রাবি উপাচার্যের মেয়াদ শেষ, পরবর্তী প্রশাসনের অপেক্ষা

আপডেট: মার্চ ২০, ২০১৭, ১২:২৯ পূর্বাহ্ণ

রাবি প্রতিবেদক


রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের বর্তমান উপাচার্য অধ্যাপক মুহম্মদ মিজানউদ্দিন ও উপ-উপাচার্য অধ্যাপক চৌধুরী সারওয়ার জাহানের প্রশাসনের মেয়াদ শেষ হয়েছে। এই প্রশাসনের শেষ কার্যদিবস ছিল গতকাল রোববার। ফলে বিশ্ববিদ্যালয়ে পরবর্তী প্রশাসনের অপেক্ষা শুরু হয়েছে।
বিশ্ববিদ্যালয় সূত্রে জানা যায়, ১৯৭৩-এর অধ্যাদেশ অনুযায়ী বিশ্ববিদ্যালয়ের আচার্য (রাষ্ট্রপতি) সিনেট মনোনীত তিনজনের একটি প্যানেল থেকে একজনকে উপাচার্য হিসেবে চার বছরের জন্য নিয়োগ দেবেন। তবে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের প্রধান দুই কর্তাব্যক্তি নিয়োগের ক্ষেত্রে গত কয়েক দশক ধরে তা মানা হচ্ছে না।
সংশ্লিষ্ট সূত্র বলছে, বিগত কয়েকটি প্রশাসনের প্রধান দুই পদে নিয়োগের ক্ষেত্রে সরকারদলীয়দেরই প্রাধান্য দেয়া হয়েছে। এক্ষেত্রে রাজনৈতিক মতাদর্শ, লবিং, সুপারিশ অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হয়ে দাঁড়ায়। বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা ভাবছেন রাজনৈতিক আশির্বাদপুষ্ট কাউকেই প্রশাসনের দায়িত্ব দেয়া হবে।
জানা গেছে, বর্তমান সময়ে প্রশাসনের কর্তাব্যক্তি নিয়োগে প্রধানমন্ত্রী তার সুপারিশ আচার্যের কাছে প্রেরণ করেন। সেই সুপারিশ অনুযায়ীই আচার্য বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য নিয়োগ দিয়ে থাকেন। তাই প্রশাসনের প্রধান দুই পদে আসার জন্য অনেক শিক্ষকই দৌড়ঝাঁপ শুরু করেছেন। রাজনৈতিক দলের নেতা, বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন, শিক্ষা মন্ত্রণালয়সহ বিভিন্ন দফতরেও নিয়মিত যোগাযোগ করছেন।
পরবর্তী প্রশাসনে কারা দায়িত্ব পান তা নিয়ে ক্যাম্পাসে চলছে জোর গুঞ্জন। প্রধান দুই পদের দৌড়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের অনেক শিক্ষকই উর্ধ্বতন পর্যায়ে যোগাযোগ ও লবিং চালাচ্ছেন বলে জানা গেছে।
২০১৩ সালের ২০ মার্চ ২২ তম উপাচার্য হিসেবে অধ্যাপক মুহম্মদ মিজানউদ্দিন ও ১২ তম উপ-উপাচার্য অধ্যাপক চৌধুরী সারওয়ার জাহান নিয়োগ পান। দায়িত্ব শেষ হলে তারা নিজ নিজ বিভাগে শিক্ষকের দায়িত্বে ফিরে যাবেন।
প্রসঙ্গত, ১৯৫৩ সালে এ বিশ্ববিদ্যালয় যাত্রা শুরু করে। তৎকালীন শিক্ষাবিদ ড. ইতরাত হোসেন জুবেরী ছিলেন এই বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রথম উপাচার্য।
এদিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর মুহম্মদ মিজানউদ্দিন ও উপউপাচার্য প্রফেসর চৌধুরী সারওয়ার জাহান তাদের মেয়াদ পূর্তি উপলক্ষ্যে গতকাল রোববার বেলা ১১টায় প্রশাসন ভবনের কনফারেন্স রুমে বিশ্ববিদ্যারয়ের দফতর প্রধানদের সঙ্গে মতবিনিময়ে মিলিত হন। এসময় উপাচার্য ও উপউপাচার্য তাদের দায়িত্ব পালনে সহযোগিতা প্রদান করায় সংশ্লিষ্ট সকলের প্রতি ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন। বিশ্ববিদ্যালয়ের সামগ্রিক কর্মকাণ্ডে আগামীতেও সংশ্লিষ্ট সকলের অনুরূপ সহযোগিতা বজায় থাকবে বলেও আশাবাদ ব্যক্ত করেন।
এসময় অন্যদের মধ্যে কোষাধ্যক্ষ প্রফেসর সায়েন উদ্দিন আহমেদ ও রেজিস্ট্রার প্রফেসর মুহাম্মদ এন্তাজুল হকও উপস্থিত ছিলেন। উপাচার্য ও উপ-উপাচার্যের শেষ কার্যদিবসে গতকাল সিন্ডিকেট সদস্যবৃন্দ, হল প্রাধ্যক্ষ, ইনস্টিটিউট পরিচালক, অনুষদ অধিকর্তা ও বিভাগীয় সভাপতিবৃন্দ, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতিসহ গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিবর্গ তাদের সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাত করে অভিনন্দন জানান।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ