রাজশাহী রক্ষা সংগ্রাম পরিষদের মানববন্ধনে বক্তারা করোনা রোগিরা হাসপাতালে কাক্সিক্ষত সেবা পাচ্ছে না

আপডেট: জুলাই ১৮, ২০২০, ৫:৩০ অপরাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক :


রাজশাহী রক্ষা সংগ্রাম পরিষদের মানববন্ধনে বক্তারা বলেছেন, করোনা রোগিরা রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল থেকে কাক্সিক্ষত সেবা পাচ্ছে না। সাধারণ মানুষ তাদের নমুনা টেস্ট করাতে পারছেন না। করোনাকালের অজুহাতে চিকিৎসকরা সাধারণ রোগিদের চিকিৎসা দিচ্ছে না। ফলে রাজশাহীতে ক্রমাগতভাবে করোনা রোগির সংখ্যা বৃদ্ধি পাচ্ছে। গত ইদের আগ পর্যন্ত রাজশাহী নগর করোনামুক্ত থাকলেও এখন চিকিৎসকদের অবহেলার কারণে আশঙ্কাজনকহারে করোনা রোগি বাড়ছে। তারা কোনো চিকিৎসা পাচ্ছে না। এছাড়া রাজশাহীতে করোনা রোগিদের জন্য ডেডিকেটেট হাসপাতাল হিসেবে রাজশাহীর খ্রীষ্টান মিশন হাসপাতালে ব্যবস্থা করা হলেও সেখানকার ভূতুড়ে পরিবেশ ও চিকিৎসকদের অবহেলার কারণে রোগিরা সুস্থ হওয়ার পরিবর্তে মৃত্যুর দিখে ধাবিত হচ্ছে।
শনিবার (১৮ জুলাই) নগরীর সাহেববাজার জিরো পয়েন্টে অনুষ্ঠিত ঘন্টাব্যাপি মানববন্ধন- সমাবেশ রাজশাহী রক্ষা সংগ্রাম পরিষদের সাধারণ সম্পাদক জামাত খানের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শান্তিও দাবি করা হয়। অবিলম্বে তাদের গ্রেফতারের দাবিতে আল্টিমেটাম দেয়া হয়।
রাজশাহী রক্ষা সংগ্রাম পরিষদের সভাপতি মো. লিয়াকত আলীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত কর্মসূচিতে রাজশাহীর বিভিন্ন সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও পেশাজীবী সংগঠনের প্রতিনিধিরা অংশ নেন। এসময় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, রাজশাহী রক্ষা সংগ্রম পরিষদের সাধারণ সম্পাদক মো. জামাত খান, সিনিয়র সহসভাপতি অ্যাডভোকেট হামিদুল হক, সাংগাঠনিক সম্পাদক দেবাশিষ প্রামানিক দেবু, মুক্তিযুদ্ধের চেতনা বাস্তবায়ন মঞ্চের সাধারণ সম্পাদক আবুল কালাম আজাদ, রাজশাহী চেম্বারের সাবেক পরিচালক হারুনার রশিদ, মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের সভাপতি নুরুল ইসলাম মতিন, আইনজীবী সমিতির নেতা এন্তাজুল হক বাবু, বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলন রাজশাহীর নেত্রী সেলিনা বেগম, পবা উপজেলা পরিষদের সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান সেলিনা বেগম, বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ রাজশাহীর সাধারণ সম্পাদক অঞ্জনা সরকার, রাজশাহী সাংবাদিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক তানজিমুল হক, উন্নয়ন কর্মী সুব্রতকুমার পাল, মিনহাজ উদ্দিন মিনু, রাজশাহী ওয়েবের সভাপতি আঞ্জুমান আরা লিপি, মুক্তিযোদ্ধ বজলার রহমান, জেলা লোকমোর্চার সহসভাপতি আকলিমা খাতুন লিমা, মাওলানা মাকসুদ উল্লাহ, কেএম জোবায়েদ হোসেন প্রমুখ।
সমাবেশ থেকে বক্তারা বলেন, রাজশাহীতে দীর্ঘদিন ধরে বন্ধ সদর হাসপাতালে চিকিৎসাসেবা চালুর জোর দাবি জানাই। চিকিৎসকরা করোনাকালে সম্মুখযোদ্ধা হিসেবে স্বীকৃতি পেলেও চিকিৎসা দিতে নানা গড়িমসি করছেন। অনেক সিনিয়র চিকিৎসক রোগির কাছে পর্যন্ত পৌছেন না। এ কারণে সম্মুখযোদ্ধা হিসেবে চিকিৎসকদের প্রতি সাধারণ মানুষের বিশ্বাস ও আস্থা হারাচ্ছে। সমাবেশ থেকে চিকিৎসকদের প্রতি রোগী বান্ধব হয়ে করোনা রোগিদের পাশে দাঁড়ানোর আহ্বান জানানো হয়। এছাড়া রামেক হাসপাতালের আইসিইউ ফাঁকা বেডে করোনা রোগিদের রেখে চিকিৎসার দাবি জানানো হয়।
সমাবেশ থেকে রাজশাহী রক্ষা সংগ্রাম পরিষদের সাধারণ সম্পাদক জামাত খানকে নিয়ে একটি মহল ষড়যন্ত্রে লিপ্ত হয়েছে উল্লেখ করে অবিলম্বে এসব ষড়যন্ত্র বন্ধের আহ্বান জানানো হয়। বক্তারা বলেন, রাজশাহীর উন্নয়ন ত্বরান্বিত করতে রক্ষা সংগ্রাম পরিষদের অবদান রয়েছে। এ কারণে জামাত খানকে কোণঠাসা করতে একটি মহল উঠেপড়ে লেগেছে। মহলটি জামাত খানকে ‘চাঁদাবাজ, রাজাকারের সন্তান ও চিহ্নিত সন্ত্রাসী’ উল্লেখ করে’ নগরের বিভিন্নস্থানে লিফলেট সেটেছে। লিফলেটের একই কপি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকেও প্রচার করছে। একটি ফেসবুক আইডি থেকে এসব অপপ্রচার চালানো হচ্ছে। বেনামেও এসব লিফলেটের কপি নগরীর বিভিন্ন সরকারি ও বেসরকারি দপ্তরে পাঠিয়েও তার সুনাম ক্ষুন্ন করার চেষ্টা করা হচ্ছে। এ নিয়ে জামাত খান তথ্য প্রযুক্তি আইনে মামলা দায়ের করেছেন। এ প্রেক্ষিতে অবিলম্বের চিহ্নিত ষড়যন্ত্রকারীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের জোর দাবি জানানো হয়।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ