রাজশাহী অঞ্চলে ভাবগাম্ভীর্যে পালিত জাতীয় শোক দিবস বঙ্গবন্ধু হত্যায় নেপথ্যের খুনিদের শাস্তির দাবি

আপডেট: আগস্ট ১৬, ২০২০, ১২:১২ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক


জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৫তম শাহাদত বার্ষিকীর আলোচনায় বঙ্গবন্ধুর পৈশাচিক হত্যাযজ্ঞের নেপথ্যে যারা জড়িত- তাদের খুঁজে বের করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি প্রদানের দাবি উঠেছে। বঙ্গবন্ধুর খুনি যারা পলাতক আছে তাদের দেশে ফিরিয়ে এনে মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করার আহ্বান জানানো হয়। বক্তারা বলেন, প্রয়োজনে কমিশন গঠন করে বঙ্গবন্ধু হত্যার সাথে নেপথ্যের কুশীলবদের নিখোঁজ বের করে তাদের শাস্তির আওতায় আনতে হবে। এ ব্যাপারে বিশেষ শক্তিশালী টাক্স ফোর্স গঠন এবং লবিস্ট নিয়োগেরও পরামর্শ প্রদান করা হয়।
শনিবার (১৫ আগস্ট) জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৫তম শাহাদত বার্ষিকী সারা দেশের ন্যায় রাজশাহীসহ রাজশাহী অঞ্চলের বিভিন্ন স্থানে যথাযথ মর্যাদা ও ভাবগাম্ভীর্যের সাথে পালিত হয়েছে। দিবসটি উপলক্ষে বিভিন্ন রাজনৈতিক সংগঠন, সরকারি- বেসরকারি সংস্থা, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এবং বিভিন্ন সামাজিজ সাংস্কৃতিক সংগঠন বিস্তারিত কর্মসূচি পালন করে। দৈনিক সোনার দেশ এর নিজস্ব প্রতিবেদক এবং জেলা ও উপজেলা প্রতিনিধিদের পাঠান সংবাদ নিয়ে রাজশাহী অঞ্চলের জাতীয় শোক দিবস পালনের এই প্রতিবেদন প্রস্তুত করা হয়েছে।
বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে রাসিক মেয়র লিটনের পুষ্পার্ঘ্য অর্পণ
স্বাধীনতার মহান স্থপতি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এঁর ৪৫তম শাহাদত বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস-২০২০ যথাযথ মর্যাদায় পালন করেছে রাজশাহী সিটি কর্পোরেশন। শনিবার (১৫ আগস্ট) দুপুর ১২টায় নগর ভবন চত্বরে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণের মাধ্যমে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন সিটি মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন। তাঁর সঙ্গে কাউন্সিলরবৃন্দ উপস্থি ছিলেন। রাসিক জনসংযোগ দপ্তরের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানান হয়।
মেয়রের পুষ্পার্ঘ দেয়ার পর কর্মকর্তা-কর্মচারী ও কর্মচারী ইউনিয়নের পক্ষ থেকে পৃথকভাবে পুষ্পস্তবক অর্পণ করা হয়। পুষ্পস্তবক অর্পণ শেষে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও তাঁর পরিবারের শহীদ সদস্য, জাতীয় চার নেতাসহ সকল শহীদের আত্মার মাগফিরাত কামনায় দোয়া ও মোনাজাত করা হয়।এ সময় উপস্থিত ছিলেন, রাসিকের প্যানেল মেয়র-১ ও ১২নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর সরিফুল ইসলাম, প্যানেল মেয়র-২ ও ১নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর রজব আলী, প্যানেল মেয়র-৩ তাহেরা খাতুন মিলি, ২নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর নজরুল ইসলাম, ৩নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর কামাল হোসেন, ৪নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর রুহুল আমিন টুনু, ৫নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মোঃ কামারুজ্জামান, ৮নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর এসএম মাহবুবুল হক পাভেল, ৯নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর রেজাউন নবী দুদু, ১৩নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আব্দুল মমিন, ১৪ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আনোয়ার হোসেন, ১৬নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর বেলাল আহমেদ, ১৯ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর তৌহিদুল হক সুমন, ২০ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর রবিউল ইসলাম, ২৫ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর তরিকুল আলম পল্টু, ২৯নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মাসুদ রানা, ৩০নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর শহিদুল ইসলাম পিন্টুসহ অন্যান্য কাউন্সিলরবৃন্দ, প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ড. এবিএম শরীফ উদ্দিন, সচিব আবু হায়াত মো. রহমতুল্লাহ, মেয়রের একান্ত সচিব মো. আলমগীর কবির, নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সমর কুমার পাল, প্রধান প্রকৌশলী খন্দকার খায়রুল বাশার, বাজেট কাম হিসাব রক্ষণ কর্মকর্তা শফিকুল ইসলাম, প্রধান রাজস্ব কর্মকর্তা আবু সালেহ মো. নূর-ঈ সাঈদ, প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. এফএএম আঞ্জুমান আরা বেগম, প্রধান পরিচ্ছন্ন কর্মকর্তা শেখ মো. মামুন ডলারসহ অন্যান্য কর্মকর্তাবৃন্দ, কর্মচারী ইউনিয়নের সভাপতি দুলাল শেখ ও সাধারণ সম্পাদক আজমীর আহমেদ মামুন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।
এরআগে ১৫ আগস্ট সূর্যোদয়ের সাথে সাথে নগর ভবন ও সকল ওয়ার্ড কাউন্সিলর কার্যালয়ে জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত করে উত্তোলন করা হয়। বাদ জোহর জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও তাঁর পরিবারের শহীদ সদস্যদের আত্মার মাগফিরাত কামনায়, নগর ভবন, সোনাদিঘী জামে মসজিদসহ সকল জামে মসজিদে দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। এছাড়া অন্যান্য ধর্মাবলম্বীদের স্ব স্ব উপাসনালয়ে বিশেষ প্রার্থনা করা হয়। এছাড়াও মাসব্যাপী কালো ব্যাজ ও বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতি সম্বলিত কোটপিন ধারণ এবং নগর ভবন ও প্রতিটি ওয়ার্ড কার্যালয়ে বঙ্গবন্ধু ও তাঁর পরিবারের শহীদ সদস্যদের প্রতি গভীর শ্রদ্ধা জানিয়ে ব্যানার প্রদর্শন ও বঙ্গবন্ধুর ঐতিহাসিক ৭ই মার্চের ভাষণ প্রচার করা হয়।
রাজশাহী মহানগর আওয়ামী লীগ

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৫তম শাহাদত বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস যথাযথ মর্যাদায় বিভিন্ন কর্মসূচিতে পালন করেছে রাজশাহী মহানগর আওয়ামী লীগ। শনিবার (১৫ আগস্ট) বেলা ১১টায় কুমারপাড়া দলীয় কার্যালয়ের পাশে স্বাধীনতাচত্বরে বঙ্গবন্ধু ও জাতীয় চার নেতার প্রতিকৃতিতে মহানগর আওয়ামী লীগ সভাপতি ও সিটি মেয়র এ.এইচ.এম খায়রুজ্জামান লিটনের নেতৃত্ব পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন নেতৃবৃন্দ। এরপর মহানগর আওয়ামী লীগের কার্যালয়ে আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। পরে দুপুরে মানবভোজ বিতরণ করা হয়।
আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন, মহানগর আওয়ামী লীগ সভাপতি ও সিটি মেয়র এ.এইচ.এম খায়রুজ্জামান লিটন। এ সময় মেয়র বলেন, ১৫ আগস্ট বাঙালি জাতির এক বেদনাবিধুর দিন। ১৯৭৫ সালের এই দিনে স্বাধীনতার মহান স্থপতি, সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে সপরিবারে নির্মমভাবে হত্যা করা হয়। আজকের এই দিনে আমরা বঙ্গবন্ধুর যেসব খুনি এখনো পলাতক আছে, তাদের দেশে ফিরে এনে দ্রুত বিচার কার্যকর করার জোর দাবি জানাচ্ছি। সভা পরিচালনা করেন, মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ডাবলু সরকার।
সভায় মহানগর আওয়ামী লীগের সাবেক সিনিয়র সহ-সভাপতি বিশিষ্ট সমাজসেবী শাহীন আকতার রেনী বলেন, বঙ্গবন্ধু মানেই বাংলাদেশ। আমাদের নতুন প্রজন্মকে বঙ্গবন্ধুকে জানতে হবে। বঙ্গবন্ধু সর্ম্পকিত বই বেশি বেশি পড়তে হবে।
সভায় সাবেক সহ-সভাপতি মাহফুজুল আলম লোটন, মুক্তিযোদ্ধা নওশের আলী, অধ্যক্ষ শফিকুর রহমান বাদশা, নিঘাত পারভীন, সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মোস্তাক হোসেন ও রেজাউল ইসলাম বাবুল, সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক আসাদুজ্জামান আজাদ ও অ্যাডভোকেট আসলাম সরকার, সাবেক যুব ও ক্রীড়া সম্পাদক মীর তৌফিক আলী ভাদু, সাবেক উপ-দপ্তর সম্পাদক শফিকুল ইসলাম দোলন, সাবেক উপ-প্রচার সম্পাদক মীর ইসতিয়াক আহম্মেদ লিমন, সাবেক স্বাস্থ্য বিষয়ক সম্পাদক ডা. ফ.ম.আ জাহিদ, সাবেক ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক জাহিদুল ইসলাম জাহিদ, সাবেক সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক কামার উল্লাহ সরকার কামাল, সাবেক কার্যনির্বাহী সদস্য আহসানুল হক পিন্টু, ডা. তবিবুর রহমান শেখ, রবিউল ইসলাম, মকিদুজ্জামান জুরাত ও বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সভাপতি ডা. আনিকা ফারিহা জামান অর্ণাসহ মহানগর আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।
রাজশাহী জেলা প্রশাসন
যথাযোগ্য মর্যাদা ও ভাবগাম্ভীর্যের সাথে স্বাধীনতার মহান স্থপতি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৫তম শাহাদত বার্ষিকীতে ‘জাতীয় শোক দিবস’ উদযাপন করা হয় । সকালে সূর্যোদয়ের সাথে সাথে সকল সরকারি, আধা-সরকারি, স্বায়ত্তশাসিত প্রতিষ্ঠান, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও বেসরকারি ভবনসমূহে জাতীয় পতাকা অর্ধনমিতভাবে উত্তোলন করা হয়। সকাল ৮ টায় শহিদ এএইচএম কামারুজ্জামান মিলনায়তন চত্বরে স্বাধীনতার মহান স্থপতি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে পুস্পস্তবক অপর্ণ করা হয়। বেলা ১০ টায় শহিদ এএইচএম কামারুজ্জামান মিলনায়তনে ‘বঙ্গবন্ধু ও বাংলাদেশ’ শীর্ষক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। রাজশাহীর জেলা প্রশাসক আব্দুল জলিলের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিভাগীয় কমিশনার মো. হুমায়ুন কবির খোন্দকার প্রধান অতিথি ও অন্যান্যের মধ্যে রাজশাহী রেঞ্জের ডিআইজি একেএম হাফিজ আক্তার, পুলিশ কমিশনার মো. হুমায়ুন কবির, পুলিশ সুপার মো. শহীদুল্লাহ, প্রফেসর রুহুল আমিন প্রামাণিক বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তৃতা করেন।
অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি বলেন, বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন ছিল বাংলাকে সোনার বাংলায় পরিণত করা। সোনার বাংলা বলতে তিনি শোষণমুক্ত, অসাম্প্রদায়িক, ক্ষুধা ও দারিদ্র্যমুক্ত বাংলাকে বুঝিয়েছেন। দেশ স্বাধীন হওয়ার পর পরাজিত শক্তি বুঝতে পেরেছিল যে, বঙ্গবন্ধু যে স্বপ্ন দেখেছেন তা তিনি বাস্তবায়ন করবেন। তাঁর স্বপ্নকে নস্যাৎ করতেই ১৯৭৫ সালের ১৫ই আগস্ট পরাজিত শক্তিরা বাঙ্গালি জাতির সর্বকালের শ্রেষ্ঠ সন্তানকে নৃশংস ভাবে হত্যা করে। তারা ভেবেছিল বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করলেই সব শেষ হয়ে যাবে। কিন্তু বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নকে বাস্তবায়ন করতে তার কন্যা বর্তমান সরকারের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দৃঢ় নেতৃত্বে দেশ এগিয়ে যাচ্ছে। বেলা ১১ টায় জেলা শিল্পকলা একাডেমিতে শিশুদের চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়। চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা শেষে ‘হে পিতা তোমায় নিয়ে কবিতা’ শিরোনামে আবৃত্তি ও চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতার পুরষ্কার বিতরণ করা হয়। ইসলামিক ফাউন্ডেশন, শিশু সদন ও সেফহোম, ছোটমনি নিবাস, শিশু বিকাশ কেন্দ্র, প্রতিবন্ধি ফাউন্ডেশন স্কুল ও এতিমখানায় জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জীবন ও কর্মের উপর আলোচনা সভা, হামদ-নাত পরিবেশন, মিলাদ মাহফিল, দোয়া ও বিশেষ মোনাজাত অনুষ্ঠিত হয়। মসজিদসমূহে বিশেষ মোনাজাত এবং মন্দির, গীর্জা ও অন্যান্য ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানে আলোচনা ও প্রার্থনা অনুষ্ঠিত হয়। গণযোগাযোগ অধিদপ্তরের ব্যবস্থাপনায় মহানগরীর বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ মোড়ে বঙ্গবন্ধুর জীবনীর ওপর প্রামাণ্য চিত্র প্রদর্শন করা হয়। বাংলাদেশ বেতার রাজশাহী কার্যালয় বিশেষ অনুষ্ঠানমালা প্রচার করে। দিবসটির তাৎপর্য তুলে ধরে স্থানীয় সংবাদপত্রসমূহে বিশেষ ক্রোড়পত্র প্রকাশ করে। আঞ্চলিক তথ্য অফিস আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিলের আয়োজন করে। এছাড়া বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে জাতীয় শোক দিবসের সাথে সঙ্গতিপূর্ণ কবিতা আবৃত্তি, রচনা ও চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা, আলোকচিত্র প্রদর্শনী, আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তর, সমাজসেবা অধিদপ্তর, গণযোগাযোগ অধিদপ্তর এবং উপজেলা প্রশাসন জাতীয় কর্মসূচির সাথে সামঞ্জস্য রেখে স্ব-স্ব কর্মসূচি প্রণয়ন ও বাস্তবায়ন করে।
জেলা আওয়ামীলীগ
জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের এঁর ৪৫তম শাহাদাত বার্ষিকী পালন উপলক্ষে নানান কর্মসূচি পালন করেছে রাজশাহী জেলা আওয়ামী লীগ।
কর্মসূচির মধ্যে ছিল সকালে সূর্য উদয় ক্ষণে দলীয় কার্যালয়ে পতাকা অর্ধনমিতকরণ ও কালো পতাকা উত্তোলন, সকাল সাড়ে ১০টায় রাজশাহী কলেজে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিত্বে শ্রদ্ধা নিবেদন, সাড়ে ১১ টায় অলকার মোড়ে দলীয় কার্যালয়ে স্বাস্থ্যবিধি মেনে আলোচনাসভা ও অসহায় দুস্থদের মাঝে খাবার বিতরণ। বাদ জোহর জেলার সকল মসজিদে দোয়া মিলাদমন্দির, প্যাগাডো র্গীর্জায় বিশেষ প্রার্থনা করা হয়েছে।
রাজশাহী জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সাবেক সাংসদ মেরাজ উদ্দিন মোল্লার সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক সাবেক সাংসদ আব্দুল ওয়াদুদ দারার পরিচালনায় বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে স্মৃতিচারণমুলক বক্তব্য দেন, রাজশাহী জেলা আাওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও বাঘা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট লায়েব উদ্দিন লাভলু, জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক উপদেষ্টা মনিরুল ইসলাম তাজুল, দুর্গাপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা নজরুল ইসলাম, পুঠিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ডা. হাসমত উদ দৌলা, জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক প্রভাষক আসাদুজ্জামান আসাদ, সাবেক মহিলা বিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট পূর্র্ণিমা ভট্টাচার্য, আওয়ামী লীগ নেতা আমানুল হক দুদু, অ্যাডভোকেট. শরিফুল ইসলাম, বাগমারা উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ অ্যাডভোকেট জাকিরুল ইসলাম সান্টু, ডা. চিন্ময় কুমার দাস, বানেশ্বর ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট আব্দুস সামাদ মোল্লাহ, রাজশাহী জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মাহবুবুল আলম মুক্তি, প্রদ্যুৎ কুমার সরকার, মাওলানা এন্তাজ আলী, জেলা কৃষক লীগের সভাপতি রবিউল আলম বাবু, সাধারণ সম্পাদক অধ্যক্ষ তাজবুল হক, জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মর্জিনা পারভীন, জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি রোকনুজ্জামান রিন্টু, সাধারণ সম্পাদক মিজানুর রহমান রানা, জেলা যুব মহিলা লীগের সভাপতি নার্গিস শেলী, সাধারণ সম্পাদক বিপাশা খাতুন, জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ও পাকুড়িয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মেরাজুল ইসলাম মেরাজসহসহ প্রমুখ।
মুক্তিযোদ্ধা সংসদ জেলা ইউনিট কমান্ড
জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের শাহাদৎ বার্ষিকী যথাযোগ্য মর্যাদায় পালন করেছে, মুক্তিযোদ্ধা সংসদ জেলা ইউনিট কমান্ড। শাহাদৎ বার্ষিকী উপলক্ষে তারা বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করেছে। কর্মসূচিগুলো হলো: প্রত্যুষে মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স ভবনে শোক পতাকা উত্তোলন, জাতীয় ও সংগঠনের পতাকা অর্ধনমিতকরণ, সকাল সাড়ে ৭ টায় স্বাস্থ্যবিধি মেনে গণজমায়েত ও কালো ব্যাচ ধারণ, সকাল ৮ টায় জাতির পিতার প্রতিকৃতিতে পুষ্পমাল্য অর্পণ, বঙ্গবন্ধুসহ সকল শহিদদের শ্রদ্ধা জানিয়ে ১ মিনিট নিরবতা পালন, বিকেল ৪ টায় শোক দিবসের আলোচনা সভা, দোয়া ও দিনব্যাপী মাইকে কোরআন তিলাওয়াত এবং বঙ্গবন্ধুর ভাষণ প্রচার।
এ সকল কর্মসূচিতে উপস্থিত ছিলেন, কেন্দ্রীয় কামান্ড কাউন্সিলের সাবেক নেতা অ্যাডভোকেট মতিউর রহমান, জেলা সাবেক ভারপ্রাপ্ত কমান্ডার শাহাদুল হক মাস্টার, ডেপুটি কমান্ডার ইয়াছিন আলী মোল্লা, সহকারী কমান্ডার শেখ দিল মোহাম্মদ, আব্দুর সাত্তার প্রমুখ।
জেলা পরিষদের পুস্পস্তবক অর্পণ
রাজশাহী জেলা পরিষদের আয়োজনে জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে পুস্পস্তবক অর্পণ ও আলোচনা সভা শেষে দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। শনিবার সকালে নগরীর লক্ষ্মিপুর মোড় সংলগ্ন এলাকায় বঙ্গবন্ধুর ম্যুরালে পুস্পস্তবক অর্পণ করেন রাজশাহী জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ আলী সরকর ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা শাহানা আখতার জাহান। এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন, ইঞ্জিনিয়ারিং এন্ড সার্ভে ইন্সটিটিউট রাজশাহী অধ্যক্ষ মাহমুদ হোসেন, জেলা পরিষদ সদস্য জয় জয়ন্তী মালতি সরকার, শিউলী রাণী সাহ ও কৃষ্ণা দেবী। এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন, জেলা পরিষদের প্রধান সহকারী আফজালুর রহমান, হিসাবরক্ষক সহ সকল কর্মকর্তা ও কর্মচারীবৃন্দ। পুস্পস্তক অর্পণ শেষে রাজশাহী জেলা পরিষদ কার্যালয়ের সভাকক্ষে সংক্ষিপ্ত আলোচনা শেষে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সহ পরিবারের সকলের আত্মার মাগফেরত কামনা করে দোয়া মহফিল অনুষ্ঠিত হয়।
রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়
শনিবার রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে জাতীয় শোকদিবস পালন করা হয়। দিবসের শুরুতে সূর্যোদয়ের সাথে সাথে প্রশাসনভবনসহ অন্যান্য ভবনে জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত ও কালো পতাকা উত্তোলন করা হয়। সকাল ৯:৩০ মিনিটে উপাচার্য প্রফেসর এম আব্দুস সোবহান শোক র‌্যালিসহ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হলে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন। সে সময় উপ-উপাচার্য প্রফেসর আনন্দ কুমার সাহা, উপ-উপাচার্য প্রফেসর চৌধুরী মো. জাকারিয়া, কোষাধ্যক্ষ প্রফেসর এ কে এম মোস্তাফিজুর রহমান আল-আরিফ, রেজিস্ট্রার প্রফেসর এম এ বারী, প্রক্টর প্রফেসর মো. লুৎফুর রহমান ও জনসংযোগ দপ্তরের প্রশাসক প্রফেসর প্রভাষ কুমার কর্মকারসহ প্রশাসনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা, শিক্ষক, কর্মকর্তা, কর্মচারীবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। সেখানে তাঁরা বঙ্গবন্ধুর রুহের মাগফিরাত কামনা করে মোনাজাত করেন।
এরপর বিভিন্ন আবাসিক হল, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি, ক্যাম্পাসের স্কুলসমূহ, মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও মূল্যবোধে বিশ্বাসী প্রগতিশীল শিক্ষক সমাজ, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় বঙ্গবন্ধু পরিষদসহ অন্যান্য প্রতিষ্ঠান এবং পেশাজীবী ও সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠন সেখানে পুষ্পস্তবক অর্পণ করে।
এ উপলক্ষে সকাল ১০টায় শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ সিনেট ভবনে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে অনুষ্ঠিত হয় আলোচনা সভা। সভার শুরুতে বঙ্গবন্ধুর উপর তথ্যচিত্র প্রদর্শন ও জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে প্রকাশিত ‘মৃত্যুঞ্জয়ী বঙ্গবন্ধ’ু শীর্ষক প্রকাশনার পাঠ উন্মোচন করা হয়। জাতীয় শোক দিবস ২০২০ পালন কমিটির সভাপতি উপ-উপাচার্য প্রফেসর চৌধুরী মো. জাকারিয়ার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে উপাচার্য প্রফেসর এম আব্দুস সোবহান প্রধান আলোচক এবং উপ-উপাচার্য প্রফেসর আনন্দ কুমার সাহা আলোচক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন । এতে স্বাগত বক্তব্য রাখেন রেজিস্ট্রার প্রফেসর এম এ বারী।
সভায় রাবি শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক প্রফেসর মো. আশরাফুল ইসলাম খানও বক্তব্য রাখেন।
সভাটি সঞ্চালনা করেন জাতীয় শোক দিবস পালন কমিটির সদস্য-সচিব ও প্রক্টর প্রফেসর মো. লুৎফর রহমান।
দিবসটি উপলক্ষে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় এবং বিশ্ববিদ্যালয় স্কুল ও শেখ রাসেল মডেল স্কুলের শিক্ষার্থীদের জন্য অনলাইনে রচনা প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়। এছাড়া অনুষ্ঠানের অন্যান্য কর্মসূচিতে আরো আছে, বাদ জোহর বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় জামে মসজিদে কোরআনখানি ও মিলাদ মাহফিল, সন্ধ্যা ৬টায় কেন্দ্রীয় মন্দিরে বিশেষ প্রার্থনা এবং সন্ধায় শহীদ মিনার চত্বরে প্রদীপ প্রজ্বালন।
বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন পেশাজীবী ও সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠন নিজ নিজ কর্মসূচির মাধ্যমে দিবসটি পালন করে।
রাজশাহী প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়
জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে রাজশাহী প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (রুয়েট) দিনব্যাপী নানা কর্মসূচির মধ্যে দিয়ে পালিত হয়। সূর্যোদয়ের সাথে সাথে প্রশাসনিক ভবন ও হলসমূহে জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত রাখা ও শোকের প্রতীক পতাকা উত্তোলন করা হয়। এরপর সকাল ১০ টায় শোকের প্রতীক কালোব্যাজ ধারণ করা হয়। এর সকাল ১০:৩০ টায় কেন্দ্রীয় লাইব্রেরীর বঙ্গবন্ধু কর্নার সংলগ্ন স্থানে নবনির্মিত বঙ্গবন্ধুর ম্যুরালের শুভ উদ্বোধন করেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস-চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মো. রফিকুল ইসলাম সেখ । সকাল ১০:৪৫ টায় রুয়েটের ভাইস-চ্যান্সেলরের নেতৃত্বে জাতির পিতা শেখ মুজিবুর রহমান- এর নবনির্মিত ম্যুরালে পুষ্পার্ঘ অর্পণ ও শ্রদ্ধাঞ্জলি নিবেদন করা হয়। এছাড়াও পুষ্পার্ঘ অর্পণ করেন রুয়েট শিক্ষক সমিতি, রুয়েট শাখা ছাত্রলীগ, রুয়েট অফিসার্স অ্যাসোসিয়েশন, কর্মচারী সমিতিসহ বিভিন্ন আবাসিক হলসমূহ। এসময় আরোও উপস্থিত ছিলেন, রাজশাহী প্রকৌশল প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার(ভারপ্রাপ্ত) প্রফেসর ড. মো. সেলিম হোসেন, রুয়েটের শিক্ষক সমিতির সভাপতি প্রফেসর ড. মো. ফারক হোসেন ও সাধারণ সম্পাদক প্রফেসর ড. মিয়া মো. জগলুল সাদত, পরিচালক ছাত্রকল্যাণ ও ১৫ আগস্ট জাতীয় শোক দিবস উদযাপন কমিটির সভাপতি প্রফেসর ড. মো. রবিউল আওয়াল, উপপরিচালক ছাত্রকল্যাণ মো. মামুনুর রশীদ ও আবু সাঈদ, রুয়েট অফিসার্স অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি দিলীপ কুমার ঘোষ ও সাধারণ সম্পাদক প্রকৌশলী মুফতি মাহমুদ রনি, রুয়েট শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক চৌধুরী মাহফুজুর রহমান তপু , কর্মচারী সমিতির সভাপতি মো. মহিদুল ইসলাম ও সাধারণ সম্পাদক মো. আব্দুল্øাহ আল মামুন শুভসহ বিভিন্ন অনুষদের ডিনবৃন্দ, বিভাগীয় প্রধানবৃন্দ, হলসমূহের প্রভোস্টবৃন্দ, শিক্ষকবৃন্দ, কর্মকর্তা ও কর্মচারীবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। শ্রদ্ধাঞ্জলি নিবেদন শেষে দিবসটি উপলক্ষে সকাল ১১ টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস-চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মো. রফিকুল ইসলাম সেখ বৃক্ষরোপন করেন। বাদ যোহর রুয়েট কেন্দ্রীয় জামে মসজিদে বঙ্গবন্ধুসহ ১৫ আগস্টে নিহত সকল শহিদের আত্মার মাগফেরাত কামনা করে দোয়া অনুষ্ঠিত হয়।
উল্লেখ্য, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান- এর ম্যুরালটি রাজশাহী প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ইতিহাসে নির্মিত প্রথম ম্যুরাল যা রুয়েটের ভাইস-চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মো. রফিকুল ইসলাম সেখ এর সার্বিক তত্ত্বাবধানে নির্মিত হয়েছে। বৃক্ষরোপন কমসূচি শেষে রুয়েট ভাইস-চ্যান্সেলর বঙ্গবন্ধু কর্নার পরিদর্শন করেন।
রাজশাহী মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় (রামেবি):
জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের শাহাদৎ বার্ষিকী উপলক্ষে বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করেছে, রাজশাহী মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়(রামেবি)। সকাল সাড়ে ৮টায় জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত ও কালো পতাকা উত্তোলন, সকাল ৯টায় জাতির পিতার প্রতিকৃতিতে সামাজিক দুরত্ব ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে পুষ্পস্তবক অর্পণ এবং মোনাজাত করা হয়। এরপর সকাল ১০ টায় রামেবি এর কর্মকর্তা-কর্মচারীদের অংশগ্রহণে কনফারেন্স রুমে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে জাতীয় শোক দিবসের আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।
আলোচনা সভায় উপাচার্য অধ্যাপক ডা. মাসুম হাবিব বলেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ছিলেন বাঙালি জাতির মুক্তির দিশারি। তিনি ছিলেন গণমানুষের নেতা। তার ডাকে পাকিস্তানের শোষক গোষ্ঠীর হাত থেকে মুক্তি পেতে ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে এ দেশের কৃষক-শ্রমিক ও বিভিন্ন শ্রেণি- পেশার মানুষ মুক্তিযুদ্ধে ঝাঁপিয়ে পড়ে দেশকে স্বাধীন করেছিল।
তিনি আরো বলেন, ১৫ আগস্ট জাতীয় শোক দিবস। ১৯৭৫ সালের এদিনে বাংলাদেশের স্থপতি, হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও তার পরিবারের সদস্যদের নির্মমভাবে হত্যা করা হয়। আমরা এই শোকাবহ দিনে জাতির জনকের প্রতি বিনম্র শ্রদ্ধা জানাচ্ছি। একইসঙ্গে সেদিন কালরাতে শহিদ সকলের বিদেয়ী আত্মার মাগফিরাত কামনা করছি।
এ সময় উপস্থিত ছিলেন, রাজশাহী মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার অধ্যাপক ডা. আনোয়ারুল কাদের, পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক অধ্যাপক এসএমএ হুরাইরা, উপ-পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক ডা. সারোয়ার জাহান, উপাচার্যের একান্ত সচিব রাসেদুল ইসলাম, পোটকল অফিসার ইসমাইল হোসেন, কর্মকর্তা নুর-রায়ান, কবির আহমেদ, সানি, রায়িন, সিমা, শামীম, সোবহান, আশরাফসহ বিশ্ববিদ্যালয়ের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা। অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন, অধ্যাপক ডা. জাওয়াদুল হক।
বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়
জাতীয় শোক দিবস যথাযোগ্য মর্যাদায় পালন শেষে বাউবি রাজশাহী আঞ্চলিক কেন্দ্রে এক বৃক্ষ রোপণ কর্মসূচির আয়োজন করা হয়। রাজশাহী আঞ্চলিক কেন্দ্রের আঞ্চলিক পরিচালক, লেখক ও কলামিস্ট ড. মেজবাহ উদ্দিন তুহিন উক্ত বৃক্ষ রোপণ কর্মসূচি উদ্বোধন করেন। বৃক্ষ রোপন কর্মসূচিতে আঞ্চলিক কেন্দ্রের কর্মকর্তা-কর্মচারীগণের অংশগ্রহণে অর্জুন, করমচা, কদবেল, কাঠবাদাম, জামরুল, আশফল, মালটা, বাতাবিলেবু, ডুমুর, বেদেনা, আতাফল, শরিফা, সফেদা, কমলা, এ্যাবোকাডা, কাশমিরি কুল, লেবু, নিম, কৃষ্ণচূড়া, লটকন, আমলকি, আলুবখরা, রংগণ, মেরিয়াকুল, পেয়ারাসহ ২৫ প্রজাতির ৫০টি ফলজ, বনজ ও ঔষধি গাছ রোপন করা হয়।
রাজশাহী চেম্বার
জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের শাহাদৎ বার্ষিকী উপলক্ষে বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করেছে, রাজশাহী চেম্বর অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাষ্ট্রি। কর্মসূচিগুলো হলো: কোরআন খতম, দোয়া মহফিল ও মাদ্রাসার ছাত্রদের খাবারের ব্যবস্থা। এ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, চেম্বারের সভাপতি মনিরুজ্জামান, সিনিয়র সহ-সভাপতি মাসুদুর রহমান রিংকু, সাবেক পরিচালক আতিকুর রহমান, পরিচালক শাহাদৎ হোসেন বাবু, সাদরুল ইসলাম, শেখ রেজাউর রহমান দুলাল প্রমুখ।
কর অঞ্চল
কর অঞ্চল-রাজশাহী’র উদ্যোগে ১৫ আগস্ট জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। বেলা ১২ টার দিকে নিজস্ব কার্যালয়ে এ মাহফিলের আয়োজন করা হয়।
অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, কর কমিশনার মুহাম্মদ মফিজ উল্যা, উপ কর কমিশনার, সদর দপ্তর (প্রশাসন) আবু নসর মাহবুবুজ্জামান, অন্যান্য উপ কর কমিশনার, সহকারী কর কমিশনার, কর কর্মচারী
কল্যাণ পরিষদ, কর অঞ্চল-রাজশাহী’র সভাপতি আব্দুস সামাদ ও সেক্রেটারী এম. সাহিন উদ্দীনসহ সর্ব স্তরের কর্মচারীবৃন্দ। দোয়া মাহফিল পরিচালনা করেন, কর ভবন মসজিদের পেশ ইমাম হাসিবুর রহমান।
আঞ্চলিক তথ্য অফিস
আঞ্চলিক তথ্য অফিস (পিআইডি)-এর উদ্যোগে যথাযোগ্য মর্যাদা ও ভাবগাম্ভীর্যের সাথে জাতীয় শোক দিবস উদযাপন করা হয় । স্বাধীনতার মহান স্থপতি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৫তম শাহাদতবার্ষিকীতে জাতীয় শোক দিবস উদযাপন উপলক্ষে আঞ্চলিক তথ্য অফিস রাজশাহীর সম্মেলন কক্ষে আলোচনাসভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। উপপ্রধান তথ্য অফিসার মোহাম্মদ আফরাজুর রহমান এর সভাপতিত্বে আলোচনাসভায় আঞ্চলিক তথ্য অফিসের সিনিয়র তথ্য অফিসার ফারুক মো. আব্দুল মুনিম এবং জেলা তথ্য অফিসের উপপরিচালক মোহা. শামসুজ্জামান বঙ্গবন্ধুর কর্মময় সংগ্রামী জীবনের উপর আলোকপাত করেন। আলোচনা শেষে ১৫ই আগস্টের শহীদদের রূহের মাগফেরাত কামনা করে দোয়া অনুষ্ঠিত হয়। আঞ্চলিক তথ্য অফিস (পিআইডি)-এর সকল কর্মকর্তা/কর্মচারী এসময় উপস্থিত ছিলেন। এর আগে, সকালে সূর্যোদয়ের সাথে সাথে আঞ্চলিক তথ্য অফিস ভবনে জাতীয় পতাকা অর্ধনমিতভাবে উত্তোলন করা হয়। এ দপ্তরের কর্মকর্তা ও কর্মচারীগণ সকাল ৮ টায় শহিদ এএইচএম কামারুজ্জামান মিলনায়তন চত্বরে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে পুস্পস্তবক অপর্ণ করেন।
রাজশাহী কলেজ
জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের শাহাদৎ বার্ষিকী উপলক্ষে বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করেছে রাজশাহী কলেজ। শোক দিবস উপলক্ষে (১৪ আগস্ট) অনলাইনে কবিতা আবৃত্তি, হামদ-নাত, রচনা, স্বরচিত কবিতা ও চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়। (১৫ আগস্ট) প্রত্যুষে জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত উত্তোলন ও কালো ব্যাচ ধারণ, সকাল ৯ টায় রাজশাহী কলেজে অবস্থিত বঙ্গবন্ধুর মুর‌্যালে অধ্যক্ষ ও উপাধ্যক্ষের নেতৃত্বে পুষ্পস্তবক অর্পণ ও শ্রদ্ধা নিবেদন, ‘বঙ্গবন্ধুর জীবন ও কর্মভিত্তিক’ চিত্র প্রদর্শনী। সাড়ে ৯ টায় রাজশাহী কলেজ অধ্যক্ষ প্রফেসর হবিবুর রহমানের সভাপতিত্বে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় আলোচক হিসেবে বক্তব্যে রাখেন, কলেজের উপাধ্যক্ষ প্রফেসর আব্দুল খালেক ইতিহাস বিভাগের প্রভাষক আল আমীন হক, বিভাগের সহকারী অধ্যাপক অনিসুজ্জামান ও হিত্য ও সাংস্কৃতিক কমিটির আহ্বায়ক প্রফেসর ড. ইব্রাহিম আলী। আলোচনা সভা শেষে সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের পুরস্কার বিতরণ করা হয়। যোহর নামাজের পর রাজশাহী কলেজ জামে মসজিদে দোয়া মাহফিল ও বিকেলে মহারানী হেমন্তকুমারী ছাত্রাবাসে অবস্থিত মন্দিরে বিশেষ প্রার্থনা করা হয়।
রাজশাহী মহিলা টিটিসি
রাজশাহী মহিলা টিটিসিতে সূর্যদয়ের সাথেসাথে অধ্যক্ষ মো. নাজমুল হক এর নের্তৃত্বে জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত করণ ও প্রশিক্ষক/শিক্ষক কালো ব্যাচ ধারণের মধ্যদিয়ে দিবসের কর্মসূচি শুরু হয়।
কোরআন তেলাওয়াতের মধ্যদিয়ে সকাল ৮.৩০ঘটিকায় জাতীয় শোক দিবসের আলোচনা ও দোয়া মাহফিল এর অনুষ্ঠান শুরু হয়। আলোচনা পর্বে অংশগ্রহণ করেন, রাজশাহী মহিলা টিটিসি’র প্রশিক্ষক, শিক্ষক ও কর্মচারীবৃন্দ।
আলোচনা অুনষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন, রাজশাহী মহিলা টিটিসির অধ্যক্ষ মো. নাজমুল হক। আলোচনা পর্বে অংশগ্রহণ করেন, রাজশাহী মহিলা টিটিসির জেনারেল শিক্ষক সাবিহা সুলতানা, সিনিয়র ইন্সট্রাক্টর এসএম কামাল আহমেদ, চিফ ইন্সট্রাক্টর প্রসাদ কুমার সরকার, চিফ ইন্সট্রাক্টর ফারহানা তৌহিদ, চিফ ইন্সট্রাক্টর দেলোয়ার হোসেন, সিনিয়র ইন্সট্রাক্টর মজিবুর রহমান, চিফ ইন্সট্রাক্টর শামীমা আক্তার, চিফ ইন্সট্রাক্টর মো. আতিকুর রহমান এবং অনুষ্ঠান সঞ্চালনায় ছিলেন, শামীমা ডেইজী। আলোচনা পর্বের সভাপতি ও রাজশাহী মহিলা টিটিসির অধ্যক্ষ মো. নাজমুল হক তাঁর সমাপনি বক্তব্যে বলেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান আইনের শাসন, বাংলাদেশের উন্নয়ন ও গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠার জন্য যে চারা রোপন করেছিলেন তাঁরই সূযোগ্য কণ্যা গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সেই চারা সুষ্ঠু পরিচর্চার মাধ্যমে একটি পূর্ণাঙ্গ বৃক্ষে পরিণত করতে সক্ষম হয়েছেন এবং বাংলাদেশকে বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলায় রুপান্তর করতে সক্ষম হয়েছেন।
দুপুর ১২.৩০ ঘটিকায় বঙ্গবন্ধু ও তাঁর পরিবার সহ সকল শহিদের আত্মার মাগফেরাত কামনায় দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠান সূচীর শেষ প্রান্তে কর্মকর্তা/কর্মচারীদের মধ্যে তবারক বিতরণের মধ্যেদিয়ে দিবসের কর্মসূচি শেষ করা হয়। অন্ষ্ঠুান শেষে ১৫ আগষ্ঠ ঘাতকদের হাতে নিহত শহিদদের স্মরণে বৃক্ষ রোপন করা হয়।
বরেন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়
বরেন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার ড. মো. মহিউদ্দীনের নেতৃত্বে সীমিত পরিসরে কাজলা ভবনের সেমিনার কক্ষে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণের মধ্যে দিয়ে বঙ্গবন্ধুর ৪৫তম শাহাদতবার্ষিকী পালন করা হয়। তাঁর এবং তাঁর পরিবারের শহিদ সদস্যদের আত্মার মাগফেরাত কামনা করা হয় এবং এক মিনিট নিরাবতা পালন করা হয়।
এরপর দ্বিতীয় পর্যায়ে বরেন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের সম্মানিত উপদেষ্টা ড. এম. সাইদুর রহমান খান এর সভাপতিত্বে জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে অনলাইন আলোচনার ব্যবস্থা করা হয়। সেখানে আলোচনায় অংশ নেন, বরেন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত উপাচার্য এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রেজারার ও অর্থনীতি বিভাগের সভাপতি প্রফেসর ড. তারিক সাইফুল ইসলাম, ভারপ্রাপ্ত উপ-উপাচার্য ও ইংরেজি বিভাগের প্রধান প্রফেসর শহিদুর রহমান, রেজিস্ট্রার ড. মো. মহিউদ্দীনসহ বিভিন্ন বিভাগের প্রধান, কো-অর্ডিনেটর ও শিক্ষকবৃন্দ।
অনুষ্ঠানে উপস্থিত অতিথিরা জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জীবন কর্মের উপর আলোকপাত করে বক্তব্য প্রদান রাখেন। ড. এম. সাইদুর রহমান খান তাঁর বক্তব্যে বাঙালির আরো অনেক বিখ্যাত নেতাদের সাথে তুলনামূলক আলোচনায় বলেন, “জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ছিলেন দুরন্ত, সাহসী এবং প্রতিবাদী। অন্যায়কে কখনোই তিনি প্রশ্রয় দিতেন না। তিনি ছিলেন, একাধারে সাহসী, নিঃস্বার্থ, মানবতাবাদী, অসাম্প্রদায়িক, উদার ও জাতীয়তাবাদী। জাতির জনকের সাহসিকতার উপর ভর করেই বাংলাদেশ আজ স্বাধীন হয়েছে। বিবিসির জরিপে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি হিসেবে চিহ্নিত করা হয়। ”
নর্থ বেঙ্গল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি
নর্থ বেঙ্গল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি (এনবিআইইউ)-তে যথাযোগ্য মর্যাদায় জাতীয় শোক দিবস পালিত হয়েছে। শনিবার সকালে রাজশাহী নগরীর বিনোদপুরে ইউনিভার্সিটির প্রশাসনিক ভবনে কালো পতাকা উত্তোলন ও জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত রাখার মাধ্যমে কর্মসূচি শুরু হয়। এরপর সকাল ১০টায় সেখানে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পমাল্য অর্পণ এবং সংক্ষিপ্ত আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়। আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন ট্রাস্টিবোর্ডের চেয়ারম্যান নারীনেত্রী অধ্যাপক রাশেদা খালেক। সভাপতির বক্তব্য রাখেন, ইউনিভার্সিটির উপাচার্য বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ, গবেষক ও কলামিস্ট প্রফেসর ড. আবদুল খালেক। এসময় ইউনিভার্সিটির চিফ কো-অর্ডিনেটর প্রফেসর ড. পি.এম. সফিকুল ইসলামসহ স্বাস্থ্যবিধি মেনে প্রশাসনের সীমিত সংখ্যক উর্ধ্বতন কর্মকর্তা, শিক্ষক ও কর্মচারীবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।
আলোচনায় বক্তারা বলেন, ১৯৭৫ সালের ১৫ অগাস্ট সপরিবারে জীবন দিতে হয় বাংলাদেশের স্বাধীনতা সংগ্রামের মহান নায়ক, তৎকালীন রাষ্ট্রপতি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে। তাঁরা ১৫ আগস্ট ইতিহাসের নিষ্ঠুরতম এই হত্যাকাণ্ডের নেপথ্যে ষড়ষন্ত্রকারীদেরও বিচার দাবি করেন।
নিউ গভ. ডিগ্রী কলেজ,
জাতী শোকদিবসে শনিবার ১০ টায় শিক্ষক মিলনায়তনে শিক্ষক, ছাত্র সংগঠনের সদস্যবৃন্দ ও কর্মচারী সমন্বয়ে এক আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিলের অনুষ্ঠিত হয়। পবিত্র কুরআন ও গীতা পাঠের মাধ্যমে অনুষ্ঠান শুরু হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন, প্রাক্তন অধ্যক্ষ প্রফেসর এস.এম. জার্জিস কাদির। তিনি তাঁর বক্তব্যে বঙ্গবন্ধুর চেতনা ও স্বপ্নকে ধারণ করে উন্নয়নের সাথে সাথে সামাজিক মূল্যবোধ অর্জনের গুরুত্ব তুলে ধরেন। বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন সাহিত্য ও সংস্কৃতি কমিটির আহ্বায়ক ড. মো. শাহাদাত হোসেন সরকার। অনুষ্ঠানের সভাপতিত্ব করেন, ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ প্রফেসর ড. মো. অলীউল আলম, নিউ গভ. ডিগ্রী কলেজ, রাজশাহী। তিনি তাঁর বক্তব্যে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করেন এবং বঙ্গবন্ধুর বিচিত্র জীবনবোধের উপর সংকলন গ্রন্থ ‘কোটি মানুষের কন্ঠস্বর’ থেকে জ্ঞানগর্ভ আলোচনা করেন।
আলোচনা অনুষ্ঠানে বঙ্গবন্ধু সম্পর্কে বিশ্বনেতা ও বুদ্ধিজীবীদের মূল্যায়নকে বিশ্লেষণ করেন মূল আলোচক ড. মোঃ সাইয়েদুর রহমান, সহযোগী অধ্যাপক, প্রাণিবিদ্যা বিভাগ ও সংশ্লিষ্ট আলোচক জনাব মোঃ শহিদুল ইসলাম, সহযোগী অধ্যাপক, বাংলা বিভাগ এবং শিক্ষক পরিষদের সম্পাদক জনাব মোঃ তানভিরুল হক। অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন ড. নূর সালমা খাতুন, সহকারী অধ্যাপক, বাংলা বিভাগ। সবশেষে বঙ্গবন্ধুর বিদেহী আত্মার মাগফিরাত কামনা করে দোয়া অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন ড. মোঃ আব্দুল মালেক, সহকারী অধ্যাপক, অর্থনীতি বিভাগ।
রাজশাহী সরকারি সিটি কলেজ
রাজশাহী সরকারি সিটি কলেজে জাতীয় শোক দিবস পালিত হয়েছে। অনুষ্ঠানের প্রারম্ভে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পার্ঘ্য অর্পণ করা হয়। সকাল ১১ টায় আয়োজিত আলোচনা অনুষ্ঠানে সভাপতি ছিলেন কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর মো. সানাউল্লাহ্ শেখ। আলোচনায় অংশ নেন, মো. আব্দুর রাজ্জাক, প্রভাষক, বাংলা বিভাগ, মু. সাদিকুল ইসলাম, সহকারী অধ্যাপক, গনিত বিভাগ, মো. আবদুল হাই সিদ্দকী, সহযোগী অধ্যাপক, বাংলা বিভাগ, ব রওনক আরা, সহযোগী অধ্যাপক, ইংরেজি বিভাগ, মো. সুলতান উদ্দিন মিঞা, অধ্যাপক, দর্শন বিভাগ, মোসাম্মাৎ নাফিসা বেগম, অধ্যাপক, ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগ, মো. শফিকুল হক, অধ্যাপক, গনিত বিভাগ ও সৈয়দ শাহ জালালউদ্দিন রুমী, অধ্যাপক, ব্যবস্থাপনা বিভাগ।
দু’আ পরিচালনা ও সমগ্র অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন সম্পাদক, শিক্ষক পরিষদ ও রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের বিভাগীয় প্রধান এ.এফ.এম বজলুল কবীর।
রাজশাহী কৃষি উন্নয়ন ব্যাংক
জাতীয় শোক দিবসে রাকাব প্রধান কার্যালয়ে শনিবার সকাল ৬টায় বঙ্গবন্ধুর ম্যূরালে পুষ্পস্তবক অর্পন করেন, ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক এ,কে,এম সাজেদুর রহমান খান। এ সময় উপস্থিত ছিলেন, ব্যাংকের উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোহাম্মদ ইদ্রিস, প্রশাসন মহাবিভাগের মহাব্যবস্থাপক তৌহিদা খাতুন, পরিচালন মহাবিভাগের মহাব্যবস্থাপক জি এম রুহুল আমিন, ব্যাংকের প্রধান কার্যালয়, বিভাগীয় কার্যালয়, বিভাগীয় নিরীক্ষা কার্যালয়, প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউট, এসইসিপি, এলপিও-এর কর্মকর্তা-কর্মচারীবৃন্দ। এর পূর্বে ব্যাংকের কর্মকর্তা-কর্মচারীগণ ব্যাংক ব্যবস্থাপনার উপস্থিতিতে সূর্যদয়ের সাথে সাথে যথাযথ মর্যাদায় জাতীয় পতাকা উত্তোলন (অর্ধনমিত)এ অংশগ্রহণ করেন। এছাড়াও ব্যবস্থাপনা পরিচালক মহোদয়সহ সর্বস্তরের কর্মকর্তা-কর্মচারী বঙ্গবন্ধু অঙ্গনে জাতির পিতার প্রতিকৃতিতে পুষ্পমাল্য অর্পণ করেন। রাকাব কর্মচারী সংসদ (সিবিএ), রাকাব অফিসারর্স এসোসিয়েশন, অফিসার্স ফোরাম ও বঙ্গবন্ধু পরিষদ পৃথক পৃথকভাবে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতি ও ম্যূরালে পুষ্পার্ঘ্য অর্পন করেন। পুষ্পমাল্য অর্পণ শেষে ব্যাংকের প্রধান কার্যালয় মসজিদে কোরআন খতমোত্তর বঙ্গবন্ধু ও শাহাদাৎ বরণকারী তাঁর পরিবারের সকল সদস্যদের বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনা করে বিশেষ দোয়া পরিচালনা করেন ব্যাংকের পেশ ইমাম মোঃ সাইদুর রহমান। পরবর্তীতে সকাল ১০:৩০ টায় রাকাব পরিচালনা পর্ষদের চেয়ারম্যান মোঃ রইছউল আলম মন্ডল এর সরাসরি অংশগ্রহণে জাতির পিতার জীবনচরিত, আদর্শ, দর্শন ইত্যাদির উপর ভার্চুয়াল সভা অনুষ্ঠিত হয়। উক্ত সভায় ব্যাংকের প্রধান কার্যালয়সহ মাঠ পর্যায়ের সকল কার্যালয় ও শাখাসমূহের কর্মকর্তা-কর্মচারীগণ জুম অ্যাপ ও ফেসবুকে সরাসরি স্ট্রিমিং-এর মাধ্যমে অংশগ্রহণ করেন। ভার্চুয়াল সভা শেষে বৃক্ষ রোপনের মাধ্যমে জাতীয় শোক দিবসের দিনব্যাপি কর্মসূচির সমাপ্ত করেন ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক এ,কে,এম সাজেদুর রহমান খান।
জেলা অ’লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক
দিবসটি উপলক্ষে রাজশাহী জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক নেতৃবৃন্দদের নিয়ে সকাল সাড়ে নয়টায় লক্ষ¥ীপুর মোড়ে বঙ্গবন্ধুর ম্যুরালে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন, সাবেক সাধারণ সম্পাদক মোহা. আসাদুজ্জামান আসাদ। এসময় অন্যান্য সংগঠনের মধ্যে রাজশাহী যুবলীগ, জেলা শ্রমিকলীগ, জেলা ছাত্রলীগ, জেলা আওয়ামী ওলামালীগ, জেলা মহিলা শ্রমিকলীগ আলাদা আলাদা ভাবে শ্রদ্ধা নিবেন করেন।
এসময় উপস্থিত ছিলেন- জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সহ-সভাপতি অ্যাডভোকেট মোকবুল হোসেন খান, সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক আহসান উল হক মাসুদ, সাবেক দফতর সম্পাদক ফারুক হোসেন ডাবলু, সাবেক যুব ও ক্রীড়া বিষয় সম্পাদক মোখতার হোসেন, সাবেক ধর্ম সম্পাদক মাওলানা মো. সিরাত উদ্দিন শাহীন, সাবেক উপ-দফতর সম্পাদক মো. শরিফুল ইসলাম, সাবেক উপ-প্রচার সম্পাদক আফজাল হোসেন বকুল, গোদাগাড়ী উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বদিউজ্জামান, জেলা যুবলীগের সভাপতি আবু সালেহ, ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক আলী আজম সেন্টু, জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি হাবিবুর রহমান হাবিব, জেলা শ্রমিকলীগ সভাপতি আব্দুল্লাহ খান, জেলা যুবলীগের সহ-সভাপতি আলমগীর মরশেদ রঞ্জু, ফয়সাল মাহমুদ সজল, আরিফুল ইসলাম রাজা, মুজাহিদ হোসেন মানিক, সাংগঠনিক সম্পাদক ওয়াসিম রেজা লিটন, মোবারক হোসেন মিলন, সামাউন ইসলাম, দফতর সম্পাদক মিজানুর রহমান পল্লব, প্রচার সম্পাদক রফিকুজ্জামান রফিক, উপ-প্রচার সম্পাদক শাহাদত হোসেন পিন্টু, সদস্য মোখতার হোসেন, সহ সম্পাদক সাবের আলী, সেলিম জাহাঙ্গীর, শরিফুল ইসলাম রানা প্রমুখ।
দুপুর দেড়টার দিকে জেলা যুবলীগের আয়োজনে প্রধান অতিথি থেকে খাবার বিতরণ করেন, জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আসাদুজ্জামান আসাদ।
বাংলাদেশ রেশম উন্নয়ন বোর্ড
জাতীয় শোক দিবস যথাযথ মর্যাদায় ও ভাবগম্ভীর পরিবেশে পালন করা হয়। বাংলাদেশ রেশম গবেষণা ও প্রশিক্ষণ ইন্সটিটিউট, আঞ্চলিক রেশম সম্প্রসারণ কার্যালয় ও পি৩ কেন্দ্র, রাজশাহী এর সমন্বয়ে বাংলাদেশ রেশম উন্নয়ন বোর্ডে আলোচনা ও দোয়া মাহফিলসহ বিভিন্ন কর্মসূচির আয়োজন করা হয়। এই বৈশি^ক দূর্যোগে স্বাস্থ্যবিধি মেনে জাতীয় শোক দিবসে বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করা হয়।
দিনের শুরুতে জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত রাখার মাধ্যমে জাতীয় শোক দিবসে গৃহীত কর্মসূচির সূচনা করা হয়। উপস্থিত সকলকে কালো ব্যাচ পড়ানো হয়। সকাল ১০ ঘটিকায় জনাব মু: আবদুল হাকিম, মহাপরিচালক, বাংলাদেশ রেশম উন্নয়ন বোর্ডের নেতৃত্বে জাতির পিতার প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করা হয়। এরপর বোর্ড প্রধান কার্যালয় চত্বরে বৃক্ষরোপণ করা হয়। তারপর আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়।
সভায় ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট নির্মম হত্যাকান্ডের নিন্দা জানিয়ে জাতির পিতার দেশের প্রতি অবদান ও রাজনৈতিক জীবনের উপর আলোকপাত করা হয়। সভায় মহাপরিচালক জাতির পিতাসহ নিহতদের আত্মার প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করে সর্বকালের শ্রেষ্ঠ বাঙালি স্বাধীনতার প্রধান রুপকার জাতির পিতার মহান আত্মত্যাগের বর্ণনা দেন। তিনি বলেন, জাতির পিতার কারণেই আমরা স্বাধীনতার সুফল ভোগ করছি। সেইসাথে জাতির পিতার সোনার বাংলা গড়ার লক্ষ্যে দেশ এগিয়ে যাচ্ছে। এ লক্ষ্যে বাংলাদেশ রেশম উন্নয়ন বোর্ডও কাজ করছে।
আলোচনা শেষে ১৫ আগস্ট শহিদদের আত্মার মাগফেরাত কামনা করে বিশেষ মোনাজাত করা হয়।
এ সময় বাংলাদেশ রেশম গবেষণা ও প্রশিক্ষণ ইন্সটিটিউট এর পরিচালক এ.কে.এম আমিরুল ইসলাম, রেশম উন্নয়ন বোর্ডের সদস্য(অর্থ ও পরিকল্পনা) এম. এ মান্নান, সদস্য(উৎপাদন ও বাজারজাতকরণ) মোছা: নাছিমা খাতুন, সদস্য(সম্প্রসারণ ও প্রেষণা) মোহাম্মদ এমদাদুল বারী, সচিব সৈয়দ মোস্তাক হাসান, সিবিএ সভাপতি মো: আবু সেলিমসহ বোর্ডের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা/কর্মচারীবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। সুমন ঠাকুর, জনসংযোগ কর্মকর্তা অনুষ্ঠানের সঞ্চালকের দায়িত্ব পালন করেন।
বাংলাদেশ মুক্তিসংগ্রাম পরিষদ-মুক্তিযুদ্ধ’ ৭১:
জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের শাহাদৎ বার্ষিকী উপলক্ষে বাংলাদেশ মুক্তিসংগ্রাম পরিষদ-মুক্তিযুদ্ধ’ ৭১ কানপাড়া ও মুজিব আদর্শের বিভিন্ন সংগঠন যৌথভাবে বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করেছে। কর্মসূচিগুলো হলো: প্রত্যুষে কার্যালয়ে শোক পতাকা উত্তোলন, জাতীয় ও সংগঠনের পতাকা অর্ধনমিতকরণ, কালো ব্যাচ ধারণ ও জাতির পিতার প্রতিকৃতিতে পুষ্পমাল্য অর্পণ। সকাল ৮ টায় আলোচনা সভা ও দোয়া। কানপাড়া আঞ্চলিক কমিটির সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা অধ্যক্ষ আনিসুর রহমানের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় বক্তব্যে রাখেন, সংগঠনের সভাপতি অবসরপ্রাপ্ত সেনা অফিসার আবুল হাসান খন্দকার, জয়েন্ট সেক্রেটারি সিরাজুল ইসলাম, অফিস সেক্রেটারি রমেশ চন্দ্র প্রামাণিক প্রমুখ।
মেট্রোপলিটন কলেজ:
জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের শাহাদৎ বার্ষিকী উপলক্ষে বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করেছে, রাজশাহী মেট্রোপলিটন কলেজ। কর্মসূচির মধ্যে ছিলো: বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পমাল্য অর্পণ এবং বেলা ১১ টায় ভার্চুয়াল আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল।
আলোচনা সভায় কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ সাইফুর রহমানের সভাপতিত্বে বক্তব্যে রাখেন, সহকারী অধ্যাপক ফেরদৌসী বেগম, মাহবুবা ইয়াসমীন, প্রভাষক সুলতান সাব্বির আহমেদসহ শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা। দোয়া পরিচালনা করেন, প্রভাষক জিল্লার রহমান।
বঙ্গবন্ধু কলেজ:
দিবসটি উপলক্ষে সূর্যোদয়ের সাথে সাথে জাতীয় পতাকা অর্ধনমিতভাবে ও কালো পতাকা উত্তোলন করা হয়। কালো ব্যাজ ধারণ করে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ শেষে নিরবতা পালন করেন। এসময় উপস্থিত ছিলেন, বঙ্গবন্ধু কলেজের অধ্যক্ষ মো. নূরুল ইসলাম, উপাধ্যক্ষ মো. কামরুজ্জামান, পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক আবদুল্লাহ হেল শাফী, জনসংযোগ ও প্রকাশনা দপ্তরের পরিচালক মো. হাসিবুর রহমান, রোভার লিডার ওমর তোহিদসহ কলেজের বিভিন্ন বিভাগের বিভাগীয় প্রধানগণ এবং অন্যান্য শিক্ষকবৃন্দ। পুস্পস্তবক অর্পণ শেষে কলেজের অধ্যক্ষ মো. নূরুল ইসলামের সভাপতিত্বে ১৫ আগস্ট জাতির পিতার ৪৫ তম শাহাদত বার্ষিকী উপলক্ষে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। আলোচনা সভাটি পরিচালনা করেন কলেজের উপাধ্যক্ষ মো. কামরুজ্জামান। আলোচনা শেষে জাতির পিতা ও তাঁর পরিবারের সকল শহিদের আত্মার মাগফিরাত কামনা করে দোয়া মোনজাত করা হয়। মোনাজাত পরিচালনা করেন কলেজের প্রভাষক মো. হায়দার আলী।
কবি নজরুল একাডেমি: কবি নজরুল একাডেমি রাজশাহীর আয়োজনে জাতীয় শোক দিবস পালিত হয়েছে। শনিবার বিকাল ৬টায় কবি নজরুল একাডেমি, রাজশাহীর উপশহরস্থ কার্যালয়ে এ শোক সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।
কবি নজরুল একাডেমি রাজশাহীর সদস্য এস. এম. আব্দুল্লাহর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন নজরুল একাডেমি, রাজশাহীর সাধারণ সম্পাদক প্রফেসর ড. গুলনাহার বেগম, দৈনিক সোনার দেশের ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক আকবারুল হাসান মিল্লাত, অ্যাডভোকেট আকরামুল ইসলাম, নজরুল একাডেমির উপদেষ্টা হাফিজুল ইসলাম চৌধুরী। একাডেমির দপ্তর সম্পাদক প্রকৌশলী আব্দুস সাত্তার। অনুষ্ঠানে বক্তারা জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জীবন দর্শন নিয়ে আলোচনা করেন। এছাড়াও অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন, নজরুল একাডেমি রাজশাহীর, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক মুসলিমা হাফিজ, প্রচার সম্পাদক নাদিম সিনা প্রমুখ।
জেলা পরিষদ
দিবসটি উপলক্ষে হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙ্গালী জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে পুস্পস্তবক অপর্ণ ও আলোচনা সভা শেষে দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। গতকাল শনিবার সকালে নগরীর লক্ষ্মীপুর মোড় সংলগ্ন এলাকায় বঙ্গবন্ধুর ম্যুরালে পুস্পস্তবক অর্পণ করেন রাজশাহী জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ আলী সরকর ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা শাহানা আখতার জাহান।
এসময় উপস্থিত ছিলেন, ইঞ্জিনিয়ারিং এন্ড সার্ভে ইন্সটিটিউট রাজশাহী অধ্যক্ষ মাহমুদ হোসেন, জেলা পরিষদ সদস্য জয় জয়ন্তী মালতি সরকার, শিউলী রাণী সাহ ও কৃষ্ণা দেবী।
এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন, জেলা পরিষদের প্রধান সহকারী আফজালুর রহমান, হিসাবরক্ষকসহ সকল কর্মকর্তা ও কর্মচারীবৃন্দ। পুস্পস্তক অর্পণ শেষে রাজশাহী জেলা পরিষদ কার্যালয়ের সভাকক্ষে সংক্ষিপ্ত আলোচনা শেষে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সহ পরিবারের সকলের আত্মার মাগফেরত কামনা করে দোয়া মহফিল অনুষ্ঠিত হয়।
বাংলাদেশ লেখিকা সংঘ:
জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৫তম শাহাদতবার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে অনলাইন আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়।
সভায় সভাপতিত্ব করেন, সংগঠনের সভাপতি কবি ও কথাশিল্পী নারীনেত্রী অধ্যাপক রাশেদা খালেক। বাংলাদেশ লেখিকা সংঘ, রাজশাহী শাখা করোনাকালীন এ দূর্যোগময় পরিস্থিতিতে প্রথমবার ডিজিটাল পদ্ধতিতে আলোচনা সভার আয়োজন করে।
সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক ড. নূরে এলিস আকতার জাহান এর সঞ্চালনায় আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন ড. মাজেদা খাতুন, সহ-সভাপতি জায়তুনা খাতুন, বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে কবিতা আবৃত্তি করেন সহ সভাপতি ড. সুলতানা নাজনীন, কল্পনা রায় ভৌমিক, শিরীন শরীফ, ড. রুমি শাইলা শারমিন, ড. নাসরীন লুবনা, ড. কামরুন্নাহার কেয়া, ফাহামিদা ফেরদৌসী। সংক্ষেপে বঙ্গবন্ধুকে স্মরণ করে আলোচনা করেন, মারজানা সাবিহা সূচি, ড. শিরীন আকতার নীনা, ফেরদৌস নেক পারভীন। আলোচনা সভায় সর্বসম্মতিক্রমে দাবি উস্থাপন করা হয় বঙ্গবন্ধুর প্রকৃত খুনীদের বিচারের রায় কার্যকর। প্রকৃত খুনী চিহ্নিত করে মরণোত্তর বিচারের মাধ্যমে দেশকে কলঙ্কমুক্ত করার অভিমত ব্যক্ত করেন প্রত্যেক সদস্য। সভায় শুভেচ্ছা বক্তব্য ও সমাপনী বক্তব্য প্রদান করেন সংগঠনের সভাপতি অধ্যাপিকা রাশেদা খালেক।
রাজশাহী ব্যবসায়ী সমন্বয় পরিষদ
দিবসটি উপলক্ষে বরেন্দ্র শিক্ষা সংস্কৃতি বৈচিত্র রক্ষা কেন্দ্রে, সেভ দ্যা ন্যাচার এন্ড লাইফ, মৃত্তিকা সমাজসেবা সংঘ, বেটার ন্যাচার এন্ড সোসাইটি ও দিনের আলো হিজরা সংঘের উদ্যোগে সাহেববাজার জিরোপয়েন্ট, রাজশাহী মেডিকেল কলেজের সামনে, রাজশাহী রেলওয়ে ষ্টেশন, তেরখাদিয়া মোড় প্রভৃতি এলাকায় সমাজের অসহায় দুঃস্থ ও সুবিধাবঞ্চিত ৫০০ (পাঁচশত) মানুষের মাঝে রান্না করা খাবার বিতরণ করা হয়।
খাবার বিতরনের সময় উপস্থিত ছিলেন শহর সমাজ সেবা কর্মকর্তা আশিকুজ্জামান, রাজশাহী ব্যবসায়ী সমন্বয় পরিষদের সাধারণ সম্পাদক মো. সেকেন্দার আলী, রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের ১৪ নম্বর ওয়ার্ড’র কাউন্সিলর আনোয়ার হোসেন আনার, ব্যবসায়ী ও সমাজ সেবক মিজানুর রহমান, বরেন্দ্র শিক্ষা সংস্কৃতি বৈচিত্র রক্ষা কেন্দ্রের সভাপতি জাওয়াদ আহমেদ রাফি, জাতীয় মানবাধিকার কমিটির যুব সম্পাদক জাকির হোসেন প্রমুখ ।
খাদেমুল ইসলাম বালিকা বিদ্যালয় ও কলেজ:
জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের শাহাদৎ বার্ষিকী উপলক্ষে খাদেমুল ইসলাম বালিকা বিদ্যালয় ও কলেজ বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করেছে। কর্মসূচিগুলো হলো: সকাল সাড়ে ৭ টায় জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত উত্তোলন ও কালো পতাকা উত্তোলন। সাড়ে ১০ টায় বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পমাল্য অর্পণ, শহিদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে ১ মিনিট নিরবতা পালন, আলোচনা সভা ও মাহফিল।
অনুষ্ঠানে কলেজের অধ্যক্ষ রণজিৎ কুমার সাহা এর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, গভর্নিং বডির সভাপতি সাবেক মেয়র মুক্তিযোদ্ধা অ্যাডভোকেট আব্দুল হাদী। আলোচনায় অংশ নেন, সহকারী প্রধান শিক্ষক রতন কুমার মন্ডল ও শিক্ষার্থীরা। দোয়া পরিচালনা করেন, প্রভাষক এরশাদ আলী।
ন্যাপ কমিউনিস্টপার্টি ছাত্র ইউনিয়ন:
জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের শাহাদৎ বার্ষিকী উপলক্ষে ন্যাপ কমিউনিষ্টপার্টি ছাত্র ইউনিয়ন রাজশাহীর শোক সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।
সংগঠনের জেলা সমন্বয়ক অ্যাডভোকেট সাইদুল ইসলামের সভাপতিত্বে শোক সভায় উপস্থিত ছিলেন, মুক্তিযোদ্ধা হাফিজুর রহমান, ইসমাইল হোসেন, সাইফুজ্জামান তপন, বদরে আলম, জহুরুল হক, নজরুল ইসলাম প্রমুখ। এছাড়া বেলা ১০ টায় শহিদ কামারুজ্জামান মিলনায়তনে অবস্থিত বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানানো হয়।
মুক্তিযোদ্ধা লীগ: দিবসটি উপলক্ষে শোক পতাকা উত্তোলন, জাতীয় ও সংগঠনের পতাকা অর্ধনমিতকরণ, কালো ব্যাজ ধারণ, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে পুষ্পমাল্যদান, আলোচনাসভা ও দোয়া খায়ের অনুষ্ঠিত হয়েছে। সকালে বাংলাদেশ আওয়ামী মুক্তিযোদ্ধা লীগের জেলা কমিটির সভাপতি যুদ্ধকালীন কমান্ডার মুক্তিযোদ্ধা অ্যাডভোকেট আবদুস সামাদের সভাপতিত্বে নগর কমিটির সেক্রেটারী আহম্মদ আলীর সঞ্চালনায় বক্তব্য দেন, জেলা সাধারণ সম্পাদক কেএমএম ইয়াছিন আলী মোল্লা, নগর সহ সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা এসএম মাহবুব আলম (ব্যাংক), মুক্তিযোদ্ধা আবুল কাশেম বিশ্বাস, আবদুস সামাদ চৌধুরী (আয়কর), আনিসুর রহমান (পোরশা), বয়েন উদ্দিন ও আমজাদ হোসেন (টিডিআর)।
৩০ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর
৩০ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর শহিদুল ইসলাম পিন্টু উদ্যোগে কাঙ্গালী ভোজ বিতরণ করা হয়। কাঙ্গালী ভোজ বিতরণে স্বারিক সহযোগিতায় ছিলেন, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় সাধারণ কর্মচারী ট্রেড ইউনিয়নের সভাপতি ও ৩০ নম্বর ওয়ার্ড দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সহসভাপতি মো. নূরুল ইসলাম ভুট্টু। এর আগে আলোচনাসভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। এসময় উপস্থিত ছিলেন, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় সাধারণ কর্মচারী ট্রেড ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদ আবদুল আজিজ, আওয়ামীলীগ মো. কাজিম, শুকুর আলীসহ স্থানীয় ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।
জেলা যুব মহিলা লীগ
দিবসটি উপলক্ষে রাজশাহী কলেজে অবস্থিত জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিত্বে শ্রদ্ধা নিবেদন করেছে রাজশাহী জেলা যুব মহিলা লীগ। রাজশাহী জেলা যুব মহিলা লীগের সাধারণ সম্পাদক বিপাশা খাতুনের নেতৃত্বে এসময় জেলা ও উপজেলা পৌরসভা ও ইউনিয়ন যুব মহিলা লীগের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।
এসময় বক্তারা বলেন, বঙ্গবন্ধুর আদর্শকে আমাদের চিত্তে লালন করতে হবে। বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা গড়তে হলে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করতে হবে। তাহলেই সোনার বাংলা হবে।
রাজশাহী প্রেসক্লাব
‘বঙ্গবন্ধু দুর্নীতিমুক্ত সোনার বাংলা গড়তে চেয়েছিলেন। কিন্ত বর্তমানে লুটপাট-দুর্নীতি নিত্যদিনের ঘটনা হয়ে দাঁড়িয়েছে। বঙ্গবন্ধু এরকম বাংলাদেশ দেখতে চাননি। দুর্নীতির বিরুদ্ধে আন্দোলন চলবেই। দুর্নীতি যেকোনো দেশের উন্নয়নের অন্তরায়। দুর্নীতির সঙ্গে কোনো আপস নয়। দুর্নীতিবাজদের বিরুদ্ধে সবাইকে সোচ্চার থাকতে হবে।’
শনিবার (১৫ আগস্ট) বিকেল ৪টায় রাজশাহী নগরীর সাহেব বাজার জিরো পয়েন্টে জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে আয়োজিত মানববন্ধন কর্মসূচিতে বক্তারা এসব কথা বলেন। এসময় রাজশাহী প্রেসক্লাব ও জননেতা আতাউর রহমান স্মৃতি পরিষদ জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের খুনিদের দেশে ফিরিয়ে এনে বিচার দাবিতে এবং অরাজনৈতিক সামাজিক সংগঠন “বঙ্গবন্ধুর বাংলাদেশ চাই” বঙ্গবন্ধুর দুর্নীতিমুক্ত স্বপ্নের বাংলাদেশ গড়ার দাবিতে মানবন্ধন কর্মসূচি পালন করে।
রাজশাহী প্রেসক্লাব ও স্মৃতি পরিষদের সভাপতি সাইদুর রহমান সভাপতিত্ব এবং বঙ্গবন্ধুর বাংলাদেশ চাই’র আহ্বায়ক রাজশাহী প্রেসক্লাব সাধারণ সম্পাদক আসলাম-উদ-দৌলার পরিচালনায় অংশ নেন-রাজশাহী প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি নজরুল ইসলাম খান, মুক্তিযোদ্ধা আনোয়ার ইকবাল বাদল, নদী ও পরিবেশ বাঁচাও আন্দোলন বাংলাদেশের সদস্য সচিব এ্যডভোকেট হোসেন আলী পিয়ারা, জননেতা আতাউর রহমান স্মৃতি পরিষদ সহ-সভাপতি ও রাজশাহী বারের যুগ্ম সম্পাদক এ্যাডভোকেট সিরাজী শওকত সালেহিন এলেন, জননেতা আতাউর রহমান স্মৃতি পরিষদ সহ-সভাপতি সালাউদ্দিন মিন্টু, মহানগর দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটির সাধারণ সম্পাদক রাশেদ রিপন, রাজশাহী প্রেসক্লাবের ক্রীড়া সম্পাদক জিএম হাসান-ই-সালাম বাবুল, বঙ্গবন্ধুর বাংলাদেশ চাই’র সদস্য ও রাজশাহী প্রেসক্লাবের সহযোগি সদস্য কাজী রকিবউদ্দিন, বঙ্গবন্ধুর বাংলাদেশ চাই ও জননেতা আতাউর রহমান স্মৃতি পরিষদ সদস্য ডা. রোকনুজ্জামান রিপন, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় দোকান মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক নিজাম উদ্দীন আলম প্রমুখ।
শেখ রাসেল শিশু প্রশিক্ষণ ও পুনর্বাসন কেন্দ্র
দিবটি উপলক্ষে শেখ রাসেল শিশু প্রশিক্ষণ ও পুনর্বাসন কেন্দ্র, সমাজসেবা অধিদফতরে জাতীয় পতাকা অর্ধনর্মিত করন, সকল কর্মকর্তা-কর্মচারী ও নিবাসী শিশুদের কালো ব্যাজ ধারণ, শোক র‌্যালি, জেলা প্রশাসক কর্তৃক আয়োজিত শোক র‌্যালিতে অংশগ্রহন, নিবাসী শিশুদের রচনা ও চিত্রাংকন প্রতিযোগীতা, কোরআন খতম, নিবাসী শিশুদের উন্নত খাবার পরিবেশন, দোয়া মাহফিল, আলোচনাসভা ও পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠিত হয়েছে। প্রধান অতিথি ছিলেন, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আই সি টি) মে. কামরুজ্জামান। বিশেষ অতিথি জেলা সমাজসেবা কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক ড. আবদুল্লা আল ফিরোজ, প্রাক্তন প্রধান শিক্ষক ও ১৪ নম্বর ওয়ার্ড (পূর্ব) আওয়মী লীগের সিনিয়র সহ সভাপতি সাইদুল ইসলাম। সার্বিক তত্বাবধনে ছিলেন, উপপ্রকল্প পরিচালক জনাব নুরুল আলম প্রধান (আলমগীর)।
রিটায়ার্ড অফিসার্স অ্যাসোসিয়েশন
জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভা মহাসচিব অধ্যাপক মো. শরিফুজ্জামান এর পরিচালনায় অনুষ্ঠিত হয়। সভায় সভাপতিত্ব করেন, রাকাব এর জেনারেল ম্যানেজার (অব.) মো. ইউনুস আলী। ১৫ই আগস্টের শহিদদের আত্মার মাগফেরাত কামনা করে মুনাজাত করা হয়। বক্তাগণ এই পৈশাচিক হত্যাজজ্ঞের নেপথ্যে আরো যারা কাজ করেছেন তাদের খুঁজে বের করে দৃষ্টান্তমূলক শস্তি প্রদানের দাবি জানান এবং যারা পলাতক মৃত্যুদণ্ড প্রাপ্ত আসামী আছে তাদের অবিলম্বে দেশে ফিরিয়ে এনে মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করার আহ্বান জানানো হয়। এ উপলক্ষে প্রয়োজন হলে একটি বিশেষ শক্তিশালী টাক্স ফোর্স গঠন এবং লবিস্ট নিয়োগের পরামর্শ প্রদান করা হয়। সভায় বক্তাগণ আরো বলেন, ১৫ই আগস্ট শহিদের স্মরণে রাজশাহীতে কোনো আন্তর্জাতিক মানের প্রতিষ্ঠান নাই তাই বক্তাগণ মনে করেন ওইসব শহিদদের নামে রাজশাহীতে কিছু প্রতিষ্ঠান স্থাপন করা প্রয়োজন। বিধায় বীর মুক্তযোদ্ধা শহিদ শেখ কামালের নামে রাজশাহীতে একটি কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়, শহিদ লেফটেন্ট শেখ জামাল আইন বিশ্ববিদ্যালয় এবং শহিদ সুলতানা কামাল সংগীত বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করে তাদের স্মৃতিকে রাজশাহী শহরে সংরক্ষণের ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য প্রস্তাব করা হয়।
সভায় বক্তব্য রাখেন, জেলা জজ (অব.) জহিরুল হক, অতিরিক্ত সচিব (অব.) এম.এ মান্নান, বীর মুক্তিযোদ্ধা কামাল উদ্দিন, অতিরিক্ত সচিব (অব), জেনারেল ম্যানেজার (অব.) রাকাব, রফিকুল আলম চৌধুরী, জেনারেল ম্যানেজার (অব.) বিসিক এনামুল হক, অধ্যক্ষ বরুদ্দোজা, অধ্যক্ষ রিয়াজ উদ্দিন, বীর মুক্তিযোদ্ধা জনাব রবিউল ইসলাম, ডেপুটি চিফ কর্মাসিয়াল ম্যানেজার, বাংলাদেশ রেলওয়ে পশ্চিম অঞ্চল প্রমুখ।
লফস
শোক দিবস উপলক্ষে রাজশাহী জেলার দায়িত্বপ্রাপ্ত সংস্থা লেডিস অর্গানাইজেশন ফর সোসাল ওয়েলফেয়ার (লফস) এর ব্যবস্থপনায় সংস্থার ঘোড়ামারা কার্যালয়ে বাংলাদেশ এনজিও ফাউন্ডেশনের সহযোগী সংস্থার আয়োজনে আলোচনা সভা, দোয়া ও গাছ বিতরণ বিতরণ কর্মসূচী অনুষ্ঠিত হয়। সভায় সভাপতিত্ব করেন সংস্থার নির্বাহী পরিচালক ও বিএনএফ এর সাবেক নির্বাহী কমিটির সদস্য শাহানাজ পারভীন। আলোচনা সভায় বিএনএফ রাজশাহী জেলার সহযোগী সংস্থা নিকুঞ্জ বস্তি উন্নয়ন সংস্থা, প্রতিবন্ধি স্বেচ্ছাসেবী সোসাইটিসহ দিনের আলো, রুডো, আশার প্রদীপ, পল্লী স্বপ্ন এর প্রতিনিধি উপস্থিত ছিলেন। শোক দিবসের আলোচনা ও দোয়া অনুষ্ঠানে সংস্থার আইন সম্পাদক ও রাজশাহী জেলা মানবাধিকার কমিশনের সাধারণ সম্পাদক অ্যাড. শাহীনুল হক মুন, সংস্থার কোষাদক্ষ শহিদুর রহমান, রানীবাজার মহল্লার দোয়া পরিচালনাকারী আখের হোসেইন সহ সংস্থার প্রাগ্রাম ম্যানেজার সালাউদ্দিন, প্রোগ্রাম অফিসার চম্পা খাতুন, ও সহ পিনাকল স্টাডি হোমের শিক্ষক চামেলি খাতুন, রিয়াজউদ্দিন, টুম্পা, চন্দনা রানী, আছিয়া সহ ৩০ জন উপস্থিত ছিলেন। অনুণ্ঠানে বিভিন্ন সহযোগি সংস্থার প্রতিনিধির হাতে লফস এর নির্বাহী পরিচলাক ফলজ, ঔষুধি গাছের চারা উপহার প্রদান করেন।
চাঁপাইনবাবগঞ্জ

চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধি : করোনা পরিস্থিতির কারণে সীমিত আকারে বিভিন্ন কর্মসূচীর মধ্যদিয়ে চাঁপাইনবাবগঞ্জে জাতীয় শোক পালিত হয়েছে। কর্মসূরি মধ্যে ছিল সূর্যোদয়ের সাথে সাথে সকল সরকারি-বেসরকারি ভবনে জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত ও কালো ব্যাজধারণ। শনিবার সকাল সোয়া ৭টায় জাতির পিতার প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে জেলা প্রশাসক এ জেড এম নুরুল হক ও পুলিশ প্রশাসনের পক্ষ থেকে এএইচএম আবদুর রকিব। পরে জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ, জেলা পরিষদ, চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌরসভা, স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর, সড়ক ও জনপথ বিভাগ, গণপূর্ত বিভাগ, জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তর, সিভিল সার্জন অফিস, বরেন্দ্র বহুমুখী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ, পানি উন্নয়ন বোর্ড, সমাজসেবা দপ্তর, জেলা কারাগার, সদর উপজেলা পরিষদ, ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স, চাঁপাইনবাবগঞ্জ ডাকঘর, জেলা বিএমএ, জাতীয় মহিলা সংস্থা, চাঁপাইনবাবগঞ্জ সরকারি মহিলা কলেজসহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও সামাজিক সংগঠন পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন। অপরদিকে, মসজিদভিত্তিক শিশু ও গণশিক্ষা কার্যক্রম প্রকল্পের আয়োজনে সকাল ৮ টায় বিভিন্ন শিক্ষাকেন্দ্রে দোয়া ও মিলাদ মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। দিবসটি উপলক্ষে যুব উন্নয়ন অধিদপ্তরে আলোচনা সভা ও যুব উদ্যোক্তাদের মাঝে প্রকল্প ঋণ বিতরণ করা হয়। এদিকে, সকাল সাড়ে ৭টায় জেলা আ’লীগের বিভিন্ন সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা কালো ব্যাজধারণ, জাতীয় পতাকা অর্ধনিমিত, কালো পতাকা উত্তোলন, দোয়া মাহ্ফিল অনুষ্ঠিত হয়। পরে, দলীয় কার্যালয় থেকে সকাল ৮টায় শোক র‌্যালি বের হয়ে জাতির পিতার প্রতিকৃতিতে পুস্পস্তবক অর্পন করেন জেলা আ’লীগের নেতৃবৃন্দসহ বিভিন্ন অঙ্গসংগঠনের নেতৃবৃন্দ। পরে, দলীয় কার্যালয়ে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা শাখার আয়োজনে দুস্থদের মাঝে চাল বিতরণ করেন জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক সাবেক এমপি মো. আব্দুল ওদুদ এবং শেষে দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। দুপুরে সকল মসজিদে মিলাদ মাহফিল এবং মন্দির, গীর্জা ও অন্যান্য ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানে বিশেষ প্রার্থনা করা হয়। এছাড়া, সোনামসজিদ স্থলবন্দরে কাস্টমস’র কর্মকর্তা-কর্মচারীরা কালো ব্যাজধারণ করেন। পরে আলোচনাসভা এবং বঙ্গবন্ধু ও তার পরিবারের শাহাদাতবরণকারীদের রুহের মাগফিরাত কামনায় দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়।
জেলা ও দায়রা জজ এবং চিফ জুডিসিয়াল আদালত : দিবসটি উপলক্ষে বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করেছে চাঁপাইনবাবগঞ্জ বিচার বিভাগ। জেলা বিচার বিভাগের আয়োজনে এ উপলক্ষে কোরআন খতম, আলোচনা সভা, দোয়া মাহফিল ও এতিমখানায় খাবার বিতরণ করা হয়েছে। শনিবার সকালে দিবসটি উপলক্ষে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে আলোচনা সভা জেলা ও দায়রা জজ মোহা. আদীব আলীর সভাপতিত্ব অনুষ্ঠিত হয়। পরে জেলা ও দায়রা জজ আদালত ভবনের সম্মেলন কক্ষে মিলাদ ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। এসময় উপস্থিত ছিলেন, চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট কুমার শিপন মোদক, অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ মো. রবিউল ইসলাম, সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মো. নাজমুল হোসেন, সহকারী জজ নিশিত রঞ্জন বিশ্বাস, জেলা ও দায়রা জজ আদালতের প্রশাসনিক কর্মকর্তা ভবসুন্দর পাল, সরকারি কৌশুলী অ্যাড. জব্দুল হক প্রমুখ। দোয়া পরিচালনা করেন সিনিয়র আইনজীবী অ্যাড. মো. আফসার আলী। দুপুরে জেলা শহরের পাঠানপাড়ার আদর্শ হাফেজিয়া কেরাতিয়া মাদরাসা ও এতিমখানার শিশুদের মাঝে খাবার বিতরণ করা হয়। ইসলামিক মিশন পলশা ঃ জাতির পিতার কর্মময় জীবন সম্পর্কে আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিলের আয়োজন করা হয়। এতে বক্তব্য রাখেন, প্রতিষ্ঠানটির সিনিয়র প্রোগ্রাম অফিসার এ জেড এম সিরাজুম মনির, পলশা আলিম মাদরাসার অধ্যক্ষ মাওলানা মোঃ একরামুল হক। পরে, ফ্রি চিকিৎসা সেবা প্রদানের আয়োজন করা হয়।
মোহনপুর প্রতিনিধি: মোহনপুরের কেশরহাট পৌরসভায় যথাযথ মর্যাদায় জাতীয় শোক দিবস পালিত হয়েছে।
শনিবার বেলা ১১টার দিকে পৌরসভা অডিটোরিয়ামে আয়োজিত সভায় স্বপরিবারে বঙ্গবন্ধু হত্যার বিষয়ে বিষদভাবে আলোচনা করেন মেয়র শহিদুজ্জামান শহিদ।
এসময় উপস্থিত ছিলেন, পৌর আওয়ামীলীগের সভাপতি হাজি শাহেদুজ্জামান মুক্তা, পৌরসভার প্যানেল মেয়র রুস্তম আলী প্রামাণিক, নারী কাউন্সিলর মমেনা আক্তার, জোসনা খাতুন, লাইসেন্স পরিদর্শক রোকমতজামান টিটুসহ সকল কর্মচারীবৃন্দ। শহীদদের বিদেহী আত্মার মাগফিরাত কামনায় দোয়া পরিচালনা করেন সহকারি কর নির্ধারক মোফাখ্খারুল ইসলাম।
অন্যদিকে, মোহনপুর উপজেলা প্রশাসন, কেশরহাট ডিগ্রিকলেজ, কেশরহাট মহিলা কলেজ, কেশরহাট টেকনিক্যাল অ্যান্ড বিজনেস ম্যানেজমেন্ট ইন্সটিটিউট, কেশরহাট উচ্চবিদ্যালয় এবং কেশরহাট সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়সহ সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এ উপলক্ষে আলোচনাসভা এবং দোয়া মাহফিলে অংশ নেয়।

শিবগঞ্জ

শিবগঞ্জ (চাঁপাইনবাবগঞ্জ) সংবাদদাতা : শিবগঞ্জের বিভিন্ন সরকারি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের ও অফিসের উদ্যোগে জাতীয় শোক দিবস পালিত হয়েছে। দিনটি উপলক্ষে শনিবার সকাল সাড়ে ৮টার দিকে উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসের সামনে অবস্থিত বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ, শেষে উপজেলা মিলানায়তনে শোকসভা, দোয়া মাহফিল ও অসহায় ক্যান্সার রোগীদের মাঝে আর্থিক সহায়তার চেক বিতরণ করা হয়েছে। উপজেলা নির্বাহী অফিসার সাবিক আলরাব্বীর সভাপতিত্বে শোকসভায় প্রধান অথিথি ছিলেন, স্থানীয় সংসদ সদস্য সামিল উদ্দিন আহমদ শিমুল। বিশেষ অতিথি ছিলেন, উপজেলা চেয়ারম্যান সৈয়দ নজরুল ইসলাম, শিবগঞ্জ পৌর মেয়র এ আর আজরী এম কারিবুল হক রাজিন, সাবেক উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার বজলুর রহমান সনু,, থানা আওয়ামীলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট আতাউর রহমান, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক তোহিদুল আলম টিয়া, ভাইস চেয়ারম্যান গোলাম কিবরিয়া সহ আওয়ামীলীগ ও এর অংগ সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।শেষে শিবগঞ্জ উপজেলা সমাজসেবা অফিসের উদ্যোগে ১০ জনকে ক্যান্সার রোগীকে ৫০ হাজার টাকা করে চেক দেয়া হয়। এছাড়া জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে কানসাট ইউনিয়নসহ উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়ন ও বিনোদপুর ডিগ্রি কলেজ সহ বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করা হয়। অন্যদিকে শনিবার দুপুরে উপজেলা আওয়ামীলীগের আয়োজনে ডাকবাংলো চত্বরে শোক সভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। থানা আওয়ামীলীগের সভাপতি আবু আহমেদ নজবুল কবির মুক্তার সভাপতিত্বে শোক সভায় প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন, শিবগঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যান সৈয়দ নজরুল ইসলাম, বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন বঙ্গবন্ধু পরিষদের সাধারণ সম্পাদক হাবিবুর রহমান চৌধুরী,আদিনা কলেজের সাবেক ভিপি ফাইজুদ্দিন আহমেদ, উপজেলা ছা ত্র লীগ সভাপতি রিজভী আলম রানা,সাধারণ সম্পাদক আশিফ আহসান, থানা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক তোসিকুল ইসলাম টিসুসহ থানা ও ইউনিয়ন পর্যায়ে আওয়ামীলী ওএর অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মী বৃন্দ। প্রতিটি শোকসভায় জাতির পিতার জীবনী নিয়ে বিস্তৃত আলোচনা করা হয়।
ভোলাহাটে জাতীয় শোক দিবস পালিত
ভোলাহাট প্রতিনিধি
ভোলাহাট উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে স্বাস্থ্যবিধি মেনে জাতীয় শোক দিবস পালিত হয়েছে। কর্মসূচির অংশ হিসেবে সূর্যোদয়ের সঙ্গে সঙ্গে উপজেলা প্রশাসনের হলরুম ভবনের জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত করে উত্তোলন করা হয়।
সকাল সোয়া ৯ টায় উপজেলা নির্বাহী অফিসার রাজিবুল আলমের নেতৃত্বে উপজেলা প্রশাসনের কর্মকর্তা ও কর্মচারিগণ ও আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা কালো ব্যাচ ধারন করেন। এরপর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের বিদেহী আত্মার প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে তাঁর প্রতিকৃতিতে পুষ্পমাল্য অর্পণ করেন।
ক্রমান্বয়ে পুষ্পমাল্য অর্পণ করেন, উপজেলা প্রশাসন, উপজেলা আ’লীগ নেতৃবৃন্দ, যুবলীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ, ছাত্রলীগ। এছাড়া, পল্লী বিদ্যুৎ, বিএমডিএসহ উপজেলার বিভিন্ন দফতর ও সংগঠন পুষ্পমাল্য অর্পণ করে শ্রদ্ধা জানান।
পরে সকাল সাড়ে ১০ টায় উপজেলা হলরুমে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রাজিবুল আলমের সভাপতিত্বে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। এ সময় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন উপজেলা চেয়ারম্যান প্রভাষক রাব্বুল হোসেন ও উপজেলা আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক ইয়াসিন আলী শাহ। বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন, জেলা আ’লীগ সহ সভাপতি আ. খালেক, ভোলাহাট থানার অফিসার ইনচার্জ মাহবুবুর রহমান, ভাইস চেয়ারম্যান গরিবুল্লাহ দবির। অন্যান্যের মধ্যে জামবাড়িয়া ইউপি চেয়ারম্যান মুসফিকুল ইসলাম তারা, মুক্তিযোদ্ধা আফসার আলী প্রমুখ।
অন্যদিকে এ দিবসটি উপলক্ষে ভোলাহাট মোহবুল্লাহ কলেজ ছাত্রলীগ শনিবার কলেজ চত্বরে বৃক্ষরোপন কর্মসূচি পালন করেছে। এ সময় ৫০টি বনজ, ওষুধি ও ফলজ গাছ রোপন করা হয়। বৃক্ষরোপন অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, কলেজ অধ্যক্ষ রহমত আলী, সাবেক উপজেলা ছাত্রলীগ সভাপতি মাহালত আশরাফুল ইসলাম, সাবেক সাধারণ সম্পাদক তৌহিদুল ইসলাম ডালিম, কলেজ ছাত্রলীগ সভাপতি মোরশালীনসহ অন্যরা।
এদিকে ভোলাহাট উপজেলা আ’লীগ ও অঙ্গ সহযোগি সংগঠনের আয়োজনে জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে উপজেলার মেডিকেল মোড় দলীয় কার্যালয়ে সকাল ৭টার দিকে জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত করে উত্তোলন করা হয়। পরে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুস্পমাল্য অর্পণ করা হয়। এরপর উপজেলা আ’লীগ সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা ডা. আশরাফুল হক চুনুর সভাপতিত্বে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।
এতে বক্তব দেন, জেলা আ’লীগ সাবেক সহ সভাপতি আবদুল খালেক, উপজেলা আ’লীগ সাধারণ সম্পাদক ইয়াসিন আলী শাহ, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক পিয়ার জাহান, উপজেলা যুবলীগ সভাপতি রেজাউল করিম বাবলু, ভোলাহাট ইউনিয়ন আ’লীগ সাধারণ সম্পাদক মোনায়েম হোসেন নিখিল, দলদলী ইউপি আলীগ সভাপতি মোস্তাফিজুর রহমান বাবলু ও আলীগ নেতা নাজমুল হোসেন বাবুসহ অন্যরা।
এছাড়াও দিবসটি উপলক্ষে বৃক্ষরোপন ও বিতরণ করেছে ভোলাহাট উপজেলা ছাত্রলীগ। শনিবার (১৫ আগস্ট) বিকেল ৫ টার সময় উপজেলা কলেজ মোড়ে এক হাজার ফলজ, বনজ ও ওষুধি গাছ রোপন ও বিতরণ করে উপজেলা ছাত্রলীগ। জেলা ছাত্রলীগের সদস্য হুজ্জাতুল ইসলাম ডনের সার্বিক ব্যবস্থাপনায় এসময় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, ভোলাহাট উপজেলা চেয়ারম্যান প্রভাষক রাব্বুল হোসেন। বিশেষ অতিথি ছিলেন, ভাইস চেয়ারম্যান গরিবুল্লাহ দবির। অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা যুবলীগের সভাপতি রেজাউল করিম বাবলু, যুবলীগ সহ সভাপতি মুস্তাফিজুর রহামন ফিজুর, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মৌওদুদুর রহামান শাহ রনি, যুব মহিলা লীগের সাধারণ সম্পদক শাহজাদি বিশ^াস, কৃষকলীগ সাবেক সভাপতি নুরুল হোদা, ভোলাহাট উপজেলা ছাত্রলীগ শাখার সাবেক সাধারণ সম্পাদক তৌহিদুল ইসলাম ডালিম, যুবলীগ নেতা সুলতান আলীসহ অন্যরা।
নওগাঁ

নওগাঁ প্রতিনিধি: জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে (অস্থায়ী বেদীতে) পুষ্পস্তবক অর্পন, শোক র‌্যালি, আলোচনা সভার মধ্যে দিয়ে নওগাঁয় বঙ্গবন্ধুর ৪৫ শাহাদত বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস পালিত হয়েছে। শনিবার সকালে জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ প্রাঙ্গন থেকে একটি মৌন মিছিল বের হয়ে তা শহরের প্রধান প্রধান স্থান প্রদক্ষিন করে মুক্তির মোড়ে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে গিয়ে শেষ হয়। জেলা মুক্তিযোদ্ধা ইউনিটের সাবেক কমান্ডার হারুন-অল-রশিদ মৌন মিছিলের নেতৃত্ব দেন। এছাড়াও মিছিলে অংশগ্রহণ করেন সাবেক সহকারি কমান্ডার আবুল কালাম আজাদ, সদর উপজেলা কমান্ডার গোলাম ছামদানীসহ প্রত্যক ইউনিয়ন থেকে আগম মুক্তিযোদ্ধারা অংশগ্রহণ করেন। এর আগে জেলা মুক্তিযোদ্ধা কার্যালয়ে জাতীয়, দলীয় ও কালো পতাকা অর্ধনমিত উত্তোলন, আলোচনা সভা ও দোয়া অনুষ্ঠিত হয়।
নিয়ামতপুর
নিয়ামতপুর (নওগাঁ) সংবাদদাতা : জাতীয় শোক দিবস যথাযোগ্য মর্যাদায় পালিত হয়েছে। শনিবার সকাল ১০টায় উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে সূর্যোদয়ের সাথে সাথে আনুষ্ঠানিকভাবে জাতীয় পতাকা অর্ধনমিতভাবে উত্তোলনের মধ্য দিয়ে দিবসটির কার্যক্রম শুরু করা হয়।
জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে উপজেলা প্রশাসন ও আওয়ামীলীগের পক্ষ থেকে বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করা হয়।
কর্মসূচির মধ্যে সকাল ১০টায় উপজেলা প্রকৌশলী অধিপ্তরের উপ-সহকারী প্রকৌশলী বজলুর রশীদের পরিচালনায় উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্সে নির্মিত বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে খাদ্যমন্ত্রী, নওগাঁ জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা সাধন চন্দ্র মজুমদার এমপির পক্ষ থেকে পুম্পস্তাবক অর্পন এরপর পর্যায়ক্রমে উপজেলা পরিষদ, উপজেলা প্রশাসন, অফিসার ইন চার্জ, পরিবার পরিকল্পনা কার্যালয়সহ বিভিন্ন সরকার বেসরকারি প্রতিষ্ঠান বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুস্পস্তাবক অর্পন করা হয়।
বেলা ১১টায় উপজেলা পরিষদ মিলানায়তনে ভার্চুয়াল জুম অনলাইন আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়। উপজেলা নির্বাহী অফিসার জয়া মারীয়া পেরেরার সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসাবে ভিডিও কমফারেন্সের মাধ্যমে বক্তব্য রাখেন গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় খাদ্য মন্ত্রী, নওগাঁ জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা সাধন চন্দ্র মজুমদার এমপি।
বিশেষ অতিথি ছিলেন উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ফরিদ আহম্মেদ, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান আলহাজ্ব আইয়ুব হোসাইন মন্ডল, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান নাদিরা বেগম, সহকারী কমিশনার (ভূমি) নিলুফা সরকার, অফিসার ইন চার্জ হুমায়ন কবির।
আলোচনা সভায় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি বাবু ঈশ্বর চন্দ্র বর্মন, উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা অফিসার সেলিম উদ্দিন, উপজেলঅ কৃষি অফিসার আমীর আব্দুল্লাহ মোঃ ওয়াহেদুজ্জামান, সহকারী প্রকৌশলী (বিএমডিএ) মতিউর রহমান, উপজেলা সমাজসেবা অফিসার আরিফুজ্জামান, উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক আমিনুল কবিব, উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন অফিসার তরিকুল ইসলাম, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার শাহ আলম শেখ, উপজেলা রিসোর্স সেন্টারের ইন্সট্র্ক্টার তমা চৌধুরী, নিয়ামতপুর সদর ইউপি চেয়ারম্যান ও অত্র ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি আলহাজ্ব বজলুর রহমান নইম, সাধারণ সম্পাদক জাহিদ হাসান বিপ্লব, উপজেলা প্রেস ক্লাবের সভাপতি তোফাজ্জল হোসেন, সাধারণ সম্পাদক জনি আহমেদ, ডিষ্ট্রিক স্পেশাল ব্রাঞ্চ (ডিএসবি) সোহেল রানা, সিদ্দিকুর রহমান, প্রমুখ।
অপরদিকে উপজেলা আওয়ামীলীগের উদ্যোগে সকাল ৯টায় দলীয় কার্যালয়ে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে উপজেলা আওয়ামীলীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ, মহিলা আওয়ামীলীগ, শ্রমিকলীগ, কৃষকলীগের পক্ষ থেকে পুস্পস্তাবক অর্পন করা হয়। এরপর নিয়ামতপুর সদর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক জাহিদ হাসান বিপ্লবের নেতৃত্বে এক বিশাল শোক র‌্যালি দলীয় কার্যালয় থেকে উপজেল বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিন করে পুনরায় দলীয় কার্যালয়ে এসে শেষ হয়।
জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে অন্যান্য কর্মসূচির মধ্যে ছিল কোরআন তেলওয়াত, চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা, রচনা প্রতিযোগিতা, কবিতা আবৃতি বঙ্গবন্ধুর উপর নির্মিত প্রামান্য চিত্র প্রদর্শন, উপস্থিত বক্তৃতা, মসজিদ মন্দিরে বিশেষ মোনাজাত, প্রার্থনা, মিলাদ মাহফিল ও বৃক্ষপোন কর্মসচী।
এছ্ড়াা উপজেলা প্রশাসন ছাড়াও উপজেলার ৮টি ইউনিয়ন পরিষদ, ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ ও নিয়ামতপুর সরকারী কলেজ, চন্দননগর কলেজ, পিরপুর লক্ষ্মিতাড়া ভাদরন্ড উচ্চ বিদ্যালয়, গুজিশহর উচ্চ বিদ্যালয়সহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান আলাদা আলাদাভাবে যথাযোগ্য মর্যাদায় জাতীয় শোক দিবস পালন করে। সর্বশেষে বিভিন্ন প্রতিযোগিতার বিজয়ীদের মাঝে প্রধান অতিথি ও বিশেষ অতিথিবৃন্দ পুরস্কার তুলে দেন।
বদলগাছী
বদলগাছী(নওগাঁ) প্রতিনিধি : নওগাঁর বদলগাছীতে জাতীয় শোক দিবস পালিত হয়েছে।
দিবসটি উপলক্ষে শুক্রবার সূর্যোদয়ের সাথে সাথে সকল সরকারি, আধাসরকারি, স্বায়ত্বশাসিত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও বেসরকারি ভবন সমূহে জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত রেখে সকাল ৯ টায় স্মৃতিসৌধ প্রাঙ্গনে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে পুস্পস্তবক অর্পণ করা হয়। পুস্পস্তবক অর্পণ শেষে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মুহা. আবু তাহির এর সভাপতিত্বে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।
আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন স্থানীয় সংসদ সদস্য মো. ছলিম উদ্দীন তরফদার সেলিম।
বিশেষ অতিথির রাখেন উপজেলা চেয়ারম্যান মো. সামছুল আলম খাঁন, উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আ.জ.ম. শফি মাহমুদ, সাধারণ সম্পাদক আবু খালেদ বুলু, সহকারী কমিশনার(ভূমি) মো. নাহারুল ইসলাম, ভাইস চেয়ারম্যান ইমামুল আল হাসান তিতু, অফিসার ইনর্চাজ চৌধুরী জোবায়ের আহাম্মদ, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার জবির উদ্দীন এফ.এফ, সদর ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুস সালাম প্রমূখ।
পরে উপজেলা পরিষদ সম্মেলন কক্ষে ছাত্র-ছাত্রীদের নিয়ে চিত্রাংকন ও রচনা প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়।
রাণীনগর

নওগাঁ প্রতিনিধি : রাণীনগরে শোক দিবস পালিত হয়েছে। দিবসটি পালন উপলক্ষে আলোচনা সভা ও পুরস্কার বিতরণ এবং মিলাদ মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। শনিবার রাণীনগর উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে উপজেলা পরিষদ হলরুমে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। নির্বাহী অফিসার আল মামুনের সভাপতিত্বে শোক দিবসের আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন, প্রয়াত সংসদ সদস্য মো. ইসরাফিল আলমের সহধর্মিনী সুলতানা পারভীন বিউটি, ভাইস চেয়ারম্যান জারজিস হাসান মিঠু, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান ফরিদা বেগম, থানা আওয়ামীলীগের, সাধারণ সম্পাদক মফিজ উদ্দীন, ভারপ্রাপ্ত মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার অ্যাডভোকেট ইসমাইল হোসেন, কৃষি কর্মকর্তা শহিদুল ইসলাম, থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা জহুরুল হক প্রমূখ। এছাড়া আওয়ামীলীগ ও সহযোগী সংগঠন, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ড কাউন্সিল, স্কুল-কলেজসহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, রাণীনগর থানা এবং সরকারি, আধা সরকারি প্রতিষ্ঠান নানা কর্মসূচির মধ্য দিয়ে দিবসটি যথাযথভাবে পালন করে।
পত্নীতলা
আলহাজ্ব মনিবুর রহমান চৌধুরী (গোল্ডেন), পত্নীতলা (নওগাঁ) প্রতিনিধি : পত্নীতলায় জাতীয় শোক দিবস যথাযথ মর্যাদায় পালন করা হয়েছে।
এ উপলক্ষে শনিবার দিনের শুরুতে সকাল ৯ টায় উপজেলা সদর নজিপুর তিন মাথা মোড়ে অবস্থিত বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে উক্ত এলাকাকে বঙ্গবন্ধু চত্বর হিসেবে উদ্বোধন করেন সভার প্রধান অতিথি নওগাঁ-২ আসনের সংসদ সদস্য বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রনালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি আলহাজ্ব শহীদুজ্জামান সরকার এমপি। প্রধান অতিথির বঙ্গবন্ধু চত্বর উদ্বোধন শেষে সেখানে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন উপজেলা প্রশাসন সহ অন্যান্য সরকারী, বেসরকারী প্রতিষ্ঠান, আওয়ামীলীগ ও অন্যান্য অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীবৃন্দ।
পরে উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ লিটন সরকারের সভাপতিত্বে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন নওগাঁ-২ আসনের সংসদ সদস্য বিদ্যুৎ, জ্বালানী ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রনালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি আলহাজ্ব শহীদুজ্জামান সরকার এমপি।
সভায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব আব্দুল গাফফার, সহকারী কমিশনার ভূমি পত্নীতলার সানজিদা সুলতানা, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুল আহাদ রাহাদ, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান খাদিজাতুল কোবরা মুক্তা, পত্নীতলা থানার অফিসার ইনচার্জ পরিমল কুমার চক্রবর্তী, নওগাঁ জেলা আওয়ামীলীগের বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক সাবেক পৌর মেয়র বীরমুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব আমিনুল হক, উপজেলা আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আলহাজ্ব আব্দুল খালেক চৌধুরী। এসময় সকল দপ্তরের অন্যান্য কর্মকর্তা, কর্মচারী, মুক্তিযোদ্ধাগন, জনপ্রতিনিধি, গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ ও সাংবাদিকবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।
আলোচনা সভা শেষে জাতীয় শোক দিবসের সাথে সঙ্গতিপূর্ন কুইজ, রচনা, চিত্রাঙ্কন, নৃত্য প্রতিযোগীতায় অংশগ্রহনকারী বিজয়ীদের মাঝে পুরষ্কার বিতরন, জাতীয় মহিলা সংস্থা ও উপজেলা সমাজ সেবা অফিসের যুব ঋণের চেক বিতরন, নন এমপিও ভুক্ত শিক্ষকদের মাঝে চেক বিকরন, দলিত হরিজন সম্প্রদায়ের শিক্ষার্থীদের মাঝে উপবৃত্তির চেক বিতরন, প্রতিবন্ধিদের মাঝে হুইল চেয়ার বিতরন, পল্লী উন্নয়ন অফিস এবং যুব উন্নয়ন অফিসের চারা বিতরন করেন অতিথিবৃন্দ।
মান্দা
মান্দা (নওগাঁ) প্রতিনিধি : মান্দায় জাতীয় পতাকা উত্তোলন, প্রতিকৃতিতে মাল্যদান, আলোচনা সভা, রচনা ও চিত্রাঙ্কণ প্রতিযোগিতার মধ্যদিয়ে জাতীয় শোক দিবস পালিত হয়েছে। এ উপলক্ষে উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে সূর্যোদয়ের সঙ্গে সঙ্গে জাতীয় পতাকা উত্তোলন ও শহিদ মিনার বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে মাল্যদান করা হয়।
বেলা ১১ টায় পরিষদ মিলনায়তনে ইউএনও আবদুল হালিমের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় টেলিকনফারেন্সের মাধ্যমে বক্তব্য দেন, সাবেক বস্ত্র ও পাটমন্ত্রী মুহা. ইমাজ উদ্দিন প্রামানিক এমপি। সভায় অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন উপজেলা চেয়ারম্যান (ভারপ্রাপ্ত) মাহবুবা সিদ্দিকা রুমা, সহকারি কমিশনার (ভূমি) মুহাম্মদ ইমরানুল হক, মান্দা থানার পরিদর্শক (তদন্ত) তারেকুর রহমান সরকার, উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা রাকিবুল হাসান, উপজেলা সিনিয়র মৎস্য কর্মকর্তা গোলাম মেহেদী হাসান, উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা বিজয় কুমার রায়, উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা ফজলুর রহমান, উপজেলা সাবেক মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার আফছার আলী মন্ডল, মুক্তিযোদ্ধা অ্যাড. আব্দুল মান্নান, মান্দা প্রেসক্লাবের সভাপতি নজরুল ইসলাম, উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তা হাফিজুর রহমান প্রমুখ।
শেষে রচনা ও চিত্রাঙ্কণ প্রতিযোগিতায় বিজয়ী শিক্ষার্থীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করা হয়। একই অনুষ্ঠানে প্রশিক্ষত যুবকদের মাঝে ঋণের চেক ও গাছের চারা বিতরণ করা হয়েছে।
অপরদিকে উপজেলা আওয়ামী লীগের উদ্যোগে জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলন. বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে মাল্যদান ও আলোচনা সভার মধ্যদিয়ে দিনটি পালন করা হয়। উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মোল্লা এমদাদুল হকের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় বক্তব্য দেন, জেলা আওয়ামী লীগের সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক ব্রহানী সুলতান গামা, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক (ভারপ্রাপ্ত) অধ্যক্ষ জহুরুল ইসলাম, সহসভাপতি নাজিম উদ্দিন মন্ডল, বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক মকবুল হোসেন, মহিলা বিষয়ক সম্পাদক জেসমিন আরা, আইন বিষয়ক সম্পাদক মির্জা মাহবুব বাচ্চু, মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সন্ধ্যা রানী, উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য আবুল কালাম আজাদ, উপজেলা যুবলীগের সাবেক সভাপতি অ্যাড. নাহিদ মোর্শেদ বাবু, উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক ও ভাইস চেয়ারম্যান গৌতম কুমার মহন্ত, যুবমহিলা লীগের সভাপতি ও উপজেলা চেয়ারম্যান (ভারপ্রাপ্ত) মাহবুবা সিদ্দিকা রুমা, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মাহমুদুল হক, উপজেলা ছাত্রলীগের আহবায়ক আল মাহমুদ বুলেট প্রমুখ।
এছাড়া মান্দা মমিন শাহানা সরকারি কলেজের হলরুমে অধ্যক্ষ বেদারুল ইসলামের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় বক্তব্য দেন সহযোগী অধ্যাপক হারুন অর রশিদ আল মাহমুদ, বজলুর রশিদ, আবদুস সামাদ, প্রভাষক মফিজ উদ্দিন শাহ, শিক্ষার্থী নাজমুল ইসলাম, মাহফুজুর রহমান, শান্তা মোল্লা, শাহজামাল হক শিমুল প্রমুখ। অন্যদিকে গোটগাড়ী শহীদ মামুন সরকারি হাইস্কুল ও কলেজ, মান্দা থানা আদর্শ বালিকা বিদ্যালয় ও কলেজ, রেবা আখতার আলিম মাদরাসাসহ উপজেলার বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান দিবসটি পালন করা হয়েছে।
মহাদেবপুর
মহাদেবপুর (নওগাঁ)প্রতিনিধি : মহাদেবপুরে শনিবার (১৫ আগস্ট) উপজেলা প্রশাসন ও উপজেলা আওয়ামী লীগের উদ্যোগে পৃথক পৃথকভাবে জাতীয় শোক দিবস পালিত হয়েছে।
জাতীয় পতাকা উত্তোলন, জাতির পিতার প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা নিবেদন ও দোয়া মাহফিলের মধ্যদিয়ে দিনের কর্মসূচির সূচনা হয়। উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. মিজানুর রহমানের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন উপজেলা আ’লীগের সভাপতি সংসদ সদস্য মো. ছলিম উদ্দীন তরফদার সেলিম।
বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন, উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও উপজেলা আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক আহসান হাবিব ভোদন ও মহাদেবপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. নজরুল ইসলাম জুয়েল প্রমুখ।
উপজেলা কৃষি অফিসার অরুন চন্দ্র রায় ও উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মো. রাজু আহম্মেদের সঞ্চালনায় বেকারত্ব দূরিকরণ ও আত্মকর্মসংস্থানের লক্ষ্যে ৯ জনকে ৬ লাখ টাকার যুব ঋণের চেক ও প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৫ জন শিক্ষার্থীকে হুইল চেয়ার প্রপ্রদান করা হয়।
অনুষ্ঠান শেষে প্রধান অতিথি উপজেলা পরিষদ চত্বর ও এনায়েতপুর ইউপির আবাসনে বৃক্ষ রোপন করেন। এছাড়াও সরকারি ও বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানসহ বিভিন্ন সংগঠন নানা কর্মসূচির মধ্যদিয়ে জাতীয় শোক দিবস পালন করে।
চারঘাটে
চারঘাট (রাজশাহী) প্রতিনিধি : জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও সরকারি অফিসসমূহে জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত রাখা হয় ও শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে পু®পস্তবক অর্পণ করা হয়।
শনিবার সকালে উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে পরিষদের হলরুমে আলোচনা সভা ও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠিত হয়। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সৈয়দা সামিরার সভাপতিত্বে সভায় বক্তব্য রাখেন, উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আনোয়ার হোসেন, উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা আশিকুর রহমান, সহকারী কমিশনার নিয়তি রানী কৈরি, পৌর মেয়র জাকিরুল ইসলাম বিকুল, চারঘাট মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ সমিত কুমার কুন্ডু, চারঘাট প্রেসক্লাবের সভাপতি এস এম মোজাম্মেল হক, নাটোর পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-২ ডিজিএম মুক্তার হোসেন, পৌর আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক একরামূল হক প্রমূখ। আলোচনা শেষে বিভিন্ন প্রতিযোগিতায় অংশ গ্রহণকারীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করা হয় এবং পরিষদ চত্বরে বঙ্গবন্ধুর শাহাদত বাষির্কী উপলক্ষে বৃক্ষরোপন করা হয়।
তানোর
তানোর প্রতিনিধি : তানোর উপজেলা প্রশাসনের, তানোর থানা আওয়ামী লীগ, তানোর পৌর ও মুণ্ডুমালা পৌর সভা আওয়ামী লীগ উদ্যোগে বিভিন্ন কর্মসুচীর মধ্যে দিয়ে জাতীয় শোক দিবস পালিত হয়েছে। শনিবার দিবসটি উপলক্ষে বিভিন্ন কর্মসূচি পালিত হয়। উপলক্ষে সকালে উপজেলা শহিদ মিনারে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পমাল্য অর্পন করাসহ সকল শহিদের স্মরণে এক মিনিট নিরবতা পালন করা হয়।
পরে তানোর উপজেলা পরিষদ চত্বরসহ উপজেলার বিভিন্ন স্থানে ভোর থেকে স্বাধীনতার মহান স্থপতি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জীবন ও মহান কীর্তি সর্ম্পকে আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়।
সকালে উপজেলা প্রসাশনের আয়োজনে উপজেলা পরিষদ চত্বর শহিদ মিনারে এক আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। উক্ত অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন তানোর উপজেলা নির্বাহী অফিসার সুশান্ত কুমার মাহাতো। প্রধান অতিথি ছিলেন (তানোরÑগোদাগাড়ী) আসনের সাংসাদ আলহাজ ওমর ফারুক চৌধুরী। বিশেষ অতিথি ছিলেন তানোর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও থানা যুবলীগের সভাপতি লুৎফর হায়দার রশিদ ময়না।
আরো উপস্থিত ছিলেন, তানোর উপজেলা পরিষদ ভাইস চেয়ারম্যান আবু বাক্কার, তানোর উপজেলা নারী ভাইস চেয়ারম্যান সোনিয়া সরদার, তানোর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) রাকিবুল হাসান, তানোর উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার আমিরুল ইসলাম, উপজেলা প্রকৌশলী আব্দুল্লাহ আল মামুন, উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন অফিসার তারিকুজ্জামান, তানোর উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষক সমিতির সভাপতি জিল্লুর রহমান, তানোর উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক আসলাম উদ্দিন, তানোর মহিলা ডিগ্রী কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ অনুকুল কুমার ঘোষ, তানোর পৌরসভা বিএম কলেজের অধ্যক্ষ ইলিয়াস আলী মৃধা,তানোর পৌরসভা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক রবিউল ইসলাম প্রমুখ। পরে বেলা ১১টার দিকে প্রধান অতিথি থানার থানা আওয়ামী লীগ ও অঙ্গসংগঠনের আয়োজনে তানোর থানা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি খাদেমুন নবী বাবু চৌধুরী সভাপুতিত্বে তানোর শেখ রাসেল ফুটবল মাঠে এক জাতীয় শোক দিবসের অনুষ্ঠানে মিলিত হয়।
এছাড়া দুপুরে তানোর পৌর আওয়ামী লীগ ও মুণ্ডুমালা পৌর আওয়ামী লীগের শোক দিবসের আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়েছে।
বাঘা
বাঘা (রাজশাহী) প্রতিনিধি : বঙ্গবন্ধুর জন্ম না হলে বাংলাদেশের উদ্ভদ্বয় হতো না। তিনি চেয়েছিলেন এই দেশকে সোনার বাংলা হিসেবে প্রতিষ্ঠা করতে। যার রূপদান দিতে চলেছে তাঁর সুযোগ্য কন্যা ও বর্তমান সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা। রাজশাহীর বাঘায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৫ তম শাহাদত বার্ষিকীর আলোচনা সভায় বক্তারা এ কথা বলেন। দিবসটি উপলক্ষে শোক র‌্যালি, আলোচনা সভা ও দোয়া মাহ্ফিল এবং পুরুস্কার বিতরনী অনুষ্ঠিত হয়েছে। উপজেলা প্রশাসনসহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক-শিক্ষার্থী ও দলীয় ব্যানারে এই কর্মসূচি পালন করা হয়।
শনিবার (১৫ আগস্ট) সকাল ৯ টায় দিবসটি উপলক্ষে জাতীয় পতাকা অর্ধমিত রেখে কালো পতাকা উত্তোলন করা হয়। নেতা-কর্মীরা কালো ব্যাচ ধারণ করে একটি র‌্যালি বের করা হয়। র‌্যালিটি উপজেলার প্রধান প্রধান সড়ক পদক্ষিণ শেষে উপজেলা পরিষদ কেন্দ্রীয় চত্বর শহীদ মিনারে আলোচনা সভায় মিলিত হয়।
আয়োজিত সভায় সভাপতিত্ব করেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শাহিন রেজা। বিশেষ অতিথি ছিলেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও জেলা আ’লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক অ্যাভোকেট লায়েব উদ্দীন লাভলু। অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা সহকারি কমশিনার (ভূমি) কামাল হোসেন, অফিসার ইনচার্জ (ওসি) নজরুল ইসলাম উপজেলা আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক আশরাফুল ইসলাম বাবুলসহ আ’লীগ, যুবলীগ ও ছাত্রলীগের দলীয় নের্তৃবৃন্দ ও উপজেলা প্রশাসনের বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তাবৃন্দ।
এছাড়া দিবসটি পালন উপলক্ষে উপজেলা আওয়ামীলীগসহ অঙ্গ সংগঠক সারাদিন বিভিন্ন স্থানে মাইকে বঙ্গবন্ধুর ভাষণ প্রচার ও দোয়া মাহফিল এবং শোক র‌্যালি অনুষ্ঠিত হয়। বঙ্গবন্ধু ও তাঁর সহপরিবারের স্মরণে উপজেলা কেন্দ্রীয় জামে মসজিদে দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়।
উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে অনুষ্ঠিতব্য রচনা প্রতিযোগিতা, কবিতা আবৃতি ও চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করা হয়।
পুঠিয়া:
দিবসটি উপলক্ষে সকালে পুঠিয়া উপজেলা পরিষদ কার্যালয়ের পাশে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে উপজেলা যুবলীগ সভাপতি ও পৌর মেয়র রবিউল ইসলাম রবি পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন। এরপর দুপুর দুইটায় পৌরসভার কার্যালয়ে আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। দোয়া শেষে পুঠিয়া মিফতাহুস সুন্নাহ মাদরাসায় এতিম শিশু ও ছাত্রদের মাঝে খাবার বিতরণ করা হয়। পরে পৌরসভার বিভিন্ন বাজারে মানবভোজ বিতরণ করা হয়।
পৌর কার্যালয়ে সভায় সভাপতিত্ব করেন, উপজেলা যুবলীগ সভাপতি ও পৌর মেয়র রবিউল ইসলাম (রবি)।
সভা পরিচালনা করেন, পৌরসভার সহকারী প্রকৌশলী আবু সাইদ মো. শহিদুল আলম। এসময় উপস্থিত ছিলেন, পৌর কাউন্সিলর কামাল হোসেন, ইসমাইল হোসেন, শাহাজালাল, চঞ্চল কুমার চৌধুরী, হারুন আর-রশীদ, ছামাদ মন্ডল, মনিরুল ইসলাম, মখলেছুর রহমান, শাহাদৎ হোসেন। সংরক্ষিত আসনের কাউন্সিলর রবেদা বেগম, কোহিনুর পারভীন, নাসিমা বেগমসহ পৌরসভার কর্মকর্তা ও কর্মচারীবৃন্দ।
আক্কেলপুর
আক্কেলপুর প্রতিনিধি: শনিবার যথাযোগ্য মর্যাদায় শোক দিবস পালিত হয়েছে। দিবসটি উপলক্ষে আলোচনা সভা, ভার্চুয়াল পদ্ধতিতে সংগীত, চিত্রাঙ্কন, আবৃত্তি প্রতিযোগিতাসহ বিভিন্ন অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। এতে বঙ্গবন্ধুর আদর্শকে অনুসরণ করে দেশ গড়ার প্রত্যয় জানানো হয়।
জয়পুরহাটের আক্কেলপুর উপজেলা চত্বর থেকে সকাল সাতটায় একটি শোক র‌্যালি বের হয়ে প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কার্যালয় প্রাঙ্গণে গিয়ে শেষ হয়। সেখানে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন উপজেলা প্রশাসন, উপজেলা পরিষদ, উপজেলা আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠন, বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, সরকারি ও বেসকারি প্রতিষ্ঠান এবং বিভিন্ন শ্রেণিপেশার মানুষ।
উপজেলা প্রশাসনের আলোচনা সভা ও বৃক্ষ রোপন করা হয়। উক্ত আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন, উপজেলা নির্বাহী অফিসার এস, এম হাবিবুল হাসান। প্রধান অতিথি উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব আব্দুস সালাম আকন্দ বলেন, ‘বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন ছিল ক্ষুধা ও দারিদ্র্যমুক্ত বাংলাদেশ গড়া। আমরা যদি যার যার অবস্থান থেকে অবদান রেখে তাঁর স্বপ্নের বাংলাদেশ বিনির্মাণ করতে পারি, তবেই তাঁর প্রতি প্রকৃত শ্রদ্ধা নিবেদন করা হবে।’
আলোচনা সভায় আরো উপস্থিত ছিলেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মোকসেদ আলী মাস্টার, জেলা আওয়ামী লীগের কোষাদক্ষ ও জয়পুরহাট চেম্বার অব কমার্সএর (ভারপ্রাপ্ত) সভাপতি আহসান কবির এপ্লব, আক্কেলপুর মজিবুর রহমান সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ মোকসেদ আলী, আক্কেলপুর মহিলা ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ আতিকুর রহমান, উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ও পৌর মেয়র গোলাম মাহফুজ চৌধুরী অবসর, আক্কেলপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোঃ আব্দুল লতিফ খাঁন, উপজেলা সাবেক মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার নবীবুর রহমান, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান জিয়াউল হক জিয়া, উপজেলা আওয়ামীলীগের সিনিয়র সহসভাপতি ও বীর মুক্তিযোদ্ধা সাদেকুর রহমান সাদেক, বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ও বীর মুক্তি যোদ্ধা মুন্টু কবিরাজ, আক্কেলপুর উপজেলা প্রেসক্লাবের সিনিয়র সহ-সভাপতি মীর মো. আতিকুজ্জামান সহ অন্যান্য ব্যক্তিবর্গরা।
এ ছাড়া উপজেলা প্রশাসন, শিল্পকলা একাডেমি ও শিশু একাডেমীর পৃথকভাবে আয়োজিত ভার্চুয়াল পদ্ধতিতে রচনা, সংগীত, চিত্রাঙ্কন ও আবৃত্তি প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের মধ্যে পুরস্কার বিতরণ করা হয়।
গুরুদাসপুরে
গুরুদাসপুর (নাটোর) প্রতিনিধি. নাটোরের গুরুদাসপুর উপজেলা ও পৌর আওয়ামীলীগের আয়োজনে শ্রদ্ধা ও ভালবাসার মধ্য দিয়ে পালিত হয়েছে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৫তম শাহাদাৎ বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস।
উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ও পৌর মেয়র মো. শাহনেওয়াজ আলীর নেতৃত্বে শনিবার ১৫ আগস্ট সকাল ৮টায় চাঁচকৈড় দলীয় কার্যালয়ে জাতীয়, দলীয় ও কালো পতাকা অর্ধনমিত উত্তোলন এবং বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন নেতাকর্মিরা। এরপর এক মিনিট নিরবতা পালনসহ সকল শহিদের স্মরণে দোয়া ও মোনাজাত করা হয়।
এসময় সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান ও পৌর আওয়ামীলীগের সভাপতি আলহাজ মো. জাহিদুল ইসলাম, উপজেলা আওয়ামীলীগের সিনিয়র সহসভাপতি আলহাজ আব্দুল বারী, সাংগঠনিক সম্পাদক ইমরান শাহ, নাটোর জেলা পরিষদের সদস্য সরকার মেহেদী হাসান, আওয়ামীলীগ নেতা আনিসুর রহমান মোল্লা, ছাত্রলীগ নেতা শেখ সবুজ সহ দলীয় নেতাকর্মিরা উপস্থিত ছিলেন।
লালপুর
লালপুর(নাটোর) প্রতিনিধি: নাটোরের লালপুরে যথাযথ মর্যাদায় জাতির জনক শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৫তম শাহাদত বার্ষিকী পালিত হয়েছে। শনিবার উপজেলা আওয়ামীলীগ, অঙ্গসংগঠন, লালপুর সাংবাদিক ইউনিয়ন সহ সর্বস্তরে জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে ফুল দিয়ে জাতির জনক শেখ মুজিবুর রহমান সহ সকল শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন জানায়। এ উপলক্ষে উপজেলা চত্ত্বরে জাতির জনকের প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পন করেন নাটোর-১(লালপুর-বাগাতিপাড়া) আসনের সংসদ সদস্য শহিদুল ইসলাম বকুল। লালপুর উপজেলা সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি কিউটিভি বাংলার লালপুর প্রতিনিধি ইউসুফ হোসাইন, সাধারণ সম্পাদক ও দৈনিক ভোরের দর্পন প্রতিনিধি নাহিদ হোসেন, সহ-সভাপতি ও ডেল্টা টাইমস প্রতিনিধি জাহিদুল ইসলাম, দৈনিক নবচেতনা প্রতিনিধি আবুল কালাম আজাদ, কিউটিভি বাংলার ক্যামেরা পার্সন মুন্না আহম্মেদ খোকন প্রমুখ।
ঈশ^রদী
ঈশ্বরদী (পাবনা) প্রতিনিধি : ঈশ্বরদী-আটঘোরিয়া (পাবনা-৪) আসনের আসন্ন উপ-নির্বাচনকে সামনে রেখে ঈশ^রদীতে আওয়ামীলীগ দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশি একাধিক নেতা জাতীয় শোক দিবস পালন করার নামে করোনা মহামারির মধ্যেই ব্যাপক শোডাউন করেছেন। শনিবার জাতীয় শোক দিবস পালন উপলক্ষ্যে ঈশ্বরদী শহরে এই শোডাউন করা হয়।
সকালে উপজেলা আওয়ামীলীগ কার্যালয়ের সামনে জাতীয় পতাকা ও দলীয় পতাকা উত্তোলন, বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করার সময়ও স্বাস্থ্যবিধি মানা হয়নি। একাধিক মনোনয়ন প্রত্যাশিদের সঙ্গে শত শত নেতা-কর্মী এসময় স্বাস্থ্যবিধি না মেনে কর্মসূচীতে অংশ গ্রহণ করেন। সকাল সাড়ে ৯টার দিকে আওয়ামীলীগের মনোনয়ন প্রত্যাশি অ্যাডভোকেট রবিউল আলম বুদুর পক্ষে প্রায় ২ হাজার নেতা-কর্মীরা শোক র‌্যালিতে অংশ নেন। শহরের আলহাজ্ব মোড়ের বিজয় স্তম্ভের নিকট থেকে র‌্যালিটি শুরু হয়ে শহরের প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে দলীয় কার্যালয়ে স্থাপন করা বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পু®পস্তবক অর্পনের পর সেখানেই সমাবেশের আয়োজন করা হয়। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, র‌্যালি ও সমাবেশে অংশগ্রহণকারীদের মধ্যে দু-চারজন ছাড়া কারো মুখে মাস্ক ছিলনা, শারিরিক দুরত্ব বজায় রাখার কোন ব্যবস্থাও রাখা হয়নি। শোক দিবসের র‌্যালিতে মৌন মিছিল করার কথা থাকলেও র‌্যালিতে দলীয় ও নির্বাচনী শ্লোগানও দেন নেতা-কর্মীরা। তবে র‌্যালিতে উপস্থিত ছিলেননা এই আসনের আওয়ামীলীগ দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশি রবিউল আলম বুদু। এ বিষয়ে এই র‌্যালি ও সমােেশর আয়োজক শ্রমিকলীগ নেতা আশরাফুজ্জামান উজ্জল বলেন, দলীয় নেতা-কর্মীদের বলা স্বত্বেও শেষ পর্যন্ত স্বাস্থ্যবিধি পুরোপুরি মানা সম্ভব হয়নি তবে র‌্যালিতে কোন সমস্যা হয়নি।
এ বিষয়ে ঈশ্বরদী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) সেখ নাসীর উদ্দীন বলেন, পুলিশের অনুমতি না নিয়েই এই শোডাউন করা হয়েছে। র‌্যালিটি আমরাও দেখেছি যেখানে সরকারী নির্দেশনা মানা হয়নি, এক্ষেত্রে ভ্রাম্যমান আদলত আইনগত ব্যবস্থা নিতে পারতো কিন্তু তাও করা হয়নি।
ঈশ্বরদী উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট শিহাব রায়হান বলেন, আমরা স্বাস্থ্যবিধি মেনে জাতীয় শোক দিবস পালন করতে মাইকিং করেছি, অনধিক ২০ জনের বেশি মানুষ একসঙ্গে জমায়েত করা যাবেনা বলেও সরকারী নির্দেশনা জারি করেছি তার পরও প্রশাসনের অনুমতি ছাড়াই এই র‌্যালির আয়োজন করা হয়েছে। তবে এভাবে সরকারি নির্দেশনা অমান্য করে শোডাউন করাটা ঠিক হয়নি। এ ব্যাপারে উপজেলা প্রশাসন প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবে বলে জানান তিনি।
জাতীয় মহিলা সংস্থা:
জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের শাহাদৎ বার্ষিকী উপলক্ষে আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল করেছে, জাতীয় মহিলা সংস্থা রাজশাহী জেলা শাখা।
আলোচনা সভায় জাতীয় মহিলা সংস্থা রাজশাহীর চেয়ারম্যান মর্জিনা পারভিন এর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, রাজশাহী শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান প্রফেসর ড. মোকবুল হোসেন। প্রধান আলোচক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, রাজশাহী শিক্ষা বোর্ডের সাবেক চেয়ারম্যান প্রফেসর তানবিরুল আলম। সভায় বক্তব্যে রাখেন, রাজশাহী জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি নূর জাহান সরকার, সংস্থার নির্বাহী কর্মকর্তা সাদিকুল ইসলাম। অন্ষ্ঠুান সঞ্চলনা করেন, সাবিয়া সুলতানা (প্রশিক্ষক, কম্পিউটার)। অনুষ্ঠানে সংস্থার কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা উপস্থিত ছিলেন। সভায় দোয়া পরিচালনা করেন, মাওলানা আবদুল্লাহ। শেষে মাস্ক ও হ্যান্ড স্যানিটাইজার বিতরণ করা হয়।

বঙ্গবন্ধু পরিষদ:
জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের শাহাদৎ বার্ষিকী উপলক্ষে বঙ্গবন্ধু পরিষদের আয়োজনে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।
সভায় বঙ্গবন্ধু পরিষদের সভাপতি প্রফেসর নূরল আলম এর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, সিটি মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন। সভায় বক্তব্যে রাখেন, মুক্তিযোদ্ধা কবি রুহুল আমিন প্রামাণিক, প্রফেসর গোলাম সাব্বির সাত্তার তাপু, মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল মালেক চৌধুরি, মুক্তিযোদ্ধা নাইমুদ্দিন, অধ্যক্ষ শফিকুর রহমান বাদশা। স্বাগত বক্তব্যে রাখেন, কবি আরিফুল হক কুমার। সঞ্চলনা করেন, অধ্যক্ষ আলমগীর মালেক। সভার শুরুতে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করা হয়। এছাড়া শহিদদের স্মরণে ১ মিনিট নিরবতা পালন করা হয়।
গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়
জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের শাহাদৎ বার্ষিকী উপলক্ষে গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয় রাজশাহী সার্কেল দিনব্যাপী বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করেছে।
সকাল ৬ টায় জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত উত্তোলন, কোরআন তেলাওয়াত ও জাতীয় সংগীত পরিবেশন করা হয়। সকাল ৭ টায় জাতীয় গৃহায়ন কর্তৃপক্ষ রাজশাহী সার্কেলের তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী বৃক্ষরোপন করেন। সকাল ৮ টায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করা হয়। বেলা ১১ টায় সার্কেল অফিসে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন, রাজশাহী সার্কেলের তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী শামসুল আলম। প্রশাসনিক কর্মকর্তা ইউনুছ মিয়ার সঞ্চলনায় অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন, নির্বাহী প্রকৌশলী কাওসার মোর্শেদ, উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী কাজী নজরুল ইসলাম এবং নগর উন্নয়ন অধিদপ্তরের সিনিয়র প্ল্যানার ফখরুল ইসলাম, সহকারী প্ল্যানার আব্দুল ওয়াহাব। এ সময় কর্মকর্তা-কর্মচারীরা উপস্থিত ছিলেন। দুপুর ২ টায় জাতীয় গৃহায়ন কর্তৃপক্ষের হাউজিং এষ্টেটের কর্মকর্তা-কর্মচারী এবং মাদ্রাসার শিক্ষক ও ছাত্রদের নিয়ে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের পরিবারসহ সকল শহিদদের রুহের মাগফেরাত কামনা করে দোয়া করা হয়। দোয়া শেষে এতিমদের মাঝে খাদ্য বিতরণ করা হয়। বিকেল ৩ টায় গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয় প্রধান কার্যালয় ঢাকার সঙ্গে জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে জুম মিটিংয়ের মাধ্যমে কর্মকর্তা-কর্মচারীরা উপস্থিত ছিলেন।

নাটোর
স্বাধীনতার মহান স্থপতি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর শাহাদৎ বার্ষিকী উপলক্ষে নাটোর জেলা প্রশাসন ও জেলা আওয়ামী লীগের উদ্যেগে পৃথকভাবে বিভিন্ন কর্মসূচি পালিত হয়েছে।
এ উপলক্ষে সকালে নাটোর জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে এক আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়। সভায় সভাপতিত্ব করেন, নাটোরের জেলা প্রশাসক পিএএ শাহরিয়াজ। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, সংসদ সদস্য শফিকুল ইসলাম শিমুল। বিশেষ অতিথি ছিলেন, সংসদ সদস্য রত্না আহম্মেদ, নাটোরের পুলিশ সুপার লিটন কুমার সাহা, নাটোর জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট সাজেদুর রহমান, নাটোর পৌরসভার মেয়র উমা চৌধুরী। এছাড়ও সকল দফতরের সরকারি কর্মকর্তা, মুক্তিযোদ্ধা ও গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন। এর আগে জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে জেলা প্রশাসন নাটোরের পক্ষ থেকে জাতির পিতার প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করে সকল শহিদের প্রতি বিনম্র শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করেন, জেলা প্রশাসক। এ সময় জেলা প্রশাসনের কর্মকর্তা-কর্মচারী ও মুক্তিযোদ্ধারা উপস্থিত ছিলেন।
জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের শাহাদৎ বার্ষিকী উপলক্ষে নাটোর জেলা আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে নাটোর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সংসদ সদস্য শফিকুল ইসলাম শিমুলের নেতৃত্বে জাতীয়, দলীয় ও কালো পতাকা উত্তোলন, বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে নাটোর জেলা আওয়ামী লীগ ও অঙ্গ সহযোগী সংগঠনের পুষ্পস্তবক অর্পণ, ১ মিনিট নিরবতা পালন, সকল শহিদদের স্মরণে দোয়া ও মোনাজাত করা হয়।
এ সময় সংসদ সদস্য রত্না আহমেদসহ জেলা আওয়ামী লীগ ও এর অঙ্গ সহযোগী সংগঠনের নেতা কর্মীরা উপস্থিত ছিলেন। এরপর নাটোর জেলা আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে কোরআন খতম, দোয়া-মোনাজাত ও আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়। পরে দলীয় কার্যালয়ে উপস্থিত নেতা কর্মীসহ পৌরসভার ৯টি ওয়ার্ডে উন্নত মানের খাবার বিতরণ করা হয়। অপরদিকে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের শাহাদত বার্ষিকী উপলক্ষে সেক্টর কমান্ডার ফোরাম, মুক্তিযোদ্ধা’৭১ এর আয়োজনে নাটোর সদর উপজেলা পরিষদ চত্ত্বরে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। আলোচনা সভায় সাংসদ শফিকুল ইসলাম শিমুল, রত্না আহমেদ এমপিসহ সেক্টর ফোরাম ও আওয়ামী লীগ নেতারা উপস্থিত ছিলেন।
দুর্গাপুর
দুর্গাপুর উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে স্বাধীনতার মহান স্থপতি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের শাহাদত বার্ষিকী উপলক্ষে আলোচনা সভা, দোয়া মাহফিল ও বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করা হয়েছে।
সকালে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মহসীন মৃধার সভাপতিত্বে উপজেলা পরিষদ হলরুমে আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন রাজশাহী-৫ আসনের সংসদ সদস্য এবং স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য প্রফেসর ডা. মনসুর রহমান।
বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা নজরুল ইসলাম, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও পৌর মেয়র তোফাজ্জল হোসেন, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুল মোতালেব, নারী ভাইস চেয়ারম্যান বানেছা বেগম ও থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) খুরশীদা বানু কণা।
এছাড়াও সরকারি বিভিন্ন দপ্তরের অন্যান্য কর্মকর্তা-কর্মচারী, দলীয় নেতৃবৃন্দ ও সুশীল সমাজের প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।
উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের শাহাদাৎ বার্ষিকী উপলক্ষে আলোচনা সভা, দোয়া মাহফিল ও তার প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ ছাড়াও ভার্চুয়াল প্ল্যাটফর্ম ব্যবহার করে সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে জাতীয় শোক দিবসের সাথে সঙ্গতিপূর্ণ আলোচনা সভা, কবিতা আবৃত্তি, চিত্র প্রদর্শনী ও হামদ-নাত প্রতিযোগিতা আয়োজন করা হয়। এছাড়া সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করে স্বাস্থ্য বিধি অনুসরণ করে আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল করা হয়।
এছাড়াও জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও তার পরিবারের সকল সদস্যের আত্মার শান্তি কামনা করে মসজিদে দোয়া এবং মন্দির, গির্জা, প্যাগোডাসহ ও অন্যান্য উপাসনালয়ে বিশেষ প্রার্থনার আয়োজন করা হয়। হাসপাতাল ও এতিমখানায় উন্নতমানের খাবার পরিবেশন করা হয়। সকল সরকারি, স্বায়ত্তশাসিত ও বেসরকারি ভবনে জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত রাখা হয়।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ