রাবির টিএসসিসি ভবন পুনঃনির্মাণের দাবি

আপডেট: ডিসেম্বর ২২, ২০১৬, ১১:৩৫ অপরাহ্ণ

রাবি প্রতিবেদক



রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের নবনির্মিত টিএসসিসি পুনঃনির্মাণের দাবি জানিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় সাংস্কৃতিক জোট। নির্মিত ভবনের আসন সংখ্যা সীমিত, মহড়া কক্ষ ছোট, সংস্কৃতি চর্চার যুযোপযোগী ব্যবস্থা ও সুযোগ-সুবিধা পর্যাপ্ত নয় বলে অভিযোগ করেছে সংগঠনটি। টিএসসিসি ভবন পুননির্মাণ ও টিএসসিসির বর্তমান নীতিমালা সংস্কার করার দাবিতে গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য বরাবর স্মারকলিপি দিয়েছে জোটের নেতাকর্মীরা।
স্মারকলিপিতে সাংস্কৃতিক জোট অভিযোগ করে, ৩৫ হাজার শিক্ষার্থী ও দেড় হাজার শিক্ষকদের বিশ্ববিদ্যালয়ে মাত্র ৩০০ আসনের নবনির্মিত ছাত্র-শিক্ষক সাংস্কৃতিক কেন্দ্র (টিএসসিসি) সুষ্ঠু সংস্কৃতি চর্চার পথে বাধা। টিএসসিসিতে সংস্কৃতি চর্চার যুযোপযোগী ব্যবস্থা ও সুযোগ-সুবিধা এবং ছাত্র-শিক্ষকদের সম্মিলনের পর্যাপ্ত পরিসর নেই। নবনির্মিত টিএসসিসি ভবনে মহড়া কক্ষগুলো এতই ছোট যে, সেখানে মহড়ার উপযোগী কোন পরিবেশ নেই।
স্মারকলিপিতে বলা হয়, দীর্ঘদিনের আন্দোলনের প্রেক্ষিতে টিএসসিসি প্রতিষ্ঠার নামে কিছু পদ সৃষ্টি এবং শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে অর্থ নেয়া হলেও পূর্ণাঙ্গ টিএসসিসি ভবন আজ অবধি বাস্তাবায়িত হয়নি।
গতকাল দুপুরে রাবি সাস্কৃতিক জোটের সভাপতি আবদুল মজিদ অন্তর ও সাধারণ সম্পাদক আকাশ কুমারের নেতৃত্বে জোটের একটি প্রতিনিধি দল বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসন ভবনে উপাচার্যের কার্যালয়ে এ স্মারকলিপি দেন।
গত ১৬ ডিসেম্বর ‘শহিদ সুখরঞ্জন সমাদ্দার ছাত্র-শিক্ষক সাংষ্কৃতিক কেন্দ্র’ নামে টিএসসিসি’র নবনির্মিত ভবনের আনুষ্ঠানিক কার্যক্রম শুরু হয়। এর আগে ২০১৫ সালের ২৮ অক্টোবর এই ভবনের উদ্বোধন করেন সংস্কৃতি মন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর।
এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক মুহম্মদ মিজানউদ্দিন বলেন, ‘সাংস্কৃতিক কর্মী ও সাধারণ শিক্ষার্থীদের প্রয়োজনগুলো দেখার জন্যই মূলত টিএসসিসি ভবন। তাদের যে প্রয়োজন আছে সেগুলো আমরা দেখবো। বেশি সংখ্যক দর্শকের অনুষ্ঠান হলে কাজী নজরুল ইসলাম মিলনায়তনে তা করতে হবে।’