রাণীনগরে গ্রামীণ রাস্তা ধ্বসে যাওয়ায় বিপাকে গ্রামবাসী

আপডেট: আগস্ট ১৮, ২০২২, ১:০৬ অপরাহ্ণ


আব্দুর রউফ রিপন, নওগাঁ প্রতিনিধি:


নওগাঁর রাণীনগর উপজেলার সদর ইউনিয়নের ছয়বাড়িয়া একটি গ্রাম। এই গ্রামে কয়েক হাজার মানুষের বসবাস। এই গ্রামের অধিকাংশ মানুষই কৃষক। এই গ্রামের চলাচলের একমাত্র ইট সোলিং এর রাস্তা ধসে যাওয়ায় চরম বিপাকে পড়েছেন গ্রামবাসী।

কোনমতে পায়ে হেটে যাওয়া গেলেও কৃষি পণ্যসহ অন্যান্য উপকরণ পরিবহন করার জন্য ভ্যান গাড়িসহ অন্যান্য ছোট ছোট যানবাহন ধসে যাওয়া অংশটুকু যাতায়াত করতে না পারায় চরম বিপাকে পড়েছে ওই গ্রামের শত শত কৃষকসহ সাধারণ মানুষরা। অপরদিকে ধসে যাওয়া অংশটুকু দ্রæত মেরামত করার আশ্বাস প্রদান করেছে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ।

ছয়বাড়িয়া গ্রামের বাসিন্দা এসআই সবুজ, এনামুল হকসহ অনেকেই বলেন, রাস্তাটি নির্মাণের ছয়মাস পার না হতেই ছোট্ট একটি ফুটওভার কালভার্টের কাছেই ধসে গেছে। এতে করে দিনের বেলায় পায়ে হেটে যাতায়াত করা গেলেও দুর্ঘটনা ঘটছে রাতের বেলায়।

রাতের অন্ধকারে অনেকেই ধসে যাওয়া অংশে পড়ে গিয়ে দুর্ঘটনার শিকার হচ্ছেন। দায়সারা ও অপরিকল্পিত ভাবে রাস্তাটি নির্মাণ করার কারণেই এমন অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে বলে অভিযোগ করা হচ্ছে। যদি কালভার্ট সংলগ্ন জলাশয়ের পাশ দিয়ে গাইডওয়াল নির্মাণ করে রাস্তাটি তৈরি করা হতো তাহলে আর এই সমস্যার সৃষ্টি হতো না।

রাস্তাটি ধসে যাওয়ার বেশ কিছুদিন অতিবাহিত হলেও এখন পর্যন্ত অফিসের কোন ব্যক্তিই রাস্তাটি দেখতে আসেনি। অথচ প্রতিদিন গ্রামের শত শত কৃষকসহ সাধারণ মানুষকে চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। জলাশয়ের পাশে ধসে যাওয়া অংশটুকু দ্রুত গাইডওয়াল নির্মাণের সঙ্গে এই জনগুরুত্বপূর্ণ গ্রামীণ রাস্তাটি মেরামত করে গ্রামবাসীদের চলাচল সহজ করে দিতে গ্রামবাসীর পক্ষে আমরা সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের সুদৃষ্টি কামনা করছি।

উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মেহেদী হাসান বলেন, ধসে যাওয়ার পর আমি ওই রাস্তাটি পরিদর্শন করেছি। জলাশয়ের পানি শুকালেই ধসে যাওয়া অংশে গাইডওয়াল নির্মাণের মাধ্যমে নতুন করে রাস্তাটি মেরামতের কাজ শুরু করা হবে।