রাজস্থানে পিটিয়ে হত্যা প্রতিবাদী বাম নেতাকে

আপডেট: জুন ১৮, ২০১৭, ১২:৫৮ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক


রাজস্থানে মহিলার শৌচকর্মের ছবি তুলতে বাধা দেয়ায় সিপিআই(এমএল) নেতাকে পিটিয়ে মারার অভিযোগ। প্রতাপ গড় জেলা কমিটির সদস্য জাফর খান। রাজস্থানের বাগওয়াসা কাচি গ্রামে মহিলাদের প্রকাশ্যে শৌচকর্ম করার ভিডিও তোলার নির্দেশ দিয়েছিলেন নগর পরিষদের কমিশনার অশোক জৈন। সেই নির্দেশ মেনেই ভিডিও করছিলেন পুরকর্মীরা। তাতে বাধা দেন জাফর। কিন্তু জাফরের বাধা উপেক্ষা করেই ভিডিও করতে থাকেন পুরকর্মীরা। তার পরেও বাধা দেন জাফর।শেষে জাফরকে মারধর করতে থাকেন পুরকর্মীরা। তাঁদের পিটুনিতেই মৃত্যু হয় জাফরের। তাঁর দাদা নুর মহম্মদ কমল হরিজন, রীতেশ হরিজন, মণীশ হরিজন, অশোক জৈন সহ কয়েক জনের নামে থানায় এফআইআর দায়ের করেছেন। প্রতাপগড়ের কোতয়ালী থানা খুনের মামলা দায়ের করে তদন্ত শুরু করেছে। প্রতাপগড়ের পুলিস সুপার জানিয়েছেন, ঘটনাটি গুরুত্ব দিয়ে তদন্ত করছে পুলিশ। মূলত ৪ জনের বিরুদ্ধে এফআইআর হয়েছে।
জাফর হুসেনের দেহ ময়নাতদন্তের জন্য হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। তবে এখনও পর্যন্ত কাউকে গ্রেপ্তার করা হয়নি। সূত্রের খবর জাফরের ভাইয়ের দায়ের করা এফআইআর-এ নগর পরিষদের কমিশনার অশোক জৈনেরও নাম রয়েছে। ঘটনায় অভিযুক্ত পুরকর্মীরা কেন্দ্র সরকারের স্বচ্ছ ভারত অভিযানের সঙ্গে যুক্ত বলে জানা গিয়েছে।
যদিও অশোক জৈনের দাবি, পুরকর্মীরা গ্রামে প্রকাশ্যে শৌচকর্ম না করার জন্য সচেতন করতে গিয়েছিলেন। তাঁরা কোনও ভিডিও তোলেননি। গ্রামবাসীদের ডেকে সচেতন করছিলেন। তখনই সিপিআই(এমএল) নেতা জাফর খান তাঁদের বাধা দেন এবং পুরকর্মীদের মারধর করেন।  জাফরের কাছে বাধা পেয়ে পুরকর্মীরা থানায় গিয়ে অভিযোগ জানান। পুলিস সেই অভিযোগের ভিত্তিতে ঘটনাস্থলে গিয়ে দেখেন জাফরের দেহ পড়ে রয়েছে। পুরকর্মীরা জাফরকে মারধর করা তো দূরের কথা তাঁর গায়ে হাত পর্যন্ত দেননি বলে দাবি করেছেন অশোক জৈন।
তথ্যসূত্র: আজকাল