রাজশাহী সেফহোম থেকে দুই কিশোরীর পলায়ন

আপডেট: সেপ্টেম্বর ১৮, ২০১৭, ১:০৯ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক


রাজশাহীর সরকারি সেফহোম থেকে দুই কিশোরী পালিয়ে গেছে। গত শনিবার দিবাগত গভীর রাতে তারা বাথরুমের পেছনের জানালার গ্রিল ভেঙে পালিয়ে যায় বলে দাবি করছে সেফহোম কর্তৃপক্ষ। এ ঘটনায় নগরীর শাহমখদুম থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করা হয়েছে।
নিখোঁজ দুই কিশোরীর নাম তানজিলা আক্তার ও সুমি আক্তার। তাদের দুইজনের বয়স ১৬ বছর। এদের মধ্যে তানজিলার বাড়ি রংপুরের তারাগঞ্জ উপজেলায়। আর সুমির বাড়ি নীলফামারির ডোমার উপজেলায়। গত ২৯ আগস্ট নীলফামারির একটি আদালত সুমিকে রাজশাহীর পবা উপজেলার বায়া বাজারের এই সরকারি সেফহোমে পাঠায়। আর গত ১২ সেপ্টেম্বর তানজিলাকে এখানে পাঠান রংপুরের একটি আদালত।
সেফ হোমের উপ-তত্ত্বাবধায়ক লাইজু রাজ্জাক বলেন, শনিবার গভীর রাতে কয়েকবার বিদ্যুৎ চলে যায়। এ সময়ের মধ্যে তারা দুইজন বাথরুমে ঢোকে। ওই বাথরুমের পেছনের দেয়ালে একটি জানালা আছে। সে জানালার গ্রিল ছিল দুর্বল। সেটি ভেঙে তারা পালিয়ে গেছে।
তিনি বলেন, সন্ধ্যায় মুঠো ফোনে তাদের মায়ের সঙ্গে কথা বলানো হয় ওই দুই কিশোরীকে। তাদের নিয়ে যাওয়ার ব্যবস্থা করতে তার মাকে বলা হয়েছিল। কারণ, তারা কোনো মামলার সঙ্গে সংশ্লিষ্ট নয়। এরই মধ্যে তারা পালিয়ে গেছে। রাতে বাস টার্মিনাল ও রেল স্টেশনে অনেক খোঁজাখোঁজি করেও পাওয়া যায়নি। পরে এ ব্যাপারে থানায় জিডি করা হয়।
নগরীর শাহমখদুম থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) জিল্লুর রহমান বলেন, থানায় জিডি হওয়ার পর তিনি সেফহোম পরিদর্শন করেছেন। বাথরুমের জানালার গ্রিল তিনি ভাঙা দেখেছেন। এ বিষয়ে পুলিশ তদন্ত করছে। ওই দুই কিশোরীর খোঁজ পেতে রংপুর ও নীলফামারিরসহ বিভিন্ন থানায় বার্তা পাঠানো হয়েছে বলে জানান ওসি।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ