রাজৌরি সেনাঘাঁটিতে হামলার দায় স্বীকার পাক জঙ্গিগোষ্ঠীর, জি-২০ বৈঠক বানচালের হুমকি

আপডেট: আগস্ট ১৪, ২০২২, ৯:০৬ অপরাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক:


গত সপ্তাহেই পাঠানকোটের স্মৃতি উসকে সেনা ঘাঁটিতে হামলা চালিয়েছে পাক সন্ত্রাসবাদীরা। রোববার সেই হামলার দায় স্বীকার করে বার্তা দিল পাক গোয়েন্দা সংস্থা আইএসআইয়ের মদতপুষ্ট জঙ্গি সংগঠন। সেই সঙ্গে ভারতকে হুঁশিয়ারি দিয়ে বলা হয়েছে, চলতি বছরের শেষের দিকে জি-২০ সম্মেলন আয়োজন করতে দেওয়া হবে না। একটি ভিডিও প্রকাশ করে এই বার্তা দেওয়া হয়েছে পাক জঙ্গি সংগঠনের তরফে।

পিপলস অ্যান্টি ফ্যাসিস্ট ফ্রন্ট নামে ওই জঙ্গি সংগঠনের তরফে মুখ ঢাকা এক ব্যক্তি বলেছে, “ইদের সময়ে একটি স্পেশ্যাল শপথ নেওয়া হয়েছিল আমাদের গোষ্ঠীর তরফে। বড়সড় হামলা চালানোর পরিকল্পনা করা হয়েছিল। রাজৌরিতে আমরা সেটাই বাস্তবায়িত করেছি।” তারপরেই ফের ভিডিও প্রকাশ করে জানিয়ে দেওয়া হয়, কোনওভাবেই ভারতকে জি-২০ সম্মেলন আয়োজন করতে দেওয়া যাবে না। প্রসঙ্গত, চলতি বছরের শেষে ডিসেম্বরে জি-২০ সম্মেলন হতে পারে। সেই সম্মেলনের উদ্যোক্তা ভারত।

গত ১১ আগস্ট রাজৌরির সেনাঘাঁটিতে জঙ্গি হামলা চালানো হয়েছিল। ঘটনায় শহিদ হয়েছেন তিন জওয়ান। পালটা লড়াইয়ে নিকেশ হয় দুই জঙ্গি। সেই হামলার দায় স্বীকার করে পাক জঙ্গিদের বার্তা দেওয়াকে বেশ সন্দেহের চোখেই দেখছেন ভারতীয় গোয়েন্দারা। এইভাবে প্রোপাগান্ডা ছড়িয়ে জম্মু-কাশ্মীরে আরও হামলা চালানো হতে পারে বলেই অনুমান গোয়েন্দাদের। ইতোমধ্যেই জি-২০ সম্মেলন আয়োজন করা নিয়ে কাশ্মীরের মতামত চেয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার।

জি-২০ সম্মেলন কাশ্মীরে আয়োজন করা হতে পারে, এমন সম্ভাবনা তৈরি হয়েছে। সেই কারণেই ভারতের অংশ হিসাবে কাশ্মীরকে বিশ্বের দরবারে তুলে ধরতে চায় না পাকিস্তান। সেই কারণেই হামলা চালিয়ে, হুঁশিয়ারি দিয়ে জি-২০ সম্মেলন ভেস্তে দেওয়ার পরিকল্পনা করা হচ্ছে। ভারতীয় গোয়েন্দাদের মতে, এহেন পরিস্থিতিতে নতুন করে বেশ কিছু জঙ্গি সংগঠন তৈরি করতে চলেছে পাকিস্তান। তাদেরকে কাজে লাগিয়েই ভারতে নাশকতা চালানো হবে, সেরকমই ছক কষছে আইএসআই।
তথ্যসূত্র: সংবাদ প্রতিদিন

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ