রাবি ছাত্রকে আটকে রেখে চাঁদা আদায়

আপডেট: জুলাই ২৩, ২০১৭, ১২:৫৪ পূর্বাহ্ণ

রাবি প্রতিবেদক
রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের সান্ধ্যকালীন কোর্সের এক ছাত্রকে আটকে রেখে চাঁদা আদায়ের অভিযোগ পাওয়া গেছে। গত শুক্রবার রাতে রাজশাহী শহরের ভাঙ্গড়িপট্টিতে এ ঘটনা ঘটে। পরে বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের কয়েকজন নেতাকর্মীর সহায়তায় গতকাল শনিবার দুপুরে জড়িতদের সনাক্ত করে ওই টাকা উদ্ধার করা হয়।
ভুক্তভোগী শিক্ষার্থীর নাম নাজমুস সাকিব। তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের আইবিএ’র সান্ধ্যকালীন কোর্সেও ১৫ ব্যাচের শিক্ষার্থী।
ভুক্তভোগী সাকিব শনিবার বিকেলে জানান, শুক্রবার সন্ধ্যার পর আমি শহরের অলকার মোড় থেকে বাটার মোড় এলাকায় আসলে দু’জন যুবক আমাকে পথরোধ করে। তারা ছুরি দেখিয়ে আমার কাছ থেকে দুটি মোবাইল ফোন ও আমার সঙ্গে থাকা নগদ পনের’শ টাকা ছিনিয়ে নেয়। পরে তারা আমাকে ভদ্রার ভাঙ্গড়িপট্টিতে নিয়ে যায়। সেখানে আমাকে আটকে রেখে আমার বাড়িতে ফোন দিয়ে বিশ হাজার টাকা দাবি করে। পরে বাড়ি থেকে বিকাশের মাধ্যমে তাদের কাছে দশ হাজার টাকা পাঠানো হলে তারা দুটি মোবাইল ফোন ও দুইশ টাকা ফেরত দিয়ে ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যায়।
তিনি আরো জানান, ঘটনার সময় তারা বারবার একটি নম্বরে ফোন দিচ্ছিলেন। আমি কৌশলে ওই নম্বরটি মুখস্থ করি। পরে শনিবার সকালে বিষয়টি বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের জানাই। ছাত্রলীগ নেতারা ওই নম্বরের সূত্র ধরে মেহেরচন্ডির রিনটু ও মোসাদেক সনাক্ত করে। পরে শনিবার দুপুরে মেহেরচণ্ডি এলাকায় গিয়ে তাদের কাছ থেকে দশ হাজার পাঁচশ টাকা উদ্ধার করে দেন।
এ বিষয়ে রাবি ছাত্রলীগের যুগ্মসাধারণ সম্পাদক সাদ্দাম হোসেন সজীব বলেন, ‘বিষয়টি আমাদেরকে জানালে জড়িতদের সনাক্ত করার পর মেহেরচণ্ডি এলাকায় গিয়ে তাদের কাছ থেকে দশ হাজার পাঁচশ টাকা উদ্ধার করি। টাকা দিয়েই তারা পালিয়ে যায়।’

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ