রামোসের মুখে বার্সার প্রশংসা

আপডেট: মার্চ ১৪, ২০১৭, ১২:১৯ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক



একটু খামতি যেন রয়ে গিয়েছিল। বার্সেলোনার মহাকাব্যিক ‘কামব্যাকের’ সেই অপূর্ণতাটুকুও ঘুচে গেল অবশেষে। চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী রিয়াল মাদ্রিদ থেকে যে সেই মহাকাব্যের স্বীকৃতি পাওয়া গেল! বার্সেলোনার সাফল্য সব সময়ই গায়ে জ্বালা ধরায় রিয়ালের। পিএসজিকে ৬-১ গোলে উড়িয়ে দিয়ে বার্সা চ্যাম্পিয়নস লিগের শেষ আটে ওঠায় খুশি হতে পারে নি স্পেনের সফলতম ক্লাবটির সমর্থকেরা। তবে চোখে দেখা ঘটনাকে তো আর অস্বীকার করা যায় না! রিয়ালের অধিনায়ক সার্জিও রামোস তো স্বীকারই করেছেন বার্সার এমন ফিরে আসার গল্প সত্যিই ঐতিহাসিক।
চ্যাম্পিয়নস লিগের সেই স্বপ্নময় রাতের পর পরশুই প্রথম মাঠে নেমেছে বার্সা। স্প্যানিশ লিগের ম্যাচটিতে দেপোর্তিভো লা করুনিয়ার কাছে ২-১ গোলে হেরে গেছে লুইস এনরিকের দল। একই দিন পরের ম্যাচে রামোসের হেড থেকে করা গোলে রিয়াল মাদ্রিদ ২-১ ব্যবধানে হারিয়েছে রিয়াল বেটিসকে। ম্যাচ শেষে বার্সেলোনা-পিএসজি ম্যাচ নিয়ে প্রশ্ন করা হয় রামোসকে। মেসি-নেইমারদের প্রশংসাই করেন রিয়ালের এই স্প্যানিশ ডিফেন্ডার, ‘ঘুরে দাঁড়াতে অসাধারণ খেলেছে বার্সেলোনা। সবদিক থেকেই এটা ঐতিহাসিক।’
তবে সেই ম্যাচে জার্মান রেফারি ডেনিস আয়তেকিনের কিছু সিদ্ধান্ত জন্ম দিয়েছে অনেক বিতর্কের। বার্সেলোনাকে দুটি পেনাল্টি দিয়েছেন, নাকচ করে দিয়েছেন পিএসজির পেনাল্টির দাবি। সবচেয়ে বেশি বিতর্ক হচ্ছে ম্যাচের শেষ দিকে লুইস সুয়ারেজকে দেওয়া পেনাল্টিটি নিয়েই। রিপ্লেতে দেখা গেছে, পিএসজি ডিফেন্ডার মার্কিনহোসের সঙ্গে আলতো ছোঁয়া লেগেছিল লুইস সুয়ারেজের, তাতেই পড়ে যান বার্সা স্ট্রাইকার। যতটা না ফাউল হয়েছে, সুয়ারেজ তার চেয়ে বেশি পরিস্থিতির ফায়দা লুটেছেন। এই বিতর্ক নিয়ে অবশ্য কিছু বলতে চাননি রামোস, ‘রেফারি? কখনো কখনো তাঁদের সিদ্ধান্ত আপনার পক্ষে যাবে। কখনো কখনো যাবে আপনার বিপক্ষে।’ সূত্র: গোলডটকম,প্রথম আলো অনলাইন।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ