রাবি শিক্ষার্থীকে মারধরের প্রতিবাদে মানববন্ধন

আপডেট: মার্চ ১৫, ২০১৭, ১২:১৯ পূর্বাহ্ণ

রাবি প্রতিবেদক



রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ম্যানেজমেন্ট স্টাডিজ বিভাগের দুই শিক্ষার্থীকে স্থানীয় যুবলীগের মারধরের প্রতিবাদে ক্লাস বর্জন করে মানববন্ধন করেছে বিভাগের শিক্ষার্থীরা। গতকাল মঙ্গলবার দুপুর ১২টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগারে সামনে আয়োজিত মানববন্ধনে বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষার্থীরা উপস্থিত ছিলেন।
মানববন্ধনে শিক্ষার্থীরা বলেন, প্রায়ই বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা স্থানীয়দের হাতে লাঞ্ছিত হচ্ছে, মারধরের শিকার হচ্ছে। এসব ঘটনায় জড়িতদের বিরুদ্ধে কোনও পদক্ষেপ না নেওয়ায় বারবার পুনরাবৃত্তি হচ্ছে। এতে ক্যাম্পাসে চাঁদাবাজি, মাদক ব্যবসা ও ছিনতাইয়ের ঘটনা দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। খেলার মাঠগুলোতেও স্থানীয়রা আধিপত্য বিস্তার করার চেষ্টা করে।
শিক্ষার্থীরা এসব ঘটনা প্রতিরোধে জড়িতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা না নেয়া পর্যন্ত আন্দোলনের হুঁশিয়ারি দেন। তারা বলেন, ‘আজ আমরা শান্তিপূর্ণভাবে আন্দোলন করেছি। কিন্তু দ্রুত জড়িতদের শাস্তি না হলে আমরা কঠোর হতে বাধ্য হবো।’
ম্যানেজমেন্ট স্টাডিজ বিভাগের মাস্টার্সের শিক্ষার্থী ইকবাল মোড়লের সঞ্চালনায় মানববন্ধনে বক্তব্য দেন বিভাগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি সহযোগী অধ্যাপক নাসিম রেজা, সহকারী অধ্যাপক কেএম সাব্বির হাসান, জহুরুল আনিস, শিক্ষার্থী ফয়েজ আহমেদ, মৌসুমী কবির, আজাদ, আসলাম, আসিফ ও ওমর ফারুক প্রমুখ।
এ ঘটনায় জড়িতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে মানবন্ধন শেষে শিক্ষার্থীরা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক মজিবুল হক আজাদ খানের কাছে লিখিত অভিযোগ জমা দেন।
শিক্ষার্থীরা জানান, সোমবার রাত নয়টার দিকে ম্যানেজমেন্ট বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের এনামুল হক পলাশ ও সুজন মিঞা বিশ্ববিদ্যালয়ের পাশ্ববর্তী মির্জাপুর থেকে বিনোদপুরের দিকে আসছিলেন। এসময় স্থানীয় যুবলীগের কার্যালয় থেকে কয়েকজন নেতাকর্মী বের হয়ে অতর্কিত তাদের চড়থাপ্পর ও কিলঘুষি মারতে থাকে।
এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক মজিবুল হক আজাদ খানের সাথে বারবার যোগাযোগ করা হলে তিনি মিটিং-এ আছেন বলে ফোন কেটে দেন।
বিশ্ববিদ্যালয়ের উপউপাচার্য অধ্যাপক চৌধুরী সারওয়ার জাহান বলেন, ‘এ বিষয়ে আজ আমরা আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সঙ্গে কথা বলেছি। যদিও এই ইস্যুতে কোনও মামলা হয়নি, তারপরেও ক্যাম্পাসে নজরদারি বাড়াতে তাদের প্রতি অনুরোধ জানিয়েছি। তারা বিষয়টা গুরুত্ব সহকারে দেখবে বলে জানিয়েছে।’