রাবিতে সশরীরে ক্লাস বন্ধ, চলবে অনলাইন ক্লাস

আপডেট: জানুয়ারি ২১, ২০২২, ৯:৪৫ অপরাহ্ণ


রাবি প্রতিবেদক:


করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ বাড়তে থাকায় আগামী ৬ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে সশরীরে ক্লাস বন্ধের ঘোষণা দিয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। তবে স্ব স্ব বিভাগগুলো চাইলে অনলাইনে ক্লাস চালিয়ে নিতে পারবেন।

স্কুল, কলেজসহ সমমানের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের বিষয়ে সরকারি সিদ্ধান্তের সঙ্গে মিল রেখে এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।
শুক্রবার (২১ জানুয়ারি )সন্ধ্যা ৬টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের জনসংযোগ দপ্তরের প্রশাসক অধ্যাপক প্রদীপ কুমার পান্ডে এসব বিষয় নিশ্চিত করেন। এর আগে সন্ধ্যা ৫টায় এক জরুরি সভার আয়োজন করেন রাবি প্রশাসন।

এ সময় অধ্যাপক প্রদীপ পান্ডে বলেন, আগামী ৬ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের সশরীরে ক্লাস বন্ধ থাকবে। অফিসগুলো চলবে সীমিত পরিসরে। কেউ চাইলে অনলাইনে ক্লাস নিতে পারবেন। তবে বিভিন্ন বিভাগের পরীক্ষাসমূহ স্বাস্থ্যবিধি মেনে সশরীরে নিতে পারবেন।

এরআগে, এদিন বিকেল ৪টায় বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ না করার আহ্বান জানিয়ে বুদ্ধিজীবী চত্বরে বিক্ষোভ সমাবেশ করেন প্রগতিশীল ছাত্রজোট।
শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলা রাখার দাবিতে রাবি শিক্ষার্থীদের অবস্থান
শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলা রাখার দাবিতে অবস্থান কর্মসূচি করছেন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) সাধারণ শিক্ষার্থীরা। শুক্রবার (২১ জানুয়ারি) বিকেল ৪টা থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ বুদ্ধিজীবী চত্বরে এই কর্মসূচি চালিয়ে যাচ্ছেন তাঁরা।

কর্মসূচিতে ফলিত রসায়ন ও রসায়ন প্রকৌশল বিভাগের শিক্ষার্থী রাকিবুল হাসান রাকিব বলেন, আমরা এর আগে দেখেছি করোনার অজুহাতে প্রথমে কিছুদিনের ছুটি দিয়ে দফায় ছুটি বাড়ানো হয়েছে। এর ফলে আমরা শিক্ষার্থীরা দীর্ঘ সেশনজটের সম্মুখীন হয়েছি। ২০২০ সালে শিক্ষার্থীরা যে বর্ষে ছিল এখনও অনেক বিভাগের শিক্ষার্থী সে বর্ষই পার করতে পারেনি। আবারও যদি বন্ধ হয়ে যায় তাহলে তাদের ভবিষ্যৎ কোনদিকে যাবে। আশা করি বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন তাদের পূর্বের সিদ্ধান্ত বহাল রাখবে।

বাংলাদেশ ছাত্র ফেডারেশন রাবি শাখার সাধারণ সম্পাদক মহব্বত হোসেন মিলন বলেন, গত বৃহস্পতিবার রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন দীর্ঘ আলোচনা করে একটি সিদ্ধান্ত নেয়। আমরা সকল শিক্ষার্থীরাই সেই সিদ্ধান্তকে সাধুবাদ জানিয়েছিলাম। কিন্তু একরাতের মধ্যে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের কি এমন হল যে তারা আবার জরুরী সভা ডেকেছেন। আমরা রাবি শিক্ষার্থীরা মনে করি বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ করে করোনা মোকাবিলা করা সম্ভব না, বরং বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের গবেষণার মাধ্যমে করোনা মোকাবিলার পদ্ধতিগুলো উদ্ভাবন করা সম্ভব।

কর্মসূচিতে বাংলাদেশ ছাত্র অধিকার পরিষদ রাবি শাখার সাংগঠনিক সম্পাদক আমান উল্লাহ খানের সঞ্চালনায় অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন রাজশাহী প্রেসক্লাবের সভাপতি আসলাম-উদ-দৌলা, রাকসু আন্দোলন মঞ্চের আহ্বায়ক আব্দুল মজিদ অন্তর, ভূগোল ও পরিবেশবিদ্যা বিভাগের শিক্ষার্থী লিমন আহমেদ প্রমুখ। কর্মসূচিতে বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন বিভাগের প্রায় ৩০জন শিক্ষার্থী উপস্থিত রয়েছেন।