রাণীনগরে নতুন দলিল লেখকদের মারপিটের অভিযোগ

আপডেট: মার্চ ৩, ২০২১, ৩:৩৫ অপরাহ্ণ

নওগাঁ প্রতিনিধি:


নওগাঁর রাণীনগর সাব-রেজিস্ট্রি অফিসের ৮থেকে ৯জন নতুন দলিল লেখক অফিসে জমি রেজিস্ট্রি করতে গেলে তাদের মারপিট করে বের করে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। রেজিস্ট্রি অফিসের দলিল লেখক সমিতির সংঘবদ্ধ সদস্যরা নতুন দলিল লেখকদের মারপিট করেছে বলে জানা গেছে। মারপিটের কারণে দুইজন নতুন দলিল লেখক গুরুতর আহত হয়েছেন। এ ঘটনায় ১৭ জনের নাম উল্লেখ করে থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।
অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, কয়েক বছর আগে ৮থেকে ৯জন দলিল লেখক নতুন লাইসেন্স করেন। এরপর তারা সমিতিতে সদস্য হতে গেলে রাণীনগর দলিল লেখক সমিতির নেতৃবৃন্দ তাদের নিতে অস্বীকার করেন ও বিভিন্ন ভাবে হয়রানি করে আসছে। এমতাবস্থায় নতুন লাইসেন্স পাওয়া দলিল লেখকরা পরিবার-পরিজন নিয়ে মানবেতর জীবনযাপন করছে। এরপর নতুন দলিল লেখকরা একটি সমিতি গঠন করে জমির দলিল লেখার কার্যক্রমের চেষ্টা করেন।
এরই ধারবাহিকতায় মঙ্গলবার নতুন দলিল লেখক রাণীনগর সাব-রেজিস্ট্রি অফিসের সাব-রেজিস্ট্রার মাহবুবুর রহমানের কাছে জমি রেজিস্ট্রি করতে গেলে সমিতির সভাপতি হাফিজুর রহমান বাচ্চু ও সাধারণ সম্পাদক হারুনের নেতৃত্বে সমিতির সংঘবদ্ধ কিছু সদস্য নতুন দলিল লেখকদের মারপিট করে অফিস থেকে বের করে দেন। এ সময় তাদের মারপিটে হাসান আলী ও সেলিম হোসেন নামে দুইজন নতুন দলিল লেখক আহত হন। আহতদের উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়।
নতুন দলিল লেখক মোস্তাফিজুর রহমান নয়ন, আসমাইল হোসেন, আনোয়ার চৌধুরী, হাসান, মোতাহার হোসেন ফরহাদ, হাবিবুর রহমান জুয়েল অভিযোগ করে বলেন, রাণীনগর দলিল লেখক সমিতি একটি দুর্নীতির আখড়া। সেখানে ক্রেতাদের কাছ থেকে জমি রেজিস্ট্রি বাবদ সরকারি খরচের চাইতেও সমিতির নামে অতিরিক্ত টাকা হাতিয়ে নেওয়া হয়। কেউ দেখেও দেখে না। এছাড়াও নতুন দলিল লেখকদের জমি রেজিস্ট্রিতো করতে দেওয়া হয় না আবার বিভিন্ন ভাবে হয়রানি করা হচ্ছে। এ বিষয়ে দ্রুত উদ্ধর্তন কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন নতুন দলিল লেখকরা।
দলিল লেখক সমিতির সভাপতি হাফিজুর রহমান বাচ্চু অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, মারপিট করা হয়নি ধাক্কাধাক্কি করে বের করে দেওয়া হয়েছে।
জেলা রেজিস্ট্রার আব্দুস সালাম জানান মারপিটের বিষয়টি খুবই দুঃখজনক। এখানে সবারই কাজ করার অধিকার রয়েছে। নিয়ম মেনে নতুনদেরও কাজ করার সুযোগ করে দেওয়া পুরাতনদের নৈতিক দায়িত্ব। কিন্তু তারা এমন করছে তা আমার বোঝার বাইরে। তবে এই বিষয়ে ভুক্তভুগিদের কাছ থেকে লিখিত ভাবে অভিযোগ পেলে তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।
রাণীনগর থানার ওসি (তদন্ত) তারিকুল ইসলাম বলেন, মারপিটের ঘটনায় অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।