রাবিতে টি-শার্ট গায়ে লিপু হত্যার অভিনব প্রতিবাদ ।। বিচার দাবিতে সব হলে একযোগে প্রদীপ প্রজ্জ্বলন

আপডেট: অক্টোবর ২৬, ২০১৬, ১১:৪২ অপরাহ্ণ


রাবি প্রতিবেদক
টি-শার্টের পেছনে থোক থোক রক্তের ছাপের মধ্যে লিপুর ছবি, নিচে লেখা এরপর কে? সামনের অংশে কালোর বুকে লাল অক্ষরে লেখা ‘লিপু হত্যার বিচার চাই’। এমনি টি-শার্ট গায়ে দিয়ে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের শিক্ষার্থী মোতালেব হোসেন লিপুর হত্যার অভিনব প্রতিবাদ জানিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। গতকাল বুধবার দুপুরে ক্যাম্পাসে এ কর্মসূচি পালন করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষার্থীরা। এ কর্মসূচি থেকে লিপু হত্যার সুষ্ঠু তদন্ত ও বিচার দাবি করেন তারা। এদিকে লিপু হত্যার বিচার দাবিতে গতকাল বুধবার সন্ধ্যায় বিশ্ববিদ্যালয়ের সব আবাসিক হলের সামনে একযোগে প্রদীপ প্রজ্জ্বলন করেছেন আবাসিক শিক্ষার্থীরা।
গতকাল দুপুরে শিক্ষার্থীরা বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের সামনে থেকে দলবদ্ধ হয়ে বের হয়ে বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে। নবাব আব্দুল লতিফ হলের শিক্ষার্থী মিজানুর রহমান বলেন, ‘পিছনের দিকে লিপুর ছবি আমাদেরকে লিপুর স্মৃতি বারবার স্মরণ করিয়ে দেয়। আর ‘এর পর কে?’Ñবোঝানো হয়েছে আমরা বিশ্ববিদ্যালয়ে কেউই নিরাপদ নই। হয়তো আমাদের মধ্যে আবার কেউ লাশ হয়ে পড়ে থাকতে পারে। আমরা চাই না, এরকম কোনো হত্যাকা- আর কোথাও হোক।’
গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের শিক্ষার্থী রাশেদ রিন্টু বলেন, ‘বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি পরীক্ষা চলার কারণে আমরা রাস্তায় কোনো আন্দোলন করছি না। তাই আমরা শান্তিপূর্ণভাবে আমাদের সহপাঠীকে হত্যার প্রতিবাদ জানাচ্ছি।’
মার্কেটিং বিভাগের তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী মাহফুজ মুন্না বলেন, ‘আমরা বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষার্থীরা লিপু হত্যার বিচার দাবিতে টি-শার্ট গায়ে রাস্তায় নেমেছি। আমরা চাই দেশের সব অঞ্চলে লিপু হত্যার বিচারের দাবি ছড়িয়ে পড়–ক। টি-শার্ট গায়ে সবার দৃষ্টিগোচর করা আমাদের লক্ষ্য।’
এদিকে লিপু হত্যার বিচার দাবিতে গতকাল সন্ধ্যা ৬টায় নবাব আবদুল লতিফ হলসহ বিশ্ববিদ্যালয়ের সব আবাসিক হলে একযোগে প্রদীপ প্রজ্জ্বলন করা হয়েছে। এসময় লিপুর প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে ও তার আত্মার শান্তি কামনায় এক মিনিট নীরবতা পালন করা হয়।
গত ২০ অক্টোবর বিশ্ববিদ্যালয়ের নবাব আব্দুল লতিফ হলের ডাইনিংয়ের পাশের ড্রেন থেকে লিপুর মৃতদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। ওইদিন সন্ধ্যায় লিপুর চাচা বশির মোল্লা অজ্ঞাতনামাদের নামে নগরীর মতিহার থানায় মামলা করেন। লিপু হত্যাকা-ের সঙ্গে জড়িত সন্দেহে তার রুমমেট মনিরুলকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য চার দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছে আদালত।