত হয়েছে। শনিবার বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় মন্দির স্বাস্থ্য বিধি মেনে এ পূজা অনুষ্ঠিত হয়। পরিচালনা পরিষদের আয়োজনে এবং অধ্যাপক বিশ্বনাথ শিকদারের সভাপতিত্বে এদিন সকাল আট টায় প্রতিমা স্থাপন শেষে পূজা অর্চনা, পুষ্পাঞ্জলি দিয়ে ঢাক-ঢোল-কাঁসর, শঙ্খ ও উলুধ্বনিতে মুখরিত হয়ে উঠে রাবির কেন্দ্রীয় মন্দির। শাস্ত্রমতে, প্রতি বছর মাঘ মাসের শুক্লপক্ষের পঞ্চমী তিথিতে শ্বেতশুভ্র কল্যাণময়ী বিদ্যাদেবীর বন্দনা করা হয়।

মন্দিরের সভাপতি অধ্যাপক বিশ্বনাথ সিকদার বলেন, করোনা ও বিরূপ আবহাওয়ার কারণে সীমিত পরিসরে স্বাস্থ্যবিধি মেনে পূজা অনুষ্ঠিত হয়েছে। করোনার এই সংকট কাটিয়ে বিশ্বে আবারও সুস্থ পরিবেশ ফিরে আসুক দেবী সরস্বতীর প্রতি এমনি প্রত্যাশা।

এদিন বেলা ১২টায় আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. গোলাম সাব্বির সাত্তার। এছাড়া বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. চৌধুরী জাকারিয়া, অধ্যাপক ড. সুলতান উল ইসলাম, কোষাধ্যক্ষ অবায়দুর রহমান প্রামানিক ও জনসংযোগ দপ্তরের প্রশাসক অধ্যাপক প্রদীপ কুমার পাণ্ডে প্রমুখ।

রাজশাহী সরকারি মহিলা কলেজ:
রাজশাহী সরকারি মহিলা কলেজের আয়োজনে পূজা উদযাপন অনুষ্ঠানের উপস্থিত ছিলেন, কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর ড. জুবাইদা আয়েশা সিদ্দীকা, উপাধ্যক্ষ প্রফেসর ড. নাজনীন সুলতানা, শিক্ষক পরিষদের সম্পাদক তোফাজ্জল হোসেন মোল্লা ও সরস্বতী পূজা উদ্যাপন কমিটি-২০২২ এর আহ্বায়ক শিপ্রা সরকার। উপস্থিত ছিলেন, ভারতীয় সহকারী হাইকমিশনার সঞ্জীব কুমার ভাট্টি, আরএমকে ডিসি হেডকোয়াটার রাশিদুল হাসান, ডিসি বোয়ালিয়া সাজিদ হোসেনসহ কলেজের শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা। প্রতিমা স্থাপন, পূজার্চনা, পুম্পাঞ্জলি, প্রসাদ বিতরণের মাধ্যমে সরস্বতী পূজা উদ্যাপনের সমাপ্তি ঘোষণা করা হয়।

মহানগর আ’লীগ:
সরস্বতী পূজা উপলক্ষ্যে শনিবার বেলা ১২টায় নগরীর রাজশাহী বি.বি হিন্দু একাডেমীতে পূজা মন্ডপ পরিদর্শন করেন, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ, রাজশাহী মহানগরের সাধারণ সম্পাদক ডাবলু সরকার। এ সময় উপস্থিত ছিলেন, রাজশাহী বি.বি হিন্দু একাডেমীর প্রধান শিক্ষক রাজেন্দ্রনাথ সরকার, সহকারি প্রধান শিক্ষক অনল কুমার মন্ডল, সহকারি শিক্ষক আব্দুল্লাহ হিল বাকী, অঞ্জনা সাহা, শিক্ষক সফল কুমার মন্ডল, বরুন ধর, উজ্জল ঘোষ প্রমুখ।

চাঁপাইনবাবগঞ্জ:

বিদ্যার দেবীর আরাধনায় উৎসবমুখর পরিবেশে চাঁপাইনবাবগঞ্জে উদযাপিত হয়েছে সরস্বতী পূজা। এ উপলক্ষে চাঁপাইনবাবগঞ্জ সরকারি কলেজে হিন্দু সম্প্রদায়ের জ্ঞান ও বিদ্যা দেবী সরস্বতী পূজা অনুষ্ঠিত হয়।

সনাতন একতা সংঘের সহযোগিতায় ও নবাবগঞ্জ সরকারি কলেজের আয়োজনে শনিবার কলেজ চত্বরে শিশির সিক্ত দুর্বাঘাষে অরুণরাঙা চরণে শুক্লপক্ষের শ্রীপঞ্চমীর পুণ্যতিথিতে সরস্বতীর চরণে পুষ্পার্ঘ অপর্ণ করেন শিক্ষার্থীসহ ভক্তরা। পূজা উপলক্ষে ধর্মীয় আচার আর বানিঅর্চনা অনুষ্ঠানটি শিক্ষক শিক্ষার্থীসহ সনাতন ধর্মালম্বীদের অংশগ্রহণের মধ্যদিয়ে উৎসব মূখর হয়ে উঠে।

বেলা সাড়ে ১১ টায় আরতি, ১২ টায় পুষ্পাঞ্জলি এবং ভক্তদের মাঝে প্রসাদ বিতরণ করা হয়। পরে বিকেলে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। নবাবগঞ্জ সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর ড. শংকর কুমার কুন্ডুুর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় বক্তব্য রাখেন, আদিনা ফজলুল হক সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ (ভারপ্রাপ্ত) প্রফেসর ড. মাযহারুল ইসলাম তরু, জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা রুহুল আমীন, অধ্যাপক কনক রঞ্জন দাস প্রমুখ। এছাড়া জেলার অন্যতম সর্বোচ্চ বিদ্যাপীঠ এক্সিম ব্যাংক কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় এবং শাহনেয়ামতুল্লাহ কলেজসহ বিভিন্ন স্থানে প্রতিটি পূজা মন্ডপে বাণী অর্চনা ও দেবীর চরণে পুষ্পার্ঘ্য অর্পণ করেন অগণিত ভক্ত এবং শিক্ষার্থীরা। তাই পূজা অনুষ্ঠানটি অন্যতম উৎসবের আমেজে পরিণত হয়।

শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের পাশাপাশি ব্যক্তি উদ্যোগেও বিভিন্ন পাড়া-মহল্লা, বাসা-বাড়িতে চলছে ঢাক-ঢোল, নাচ আর গানসহ বিভিন্ন আয়োজন ও উৎসাহ উদ্দীপনার মধ্যদিয়ে পূজা অনুিষ্ঠত হয়। এতে শিশু, কিশোর, তরুণ ও তরুণী ছাড়াও হিন্দু সম্প্রদায়ের বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ এতে অংশ নেন। মণ্ডপে মণ্ডপে পূজার আনুষ্ঠানিকতা ছাড়াও হাতেখড়ি, প্রসাদ বিতরণ, আলোচনা সভা, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, সন্ধ্যারতি, আলোকসজ্জা করা হয়। আজ রবিবার বিসর্জনের মধ্য দিয়ে শেষ হবে সরস্বতি পূজা।

নাটোর:
নাটোরে বাড়িতে বাড়িতেও করা হয়েছে এ পূজার আয়োজন। পূজা মন্ডপগুলোতে সাজসজ্জা ও আলোকসজ্জা করা হয়েছে। পূজা উপলক্ষে মন্ডপে মন্ডপে নেওয়া হয়েছে ভক্তিমুলক গান, প্রসাদ বিতরণ, সন্ধ্যা আরতিসহ নানা আয়োজন।