রামেক হাসপাতালে ১৪ দিনে করোনা ইউনিটে ১৩৬ জনের মৃত্যু

আপডেট: জুন ১৪, ২০২১, ১০:২৬ অপরাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক :


রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের করোনা ইউনিটে চলতি মাসের গত ১৪ দিনে (১ জুন সকাল ৬টা থেকে ১৪ জুন সকাল ৬টা পর্যন্ত) মারা গেছেন ১৩৬ জন। এর মধ্যে ৮০ জনই মারা গেছেন করোনা শনাক্ত হওয়ার পর। বাকিরা উপসর্গ নিয়ে মারা যান। এর মধ্যে ১ জুন- সাতজন, ২ জুন- সাতজন, ৩ জুন- নয়জন, ৪ জুন- ১৬ জন, ৫ জুন- ৮ জন, ৬ জুন- ছয়জন, ৭ জুন- ১১ জন, ৮ জুন- আটজন, ৯ জুন- আটজন, ১০ জুন- ১২ জন, ১১ জুন- ১৫ জন, ১২ জুন- ৪ জন, ১৩ জুন- ১৩ জন ও ১৪ জুন- ১২ জন মারা যান।
অন্যদিকে রোববার আরও ১২ জনের মৃত্যু হয়েছে। এর মধ্যে ১০ জনের করোনা পজিটিভ ছিল। বাকি দুইজন মারা যান উপসর্গ নিয়ে। রামেক হাসপাতালের পরিচালক বিগ্রেডিয়ার জেনারেল শামীম ইয়াজদানী বলেন, মারা যাওয়া ১২ জনের মধ্যে সাতজন পুরুষ ও পাঁচজন নারী। রোববার সকাল ৬টা থেকে সোমবার (১৪ জুন) সকাল ৬টার মধ্যে এই ১২ জন রোগী মারা যান। ১২ জনের মধ্যে রাজশাহীর তিনজন, চাঁপাইনবাবগঞ্জের ছয়জন, নাটোরের দুইজন ও মেহেরপুরের একজন।
শামীম ইয়াজদানী আরও জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন ৪৪ জন। এর মধ্যে রাজশাহীর ৩৩, চাঁপাইনবাবগঞ্জের পাঁচ, নওগাঁ ও পাবনার দুইজন করে এবং নাটোর ও কুষ্টিয়ার একজন করে। একই সময় সুস্থ হয়েছে হাসপাতাল ছেড়েছেন ২৬ জন। তিনি বলেন, সোমবার সকাল ৬টা পর্যন্ত এ হাসপাতালের ২৭১ বেডের বিপরীতে ভর্তি রয়েছেন ৩০৭ জন। অতিরিক্ত বেডের ব্যবস্থা করে ৩৬ জন রোগিকে রেখে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। রোগির চাপ থাকায় আরেকটি ওয়ার্ড তৈরি করা হচ্ছে। অক্সিজেন সুবিধাসহ নতুন ওয়ার্ডটি প্রস্তুত করা হচ্ছে।
শামীম ইয়াজদানী বলেন, যাদের অক্সিজেন প্রয়োজন হচ্ছে তাদের শুধু ভর্তি করা হচ্ছে। অন্যদের ব্যবস্থাপত্র দিয়ে বাড়ি থেকেই চিকিৎসার ব্যবস্থা করা হচ্ছে। সবাইকে হাসপাতালে ভর্তি করা হলে পুরো হাসপাতালেও করোনা রোগি রাখার জায়গা হবে না। তিনি আরও বলেন, রাজশাহী নগরের এখন লকডাউন চলছে। আশা করছি দুই সপ্তাহ সর্বাত্মক লকডাউন বাস্তবায়ন হলে ভাল ফল পাব।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ