রাবিতে ছাত্র-শিক্ষক নির্যাতন দিবস পালন

আপডেট: আগস্ট ২৫, ২০১৭, ১:৪২ পূর্বাহ্ণ

রাবি প্রতিবেদক


নির্যাতন দিবসের মিছিলে রাবি শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা-সোনার দেশ

‘আধারই সব কথা নয়, সূর্যটাও আছে’ স্লোগানকে সামনে রেখে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যারয়ে পালিত হয়েছে ‘ছাত্র-শিক্ষক নির্যাতন দিবস’। এ উপলক্ষে গতকাল বৃহস্পতিবার ক্যাম্পাসে মানববন্ধন, র‌্যালি, আলোচনাসভাসহ বিভিন্ন কর্মসূচির আয়োজন করা হয়। ২০০৭ সালে ২০ আগস্ট ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের খেলার মাঠের একটি ঘটনাকে কেন্দ্র করে দেশের সব পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক-ছাত্রদের সঙ্গে সেনা সদস্যদের সংঘর্ষ বাধে। এ সময় অনেক ছাত্র-শিক্ষক নির্যাতনের শিকার হয়েছিলেন। সে সময় রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ৮ শিক্ষক ও এক কর্মকর্তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। দুই দিন শিক্ষার্থীদের সাথে পুলিশে সংঘর্ষে অন্তত কয়েকশ জন আহত হন। এর পর থেকে প্রতিবছর ২৪ আগস্ট রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে ‘ছাত্র-শিক্ষক নির্যাতন’ দিবস পালন করা হয়।
গতকাল সকাল ১০টায় ছাত্র-শিক্ষক নির্যাতন দিবস উপলক্ষে সিনেট ভবন চত্বরে আলোচনা সভার আয়োজন করে রাজশাহী বিশ^বিদ্যালয় প্রশাসন। বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক এম আব্দুস সোবহানের সভাপতিত্বে এতে প্রধান অতিথি ছিলেন জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক হারুন-অর-রশিদ। বিশেষ অতিথি ছিলেন, রাজশাহী-৩ (পবা-মোহনপুর) আসনের সাংসদ ও সাবেক ছাত্রলীগ নেতা আয়েন উদ্দিন এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের উপউপাচার্য আনন্দ কুমার সাহা ও নির্যাতিত শিক্ষক অধ্যাপক মলয় কুমার ভৌমিক।
সভায় বক্তারা সেদিনের সেই নিপীড়ন ও হয়রানির ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত করে দোষী ব্যক্তিদের উপযুক্ত শাস্তির দাবি করেন। তারা বলেন, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের সেই ঘটনা একটি বড় ষড়যন্ত্রের অংশ। ইতিহাস বিকৃতি রোধে সেই ঘটনার পূর্বাপর উদ্ঘাটন করতে হবে।
এদিকে ছাত্র-শিক্ষক নির্যাতন দিবস স্মরণে সকাল সাড়ে ৯টায় মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও মূল্যবোধে বিশ্বাসী প্রগতিশীল শিক্ষক সমাজের উদ্যোগে মানববন্ধনের আয়োজন করা হয়। রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় সিনেট ভবনের সামনে আয়োজিত মানববন্ধনে সভাপতিত্ব করেন প্রগতিশীল শিক্ষক সমাজের আহ্বায়ক অধ্যাপক রকীব আহমদ।
অধ্যাপক রবিউল ইসলামের সঞ্চালনায় মানববন্ধন কর্মসূচিতে বক্তব্য তেন তৎকালীন সেনা সমর্থিত তত্ত্বাবধায়ক সরকারের কারা নির্যাতনের শিকার অধ্যাপক গোলাম সাব্বির সাত্তার, অধ্যাপক মলয় কুমার ভৌমিক ও অধ্যাপক চৌধুরী সারওয়ার জাহান। নির্যাতিত ছাত্রদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন মো. আয়াজ ও মো. মিজানুর রহমান।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ