রাবিতে বঙ্গবন্ধুর রাজনৈতিক দর্শন শীর্ষক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত

আপডেট: ডিসেম্বর ৪, ২০২১, ৯:৩০ অপরাহ্ণ

রাবি প্রতিবেদক:


রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে (রাবি) ‘বঙ্গবন্ধুর রাজনৈতিক দর্শন’ শীর্ষক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী এবং স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে রাবি প্রশাসন আয়োজনে এই আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

গতকাল শনিবার সকাল এগারোটায় বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ সিনেট ভবনে আলোচনা সভাটি অনুষ্ঠিত হয়েছে।
অনুষ্ঠানে প্রধান আলোচকের বক্তব্যে বিশিষ্ট লেখক ও গবেষক অধ্যাপক ড. মুনতাসীর মামুন বলেন, যে ধর্মনিরপেক্ষতার কথা বলায় বঙ্গবন্ধু অনেকটা একা হয়ে গিয়েছিলেন, সেই ধর্মনিরপেক্ষতার কথা এখন আর খুব একটা শোনা যায়না। মূলত, তৎকালে বারবার দাঙ্গা সংঘটিত হওয়ায়, বঙ্গবন্ধু সেটা বন্ধ করার উদ্দেশ্য নিয়েই ধর্মনিরপেক্ষতাকে দলের অন্যতম মেনিফেস্টো হিসাবে নিয়েছিলেন। বর্তমানে একমাত্র ঘাতক-দালাল নির্মূল কমিটি ছাড়া অন্যদের মুখে ধর্মনিরপেক্ষতার কথাটা শোনা যায়না।

এছাড়া, তিনি বর্তমান কালের শিক্ষকদের ও ছাত্রলীগের সমালোচনা করে বলেন, তারা পুরোপুরি বঙ্গবন্ধুর আদর্শের পক্ষে কাজ করছেনা। আর বিশ্ববিদ্যালয়ের বেশীরভাগ শিক্ষক ভিসি, প্রক্টর, প্রভোস্ট হওয়ার জন্য রাজনীতি করেন, তারা প্রকৃতপক্ষে বঙ্গবন্ধুর আদর্শকে লালন করছেন না। অধ্যাপক মামুন আরও বলেন, বঙ্গবন্ধু বিষয়ক একটা কোর্স সব বিশ্ববিদ্যালয়ে চালু করার সুপারিশ করেছিলেন একসময়, কিন্তু কোনো ভিসিই কর্ণপাত করেননি।

তিনি বর্তমান সরকারের প্রতি প্রশ্ন রেখে বলেন, সরকার বর্তমানে মডেল মসজিদ তৈরি করছে কিন্তু মডেল সাংস্কৃতিক প্রতিষ্ঠান তৈরি করছে না কেনো? এছাড়া তিনি আরো বলেন, রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম থাকা উচিত নয়। বাংলাদেশের একমাত্র প্রগতিশীল মানুষ হলো সাংস্কৃতিক কর্মীরা। তারপরও বর্তমানে বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনা প্রধানমন্ত্রী হিসাবে থাকায় কিছুটা প্রগতিশীলতার চর্চা হচ্ছে বলে মনে করেন তিনি।

রাবি উপাচার্য অধ্যাপক ড. গোলাম সাব্বির সাত্তারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন উপ-উপাচার্যদ্বয় অধ্যাপক ড. চৌধুরী মো. জাকারিয়া ও ড. সুলতানুল ইসলাম। এছাড়াও, অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বিভিন্ন অনুষদের ডিন, বিভাগীয় সভাপতি, সিন্ডিকেট সদস্য, শিক্ষক ও শিক্ষার্থীবৃন্দ।