রাবিতে ফিলিস্তিনিদের উপর ইসরায়েলের সন্ত্রাসী হামলার প্রতিবাদ

আপডেট: নভেম্বর ২, ২০২৩, ৬:২২ অপরাহ্ণ

রাবি প্রতিবেদক:


নিরীহ ফিলিস্তিনিদের উপর ইসরায়েলের চলমান সন্ত্রাসী আগ্রাসনের প্রতিবাদ জানিয়েছে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) আইন বিভাগের শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা। বৃহস্পতিবার (২ নভেম্বর) বেলা ১১টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ সিনেট ভবন সংলগ্ন প্যারিস রোডে আয়োজিত এক মানববন্ধনে এই প্রতিবাদ জানান তারা।
মানববন্ধনে ফিলিস্তিনের নারী-পুরুষসহ শিশুদের ওপর ইসরায়েলের নির্যাতন, হত্যাযজ্ঞ, বোমা হামলার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান তারা।

কর্মসূচিতে বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন অনুষদের ডিন অধ্যাপক আব্দুল হান্নান বলেন, ইসরায়েল কর্তৃক গাজায় যে আগ্রাসন চালানো হয়েছে তা কোনো যুদ্ধ নয়। এটি একটি গণহত্যা। আন্তর্জাতিক আইন অনুযায়ী যুদ্ধের সময়ও সর্বসাধারণের উপর আক্রমণ করা যাবে না। কিন্তু আমরা দেখতেছি ফিলিস্তিনের হাসপাতাল, মসজিদ, মাদ্রাসা, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, বাড়িঘর সবকিছুর উপর বোমা হামলা করা হচ্ছে। যা রীতিমতো আন্তর্জাতিক আইনের লঙ্ঘন।

তিনি আরও বলেছেন, এটি একটি যুদ্ধাপরাধ। ইসরায়েল একটি অভিশপ্ত জাতি। তাদেরকে মদদ দিচ্ছে আমেরিকা। যারা গণতন্ত্র ও মানবতার সবক দেয়। এ সময় তিনি এই গণহত্যার জন্য ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী নেতানিয়াহুসহ জড়িতদের শাস্তির জন্য আন্তর্জাতিক আদালতের কাছে আবেদন জানিয়েছেন।

মানববন্ধনে আইন বিভাগের সভাপতি অধ্যাপক হাসিবুল আলম প্রধান বলেন, নিরীহ ফিলিস্তিনদের হাসপাতাল থেকে শুরু করে কোনো কিছুই নির্যাতনের হাত থেকে বাদ যাচ্ছে না। শিশু-নারীসহ বৃদ্ধ এমনকি যে নারী সন্তান প্রসব করবে তাকেও হত্যা করা হচ্ছে। এমন ভয়াবহ তাণ্ডব পৃথিবীর ইতিহাসে এর আগে দেখা যায়নি। এই গণহত্যায় মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র শুধু ইন্ধনই দিচ্ছে না, সেখানে তারা অস্ত্র দিয়ে সহায়তা করছে। তারা গাজা উপত্যকা মৃত্যু নগরীতে পরিণত করেছে। এই গণহত্যার দায়ে আন্তর্জাতিক আইনে একদিন বিচার হবেই।

আইন বিভাগের অধ্যাপক আব্দুল আলিমের সঞ্চালনায় মানববন্ধনে আরও বক্তব্য রাখেন, বিভাগের-অধ্যাপক মো. আহসান কবির, অধ্যাপক আবু নাসের মো. ওয়াহিদ, অধ্যাপক মো. আব্দুর রহিম মিয়া। এ সময় বিভাগের প্রায় তিন শতাধিক শিক্ষক-শিক্ষার্থী উপস্থিত ছিলেন।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ