রাবি উপাচার্য ও উপাচার্যের অপসারণের দাবি || ছুটি শেষে আবারও আন্দোলনে শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা

আপডেট: অক্টোবর ১০, ২০১৯, ১:০০ পূর্বাহ্ণ

রাবি প্রতিবেদক


আবরার হত্যা বিচার দাবিতে রাবিতে বিক্ষোভ-সোনার দেশ

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যায়ের (রাবি) উপ-উপাচার্য অধ্যাপক চৌধুরী মো. জাকারিয়ার জামাতাকে শিক্ষক নিয়োগ, নিয়োগে দুর্নীতি ও অনিয়মের তদন্ত ও প্রশাসনের অপসারণের দাবিতে মৌন মিছিল ও সমাবেশ করেছে শিক্ষকরা। গতকাল বুধবার একই দাবিতে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিল করেছে শিক্ষার্থীরা। এর আগে ছুটির পরে লাগাতার আন্দোলনের ঘোষণা দিয়েছিল শিক্ষকরা।
বর্তমান প্রশাসনকে ‘স্বাধীনতা বিরোধী ও দুর্নীতিবাজ’ আখ্যা দিয়ে ‘দুর্নীতিবিরোধী শিক্ষক সমাজ’র ব্যানারে বেলা ১১টার দিকে শিক্ষকরা মৌন মিছিল করেন। এসময় তাদের হাতে নিয়োগে অনিয়ম ও দুর্নীতি প্রসঙ্গে প্রতিবাদ ও তদন্তের দাবি সম্বলিত প্ল্যাকার্ড দেখা যায়। পরে বিশ্ববিদ্যালয়ের তাজউদ্দিন আহমেদ সিনেট ভবনের সামনে সমাবেশে মিলিত হন তারা।
এদিকে একই সময় ‘সন্ত্রাস ও দুর্নীতির বিরুদ্ধে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়’র ব্যানারে কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগারের সামনে মানববন্ধন পালন করে শিক্ষার্থীরা। মানববন্ধন শেষে আবরার হত্যার বিচার ও বর্তমান প্রশাসনের দুর্নীতির তদন্ত দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল নিয়ে ক্যাম্পাস প্রদক্ষিণ করে বিভিন্ন বিভাগের শতাধিক শিক্ষার্থী।
গত ৩০ সেপ্টেম্বর বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য অধ্যাপক চৌধুরী মো. জাকারিয়ার সঙ্গে আইন বিভাগের এক চাকরি প্রত্যাশীর স্ত্রীর দর কষাকষির ফোনালাপ ফাঁস হয়। এতে উপ-উপাচার্যের জামাতা ও এক আওয়ামী লীগ নেতার মেয়ে নিয়োগ পেলেও প্রধানমন্ত্রী স্বর্ণপদক পাওয়া নুরুল হুদা নামের ওই চাকরি প্রত্যাশীর নিয়োগ হয়নি। তবে অভিযোগ অস্বীকার করে নিয়োগে আইন বিভাগের সভাপতি জড়িত বলে উপ-উপাচার্য পাল্টা অভিযোগ করেন। এর প্রেক্ষিতে নিজে বাঁচতে উপ-উপাচার্য অন্যকে ফাঁসাচ্ছেন বলে অভিযোগ করেন বিভাগের সভাপতি অধ্যাপক আবদুল হান্নান। ১ অক্টোবর থেকে নিয়োগে অনিয়ম ও দুর্নীতির তদন্ত এবং প্রশাসনের পদত্যাগ দাবিতে লাগাতার আন্দোলন কর্মসূচি পালন করে আসছে শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা।