রাজশাহী ও নাটোর সুগার মিলে আখ মাড়াই শুরু

আপডেট: ডিসেম্বর ২, ২০২২, ১১:৩৫ অপরাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক ও নাটোর প্রতিনিধি:


রাজশাহী ও নাটোর সুপার মিলে আখ মাড়াই শুরু হয়েছে। শুক্রবার (২ ডিসেম্বর) থেকে রাজশাহী চিনিকলে চলতি ৫০ হাজার লক্ষমাত্রা নিয়ে ২০২২-২৩ অর্থ বছরের আখ মাড়াই শুরু। শুক্রবার বিকেলে প্রধান অতিথি কৃষিবিদ দিলীপ কুমার সরকার রাজশাহী চিনি কল কেইন কেরিয়ারে আখ ফেলে মাড়াই কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন।

রাজশাহী চিনিকলের ব্যবস্থাপন পরিচল কৃষিবিদ আবুল বাশারের, সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন- রাজশাহী চিনি কল শ্রমিক কর্মচারী ইউনিয়নের সভাপতি আফাজ উদ্দিন , সাধারণ সম্পাদক মাসুদ রানা ও আখ চাষী কল্যান সমিতির সাধারণ সম্পাদক রফিকুল ইসলাম সহ শ্রমিক-কর্মচারী স্থানীয়রা ।

এদিকে নাটোর সুগার মিলস এর এবার ৮০ হাজার মেট্রিক টন আখ এবং ৪ হাজার ৯৬০ মেট্রিক টন চিনি উৎপাদেনর লক্ষ মাত্র নিয়ে ৩৯ তম (২০২২-২৩) মাড়াই মৌসুমের উদ্বোধন করা হয়েছ। চিনি উৎপাদনের হার ধরা হয়েছে ৬ দশমিক ২০ ভাগ।

শুক্রবার (০২ ডিসেম্বর) বিকালে মিলস চত্তরে এ উপলক্ষে দোয়া ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। এতে মিলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. ফরিদ হোসেন ভূইয়ার সভাপতিত্বে উদ্বোধনী সভায় বক্তব্য দেন, বাংলাদেশ চিনি ও খাদ্য শিল্পের কর্পোরেশনের পরিচালক অর্থ ও যুগ্ম সচিব খন্দকার আজিম আহমেদ। এসমসয় অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন, নাটোর সদর উপজেলা চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামী-লীগের সাধারণ সম্পাদক শরিফুল ইসলাম রমজান, পৌর মেয়র উমা চৌধুরী জলি, স্থানীয় সংসদ সদস্য শফিকুল ইসলাম শিমুল এমপির প্রতিনিধি আওয়ামী-লীগ দিলিপ কুমার দাস, নাটোর সুগার মিলস এর শ্রমিক কর্মচারী ইউনিয়নের সভাপতি ফিরোজ আলী, সাধারণ সম্পাদক মুনসুর রহমান, ও চিনিকলের বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তা, সিবিএ নেতৃবৃন্দ ও আখচাষিবৃন্দ । এর আগে সেখানে দোয়া শেষে মিলস এর ডোঙ্গায় আখ নিক্ষেপ করে উদ্বোধন করা হয়। পরে তিনজন শ্রেষ্ঠ আখ চাষীকে ক্রেস্ট উপহার দেয়া হয়।

নাটোর চিনিকল সূত্রে জানা গেছে, চলতি মৌসুমে ৫৪ কার্যদিবসে ৪ হাজার ৯০০ মেট্রিক টন চিনি উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে। গত ২০২১-২২ মৌসুমে আখ মাড়াইয়ের লক্ষ্যমাত্রা ছিল ৫০ হাজার মেট্রিক টন। সেখানে মাড়াই হয়েছিল ৫৫ হাজার ৯৫৯ মেট্রিক টন আখ। আর চিনি উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা ছিল ৩ হাজার মেট্রিক টন, সেখানে উৎপাদন হয়েছিল ৩ হাজার ৪ মেট্রিক টন। চিনি আহরণের হার ধরা হয়েছিল ৬ দশমিক ৫০ ভাগ, সেখানে অর্জিত হয়েছিল ৫ দশমিক ৩৬ ভাগ। যেখানে ৩ হাজার মেট্রিক টন চিনি উৎপাদন লক্ষ্যমাত্রার বিপরীতে অতিরিক্ত ৪ মেট্রিক টন চিনি উৎপাদন হয়েছে এবং আখ মাড়াইয়ের কর্মদিবস ছিল মাত্র ৪২ দিন।

নাটোর চিনিকলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোহাম্মদ ফরিদ হোসেন ভূঁইয়া জানান, গত মৌসুমের তুলনায় এবার ৩০ হাজার মেট্রিক টন বেশি আখ মাড়াই করা হবে। এছাড়া গত বছরের তুলনায় এবার ১ হাজার ৯৯৬ মেট্রিক বেশি চিনি উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে। এছর সরকার অন্যান্য ফসলের সাথে মিল রেখে প্রতিমন আখের মূল্য ১৪০ টাকা থেকে ১৮০ নির্ধারন করা হয়েছে। এছারাও আধুনিক ও যান্ত্রিক চাষের মাধ্যমে চাষিদের জমিতে আখের ফলন বৃদ্ধি করে মানসম্মত চিনি আহরণের হার বৃদ্ধি এবং রোডম্যাপ অনুযায়ী ২০২৭-২৮ আখ মাড়াই মৌসুমে ২লক্ষ১৬হাজার মেঃটন আখ মাড়াই করে ১৬ হাজার ৬৭০ মেট্রিক টন চিনি উৎপাদওেনর মাধ্যমে মিলকে লাভ জনক প্রতিষ্ঠানে রুপান্তর করা।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ