রাবিতে ফের নিয়োগ পরীক্ষা ভণ্ডুল

আপডেট: ফেব্রুয়ারি ২৮, ২০১৭, ১:০৩ পূর্বাহ্ণ

রাবি প্রতিবেদক



রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) উপাচার্যের বাসভবনের সামনে অবস্থান নিয়ে নিয়োগ পরীক্ষা ভণ্ডুল করে দিয়েছেন স্থানীয় আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা। গতকাল সোমবার বিকেল সাড়ে ৩টা থেকে সন্ধ্যা সাড়ে ৬টা পর্যন্ত উপাচার্যের বাসভবনের সামনে অবস্থান কর্মসূচি পালন করেন তারা। ফলে বিকেল ৪টা থেকে পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা থাকলেও তা হয় নি।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, বিকেল ৩টায় উপাচার্যের বাসভবনে একটি কর্মকর্তা পদের নিয়োগ পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে -এমন খবর পেয়ে স্থানীয় আওয়ামী লীগ, যুবলীগ ও ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা ক্যাম্পাসে বিক্ষোভ মিছিল বের করে। পরিবহণ মার্কেটের সামনে থেকে মতিহার থানা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. আলাউদ্দিনের নেতৃত্বে মিছিলটি উপাচার্যের বাসভবনের সামনে গিয়ে অবস্থান নেয়।
পরে সেখানে প্রার্থীরা আসলে পরীক্ষা হবে না জানিয়ে তাদেরকে চলে যাওয়ার নির্দেশ দেন আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা। মতিহার থানা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. আলাউদ্দিন বলেন, ‘প্রশাসন নিজেদের সুবিধামত চাকরিতে ঢোকার বয়সসীমা বাড়াচ্ছে, আবার কমাচ্ছে। বিএনপি-জামায়াতের প্রার্থীদের নিয়োগ দিতে মরিয়া হয়ে উঠেছে। তারা দুই দিন আগে মোবাইলে মেসেজ দিয়ে আজকের নিয়োগ পরীক্ষা নিচ্ছেন, যা কোনোভাবে গ্রহণযোগ্য নয়।’
তিনি আরো বলেন, ‘প্রশাসনের মেয়াদ আর মাত্র ২১ দিন আছে, শেষ সময়ে অনিয়ম করে কোনো নিয়োগ প্রক্রিয়া চালাতে দেয়া হবে না।’
সূত্র জানায়, বিশ্ববিদ্যালয়ের জনসংযোগ দফতরের একজন কর্মকর্তা পদে গত বছরের ১৫ ডিসেম্বর নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ হয়। আবেদনের শেষ তারিখ ছিল ৫ জানুয়ারি। আবেদন যাচাই-বাছাই শেষে ৬ জনকে যোগ্য প্রার্থী হিসেবে বিবেচনা করা হয়। সোমবার বিকেলে তাদের মৌখিক পরীক্ষার তারিখ নির্ধারণ করা হয়।
রাবি উপাচার্য অধ্যাপক ড. মুহম্মদ মিজানউদ্দিন বলেন, ‘বিশ্ববিদ্যালয়ে ৩৫ হাজার শিক্ষার্থী, দেড় হাজার শিক্ষক, সাড়ে ৩/৪ হাজার কর্মকর্তা। অথচ বহিরাগতরা এসে এখানে নিয়োগ প্রক্রিয়া বন্ধ করে দিয়ে যাচ্ছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের কমিউনিটির সদস্যদের মদদ ছাড়া এটা কোনোভাবে সম্ভব ছিল না। বিশ্ববিদ্যালয়ের কারা তাদের মদদ দিচ্ছে, তা এখন দেখার বিষয়।’

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ