রাজশাহী-৫ আসনে হেভিওয়েট প্রার্থী দারা বিজয়ের লক্ষ্যে নির্বাচনী মাঠে নেতা-কর্মী-সমর্থকরা

আপডেট: ডিসেম্বর ১৯, ২০২৩, ৮:৫৯ অপরাহ্ণ


এস এম শাহাজামাল, দুর্গাপুর :


আসন্ন দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন ৭ জানুয়ারি। আগামী নির্বাচনকে সামনে রেখে রাজশাহী-৫ (দুর্গাপুর -পুঠিয়া) সংসদীয় আসনের প্রার্থীরা অনেক আগে থেকেই তৎপরতা চালাচ্ছেন। গত সোমবার প্রতীক পেয়েই জোরে সড়ে প্রচারণায় নেমে পড়েছে প্রার্থীরা। এর মধ্যেই রাজশাহী-৫ ( দুর্গাপুর – পুঠিয়া) আসনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী আব্দুল ওয়াদুদ দারার পক্ষে জমে উঠেছে ভোটের প্রচার।

এদিকে, জেলার ৬টি আসনে মধ্যে গুরুত্বপূর্ণ রাজশাহী-৫ ( দুর্গাপুর – পুঠিয়া) সংসদীয় এ আসনটি। এ আসনে আওয়ামীলীগের একাধিক প্রার্থীও রয়েছে। তবে দলের হেভিওয়েট প্রার্থী হিসেবে মাসখানেক আগেও রাজনীতির মাঠ দাপিয়ে বেড়াচ্ছিলেন আওয়ামী লীগের টানা দুইবারের সাবেক সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব আব্দুল ওয়াদুদ দারা। ওই হেভিওয়েট প্রার্থী এবার আওয়ামী লীগের মনোনীত।

সংসদীয় এ আসনটিতে আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী হিসাবে নৌকা প্রতীক নিয়ে নির্বাচনী মাঠে লড়বেন আলহাজ্ব আব্দুল ওয়াদুদ দারা। ইতিমধ্যে নেতা-কর্মী-সমর্থকরা নির্বাচনী মাঠে দলীয় প্রার্থী দারার বিজয়ের লক্ষ্যে গণজোয়ার সৃষ্টি করেছে।

নির্বাচন উপলক্ষে প্রতিটি ইউনিয়নের গ্রাম পাড়া মহল্লায়,চায়ের স্টল ও মোড়ে মোড়ে সর্বস্তরের জনসাধারণের মুখে মুখে এবারের এমপি দারা। বিগত সময়ে আসনটি ঘিরে উন্নয়নের রূপকার হিসাবে কাজ করে গেছেন দারা। আগামী নির্বাচনে নৌকা প্রতীকে ভোট দিয়ে দারার বিজয় সুনিশ্চিত করতে চায় দলীয় নেতাকর্মী ও সর্বস্তরের সাধারণ মানুষ।

এছাড়াও আওয়ামী লীগ দলীয় সকল স্থানীয় সরকার প্রতিনিধিরা রয়েছেন নৌকার সঙ্গে। তারা অংশ নিচ্ছেন দলী প্রার্থী আব্দুল ওয়াদুদ দারার সাথে। সব মিলিয়ে এ আসনের নির্বাচনী মাঠ এক কথায় আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী দারার দখলে রয়েছে।

রাজশাহীর গুরুত্বপূর্ণ আসন হিসেবে পরিচিত রাজশাহী-৫ ( দুর্গাপুর – পুঠিয়া) এ আসনটি। এ আসনের দুই দুই বারের সাবেক সফল সংসদ সদস্য ও রাজশাহীর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল ওয়াদুদ দারা। এ আসন থেকেই তার নিয়ন্ত্রিত হয় পুরো জেলার রাজনীতি। এই আসনে রাজনৈতিক দলের হেভিওয়েট প্রার্থী হলেন আওয়ামী লীগের টানা দুইবারের সংসদ সদস্য আব্দুল ওয়াদুদ দারা।

সাবেক এই সংসদ সদস্য ও আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী মাস দেড়েক আগেও উপজেলাতে সভা সমাবেশের মধ্যে দিয়ে নির্বাচনী প্রচারণাতে দাপিয়ে বেড়িয়েছিলেন এই প্রার্থী। বর্তমানে দারা তার সেই কর্মসূচি অব্যাহত রেখেছেন। এমনকি ভোটের মাঠেও রয়েছে দারার জনপ্রিয়তা।

অপরদিকে, আওয়ামী লীগের স্বতন্ত্র প্রার্থী ওবাইদুর রহমান,জাতীয় পার্টির মনোনীত প্রার্থী অধ্যাপক আবুল হোসেন,জাকের পার্টির শফিকুল ইসলামের নির্বাচনি মাঠে কোন প্রচার- প্রচারণায় দেখা যায়নি। তবে অনেকেই দাবি করছেন নির্বাচনী প্রচারনা কার্যক্রম শুরু হবে।

দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার পর থেকেই উজ্জীবিত রাজশাহী-৫ আসনের আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা। আসনটির দুই উপজেলার বাজার, পাড়া-মহল্লায়,চায়ের স্টল ও মোড়ে মোড়ে দাঁপিয়ে বেড়াচ্ছেন আওয়ামী লীগের প্রার্থীর নেতাকর্মী ও সমর্থকরা। এর ঠিক বিপরীত চিত্র নির্বাচনে অংশগ্রহণ গ্রহণকারী অন্যান্য প্রার্থীদের।

দুর্গাপুর পৌর আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক শরীফুজ্জামান শরীফ জানান,বিগত দিনের নির্বাচনগুলো থেকে এবার এ আসনে আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থীর পক্ষে সকল পর্যায়ের আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা একমত পোষণ করেছেন। আমরা মনোনীত প্রার্থীর পক্ষেই নির্বাচন কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছি। আমরা আশাবাদী আগামী নির্বাচনে এ আসনটিতে বিপুল ভোটে নৌকার বিজয় হবে।

দুর্গাপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা মান্নান ফিরোজ বলেন, নির্বাচন উপলক্ষে নেতাকর্মীরা নতুন উদ্যমে জেগে উঠেছে। নির্বাচন সফল এবং বিএনপির আন্দোলন প্রতিহত করতে কর্মীরা এখন ঐক্যবদ্ধ। অতীতের যে কোনো সময়ের চেয়ে নেতাকর্মীরা এখন উজ্জীবিত এবং সক্রিয়। এই আসনে একাধিক প্রার্থী সক্রিয়। তবে দল যাকে মনোনয়ন দিয়েছে, সবাই তার পক্ষে কাজ করার বিষয়ে একমত।

জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুস সামাদ বলেন, জেলার ছয়টি নির্বাচনী আসনের মধ্যে রাজশাহী-৫ আসনের আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী আব্দুল ওয়াদুদ দারা জনপ্রিয়তা লক্ষণীয়। দুই উপজেলাতে আওয়ামী লীগের নেতাকর্মী এবং সমর্থকরা একত্রিত হয়ে নির্বাচনী কাজ করে যাচ্ছেন। আমি সত্যিই অভিভূত এ আসনের সকল আওয়ামী লীগের নেতাকর্মী এবং সমর্থকদের উপর এবং বিশ্বাস করি আগামী নির্বাচনে এ আসনে নৌকার বিপুল ভোটে বিজয় হবে।

Exit mobile version