রাজশাহী সিটি হাট: জাল নোট শনাক্তের মেশিনে মিলছে সুফল

আপডেট: জুন ১৪, ২০২৪, ১০:৫৭ অপরাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক:


রাজশাহী অঞ্চলের সবচেয়ে বড় কোরবানির পশুর হাট বসে মহানগরীর সিটি বাইপাস হাটে। সপ্তাহের রোববার এই হাট বসলেও কোরবানি ইদকে কেন্দ্র করে এখন প্রতিদিনই হাটে দেখা যাচ্ছে ক্রেতা-বিক্রেতাদের আনোগোনা। ফলে প্রতিদিন কোটি টাকার লেনদেন হচ্ছে এই পশুহাটে। পশু কেনাবেচাকে কেন্দ্র করে মৌসুম এলেই সক্রিয় হয়ে ওঠে জাল টাকার কারবারিরা। এবারও ঢাকার কয়েকটি ঘটনা উদ্বেগ তৈরি করেছে। এতে জাল নোট শনাক্তের মেশিনের ব্যবহার যেমন বেড়েছে, তেমনি মিলছে সুফল।

জেলা প্রশাসনের নির্দেশনা অনুযায়ী, এই অঞ্চলের সবচেয়ে বড় এ হাটে ব্যাংকগুলোর পক্ষ থেকে বুথ বসিয়ে মেশিনে জাল নোট শনাক্তকরণের ব্যবস্থা থাকতে হবে। একারণে হাটের ইজারাদারের পাশাপাশি কয়েকটি বেসরকারকারি ব্যাংকও মেশিন বসিয়েছেন।
সরেজমিনে সিটি হাটে গিয়ে দেখা যায়, হাটের ইজারাদার রুমে জাল নোট শনাক্তকরণ বুথ স্থাপন করেছে কয়েকটি ব্যাংক। সঙ্গে ইজারাদারেরও একটি মেশিন রয়েছে।

গরু বিক্রেতা মো. সাবিয়ার আলী বলেন, নগদ লেনদেনে ইদের বাজারে জাল টাকার একটা ঝুঁকি থাকে। কিন্তু আগে গতানুগতিক পদ্ধতিতেই টাকা পরিক্ষা করে নিতে হতো। এখন আধুনিক মেশিনের সাহায্য পাচ্ছি। যা খুবই ভালো।
রাজশাহীর সিটি হাট ইজারাদার আতিকুর রহমান বলেন, আমাদের পাশাপাশি কয়েকটি ব্যাংক মেশিন স্থাপন করে কাজ করছেন। এটির ব্যবহার আগের চেয়ে বেড়েছে। পাশাপাশি মাইকিং করেও মানুষকে সর্তক করা হচ্ছে।

Exit mobile version