রামেক হাসপাতালে রোগির স্বজনদের সঙ্গে ইন্টার্ন চিকিৎসকদের সংঘর্ষ || চিকিৎসা অবহেলায় রোগি মৃত্যুর অভিযোগ

আপডেট: নভেম্বর ১৪, ২০১৬, ১২:০০ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক



রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় এক রোগির মৃত্যুকে কেন্দ্র করে তুলকালাম কা- ঘটেছে। ইন্টার্ন চিকিৎসকদের সঙ্গে স্বজনদের হাতাহাতি ও সংঘর্ষের ঘটনাও ঘটেছে। গতকাল রোববার দুপুর দেড়টার দিকে হাসপাতালের ৮ নম্বর ওয়ার্ডে এ ঘটনা ঘটে। এ নিয়ে হাসপাতালে উত্তেজনা বিরাজ করছে।
হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে, দুপুরে ওই ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মহসিন আলী (৭৫) নামে এক বৃদ্ধের মৃত্যু হয়। মহসিন আলীর বাড়ি পবা উপজেলার মদনহাট এলাকায়। শনিবার সড়ক দুর্ঘটনায় আহত হলে হাসপাতালে ভর্তি করা হয় তাকে। দুপুরে ওই ওয়ার্ডে দায়িত্ব পালন করছিলেন ইন্টার্ন চিকিৎসক শফিকুল ইসলাম অপু। তিনি রামেক ছাত্রলীগের সভাপতি।
মহসিন আলীর মৃত্যুর পর তার দুই ছেলে নজরুল ইসলাম (৪৫) ও আনারুল ইসলাম (২৫) চিকিৎসায় অবহেলার কারণে তাদের বাবার মৃত্যুর অভিযোগ তুলে ইন্টার্ন চিকিৎসক শফিকুল ইসলাম অপুকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ শুরু করেন। এ সময় তাদের মধ্যে বাকবিত-া শুরু হয়।
একপর্যায়ে হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। এ সময় অন্যান্য ইন্টার্ন চিকিৎসকরা একত্রিত হয়ে মহসিনের স্ত্রী রাহেলা বিবি (৫৫) ও দুই ছেলের ওপর হামলা করেন। এতে তারা আহত হন। এ সময় তাদের আটক করে রাখা হয়। পরে পুলিশ গিয়ে তাদের থানায় নিয়ে যায়।
হাসপাতালের উপপরিচালক ডা. তৌফিক উদ্দিন মোহাম্মদ বেলাল বলেন, রোগির স্বজনদের হাতে লাঞ্ছিত হয়ে ইন্টার্ন চিকিৎসকরা হাসপাতালের পক্ষ থেকে থানায় মামলা করার দাবি তুলেছে। এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়েছে। তবে চিকিৎসা অবহেলায় মৃত্যুর অভিযোগ ঠিক না।
নগরীর রাজপাড়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আমান উল্লাহ বলেন, এ ব্যাপারে থানায় মামলা দায়ের হয়েছে। ঘটনার সঙ্গে সম্পৃক্তদের মধ্যে একজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। বাকিদের গ্রেফতারের জন্য অভিযান শুরু করেছে পুলিশ।