রাজশাহী রেলওয়ে স্টেশনে ১০ দিন আগের ইদে ঘরমুখী যাত্রীদের ভিড় নেই

আপডেট: এপ্রিল ১, ২০২৩, ১১:১৩ অপরাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক:


এখন থেকে আন্তনগর ট্রেনে যাত্রার ১০ দিন আগেই কেনা যাবে টিকিট। যাত্রীদের সুবিধার্থে শনিবার (১ এপ্রিল) থেকে এই কার্যক্রম শুরু করেছে বাংলাদেশ রেলওয়ে। এর আগে পাঁচ দিন আগে পাওয়া যেত অগ্রিম টিকিট। নতুন নিয়মে রাজশাহী রেলস্টেশনে টিকিট কাটার লোক নেই বললেই চলে। যাত্রার ১০ দিন আগের টিকিট কেনার তাড়া নেই। তবে আগের মতোই তিন-চার দিন আগের টিকিট কাটছেন যাত্রীরা। শনিবার (১ এপ্রিল) সকালে রাজশাহী রেলস্টেশনে গিয়ে এমন দৃশ্যই দেখা গেছে।

রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, প্রতিদিন সকাল থেকে রাত পর্যন্ত অগ্রিম টিকিট কাউন্টার থেকে কেনা যাবে। তবে ১ থেকে ৬ এপ্রিল পর্যন্ত কাউন্টার ও অনলাইনে শতভাগ টিকিট বিক্রি হবে। ৭ এপ্রিল থেকে ঈদের অগ্রিম টিকিট বিক্রি শুরু হবে। তখন আর কাউন্টারে টিকিট পাওয়া যাবে না। শতভাগ টিকিট বিক্রি হবে অনলাইনেই। কেবল স্ট্যান্ডিং টিকিট মিলবে কাউন্টারে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক রাজশাহী রেলস্টেশনের টিকিট কাউন্টারে কর্মরত এক কর্মচারী জানান, এখন পর্যন্ত ১০ দিন আগের টিকিটপ্রত্যাশী পাওয়া যায়নি। এর অন্যতম কারণ, ১০ দিন আগের টিকিট পাওয়ার বিষয়টি বেশির ভাগ যাত্রীই জানেন না। কর্তৃপক্ষ তেমন প্রচার চালায়নি। এ জন্য টিকিটের চাহিদাও তৈরি হয়নি।

রাজশাহী রেলস্টেশন ম্যানেজার আব্দুল করিম জানান, আসন্ন পবিত্র ইদুল ফিতরের অগ্রিম টিকিট দেওয়া হবে ৭ এপ্রিল থেকে। প্রতিবারের মতো ইদ উপলক্ষে কাউন্টারে ইদযাত্রার টিকিট বিক্রি আর হবে না। তবে কাউন্টার থেকে সিটবিহীন টিকিট আগের নিয়মে বিক্রি হবে।

পশ্চিমাঞ্চল রেলওয়ের মহাব্যবস্থাপক অসীম কুমার তালুকদার বলেন, রাজশাহী থেকে এখনো টিকিট কাটার ধুম পড়েনি। নতুন নিয়মের কারণে ট্রেনের টিকিট এখন সহজে পাচ্ছেন ক্রেতারা। কয়েক দিন ধরে রাজশাহী-ঢাকা রুটের আন্তনগর ট্রেনের অনেক আসনই খালি যাচ্ছে। আর রাজশাহী থেকে ইদে ঘরমুখী যাত্রীদের ভিড় কম থাকে। তবে ইদের পর ফিরতি টিকিটের চাপ থাকে বেশি।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ