রাবি সাংবাদিকের বিরুদ্ধে মামলা, প্রতিবাদ

আপডেট: মার্চ ৩, ২০১৭, ১২:০৭ পূর্বাহ্ণ

রাবি প্রতিবেদক
সংবাদ প্রকাশের জেরে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে (রাবি) কর্মরত এক সাংবাদিকের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছেন এক ছাত্রলীগের নেতা। গত বুধবার রাতে নগরীর মতিহার থানায় তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি আইনের  ৫৭ ধারায় এ মামলা দায়ের করা হয়।
মামলায় আসামি করা হয়েছে দৈনিক আলোকিত বাংলাদেশের রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি মো. মোস্তাফিজুর রহমানকে। তিনি রাবির গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের মাস্টার্সের শিক্ষার্থী এবং রাবি সাংবাদিক সমিতির সহ-সভাপতি। মামলার বাদী মো. মিনারুল ইসলাম ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য।
জানা যায়, গত বছরের ৮ ডিসেম্বর রাবি শাখা ছাত্রলীগের সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। সম্মেলনের দুই দিন পরও কমিটি না দেয়ার বিষয়ে ১০ ডিসেম্বর দৈনিক আলোকিত বাংলাদেশেল অনলাইন সংস্করণে ‘রাবি ছাত্রলীগের কমিটি  নিয়ে গড়িমসি’ শিরোনামে সংবাদ প্রকাশ হয়।
প্রকাশিত সংবাদে ছাত্রলীগের সভাপতি পদপ্রার্থী মিনারুল ইসলাম বিবাহিত, শিবিরের রাজনীতি, প্রক্সি জালিয়াতিতে যুক্ত বলে উল্লেখ করা হয়। এর প্রেক্ষিতে গত ১৮ জানুয়ারি ছাত্রলীগ নেতা মিনারুল নগরীর মতিহার থানায় সংবাদটি ‘মিথ্যা, বানোয়াট ও ভিত্তিহীন’ দাবি করে অভিযোগ দায়ের করেন। যাচাই-বাছাই শেষে ১ মার্চ (বুধবার রাতে) অভিযোগটি মামলা আকারে রেকর্ড করে মতিহার থানা পুলিশ। মামলার এজহারে বলা হয়েছে, ‘এ ধরনের খবর প্রকাশ হওয়া বাদী সামাজিক, রাজনৈতিকভাবে হেয় প্রতিপন্ন হয়েছেন এবং তার প্রভূত ক্ষতি হয়েছে।’
হয়রানিমূলক মামলার নিন্দা ও প্রতিবাদ : এদিকে আলোকিত বাংলাদেশের প্রতিনিধি মোস্তাফিজুর রহমানের নামে মামলা দায়েরের ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয়ে কর্মরত সাংবাদিকরা।
রাবি সাংবাদিক সমিতির সভাপতি হাসান আদিব ও সম্পাদক মুস্তাফিজ রনি বিবৃতিতে বলেন, ক্যাম্পাস সাংবাদিকতা বৃহৎ পরিসরে দেশের সাংবাদিকতাকে বিকশিত করছে। রাবিতেও স্বাধীনতার পর থেকে বিভিন্ন গণমাধ্যমে কর্মরত সংবাদ কর্মীরা পেশাদারিত্ব ও বস্তুনিষ্ঠতার সঙ্গে সংবাদ প্রকাশ করে আসছেন। ক্যাম্পাস সাংবাদিকতা কে বাধাগ্রস্ত করতে বিভিন্ন মহল ঘৃণ্য ষড়যন্ত্রে লিপ্ত হয়েছে। সাংবাদিক মোস্তাফিজুরের নামে দায়ের হওয়ার মামলা তারই অংশ বলে আমরা মনে করি।
অবিলম্বে তারা মামলা প্রত্যাহারের দাবি জানান।
এদিকে পৃথক বিবৃতিতে মামলা দায়েরের প্রতিবাদ জানিয়েছেন রাবি রিপোটার্স ইউনিটি। সংগঠনটির সভাপতি কায়কোবাদ খান ও সম্পাদক হুসাইন মিঠু দ্রুত হয়রানিমূলক মামলা প্রত্যাহারের দাবি জানান।