রাবির ক্রপ সায়েন্স বিভাগ || সভাপতির পদত্যাগ দাবিতে কর্মবিরতি ঘোষণা

আপডেট: ডিসেম্বর ২৭, ২০১৬, ১২:০৬ পূর্বাহ্ণ

রাবি প্রতিবেদক



রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) ক্রপ সায়েন্স অ্যান্ড টেকনোলজি বিভাগের সভাপতির পদত্যাগ দাবিতে বিভাগের দশ জন শিক্ষক অ্যাকাডেমিক ও প্লানিং কমিটির মিটিং বর্জন এবং কর্মবিরতি পালনের ঘোষণা দিয়েছে। গতকাল সোমবার দুপুরে বিভাগের শিক্ষকরা সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান।
ক্রপ সায়েন্স এন্ড টেকনোলজি বিভাগের সভাপতির অধ্যাপক মো. মোসলেহ্ উদ্দীনের বিরুদ্ধে স্বেচ্ছাচারিতা ও সহকর্মীদের সাথে অসদারণসহ নানা অভিযোগ এনে পদত্যাগের দাবি জানান শিক্ষকরা।
শিক্ষকরা অভিযোগ করেন, বিভাগের যে কোনো কাজে অধ্যাপক মো. মোসলেম উদ্দীন স্বেচ্ছাচারিতা দেখান। বিভাগের যে কোনো সভায় অন্য শিক্ষকদের কোনো কথা বলার সুযোগ দেন না তিনি। তিনি শিক্ষকদের সাথে অসদাচরণ করেন।
শিক্ষকরা জানান, আগামী ২৮ ডিসেম্বর সকাল ১০টা থেকে দুপুর ১২টা এবং ২ জানুয়ারি সকাল ৯টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত বিভাগে কর্মবিরতি পালন করা হবে। ২ জানুয়ারি দুপুর ২টার মধ্যে সভাপতি পদত্যাগ না করলে পরবর্তীতে নতুন কর্মসূচি দেয়া হবে। বিভাগের সকল পরীক্ষা কর্মসূচির আওতামুক্ত থাকবে বলে শিক্ষকরা জানান।
এর আগে গত ১০ ডিসেম্বর বিভাগে কৃষিবিদ ও অকৃষিবিদ প্রসঙ্গ তুলে শিক্ষকদের মধ্যে সুসম্পর্ক নষ্ট করার ষড়যন্ত্রের অভিযোগ এনে সভাপতির পদত্যাগ দাবিতে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য বরাবর লিখিত অভিযোগ করেন শিক্ষকরা। বিভাগের সভাপতিসহ মোট ১৩ জন শিক্ষকের মধ্যে ১০ জন শিক্ষক লিখিত অভিযোগে স্বাক্ষর করেন।
সভাপতির পদত্যাগ দাবিকারী শিক্ষকরা হলেন, অধ্যাপক ড. মু. আলী আসগর, অধ্যাপক ড.এম আল বাকী বরকতুল্লাহ, অধ্যাপক ড.নুরুল আলম, অধ্যাপক ড.আব্দুল বারী, অধ্যাপক ড.খাইরুল ইসলাম, অধ্যাপক হাফিজুর রহমান, অধ্যাপক একেএম আবদুল বারী, অধ্যাপক সাইফুল ইসলাম, অধ্যাপক আবুল কালাম আজাদ ও অধ্যাপক কাওছার আলী।
এ বিষয়ে যোগাযোগ করা হলে বিভাগের সভাপতি অধ্যাপক মোসলেহ্ উদ্দীন বলেন, ‘আমি বাইরে আছি। বিভাগের যা কিছু হচ্ছে, সবই আমার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র।’
এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ে উপউপাচার্য প্রফেসর চৌধুরী সাওয়ার জাহান বলেন, ‘শিক্ষার্থীদের জিম্মি করে কর্মবিরতি পালন করা সত্যিই দুঃখজনক। তাদের কোনো অভিযোগ থাকলে কর্তৃপক্ষ সেই বিষয়টি দেখবে এবং নিশ্চয়ই কোনো সমাধান দেবে।’