রাসিকের বর্জ্য ব্যবস্থার আধুনিকায়নে ১ম পর্যায়ে ১২টি এসটিএস স্থাপনের উদ্যোগ

আপডেট: June 6, 2020, 11:37 pm

নিজস্ব প্রতিবেদক:


সভায় বক্তব্য দেন সিটি মেয়র এএইএম খায়রুজ্জামান লিটন- সোনার দেশ

রাজশাহী সিটি করপোরেশনের (রাসিক) বর্জ্য ব্যবস্থাপনার আধুনিকায়নে ১ম পর্যায়ে ১২টি অত্যাধুনিক সেকেন্ডারি ট্রান্সফার স্টেশন (এসটিএস) নির্মাণের উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে। পর্যায়ক্রমে বাকি ওয়ার্ডগুলোতেও এসটিএস নির্মাণ করা হবে।
গতকাল শনিবার দুপুরে নগর ভবনের সরিৎ দত্ত গুপ্ত সভাকক্ষে সিটি মেয়র এ.এইচ.এম খায়রুজ্জামান লিটনের সাথে কাউন্সিলরবৃন্দ, বর্জ্য ব্যবস্থাপনা স্থায়ী কমিটি এবং কঞ্জারভেন্সী বিভাগের কর্মকর্তাদের মতবিনিময় সভায় এই তথ্য জানানো হয়।
সভায় সভাপতির বক্তব্যে মেয়র খায়রুজ্জামান লিটন বলেন, বর্জ্য ব্যবস্থাপনার আধুনিকায়নে ৩০টি নগরীতে এসটিএস নির্মাণ করা প্রয়োজন। পর্যায়ক্রমে এসব এসটিএস নির্মাণের পরিকল্পনা রয়েছে। ১ম পর্যায়ে ১২টি এসটিএস নির্মাণে স্থান নির্ধারণ করা হয়েছে। ১ম পর্যায়ের ১ম ধাপে ৪/৫টি এসটিএস নির্মাণ কাজ শিগগিরই শুরু করা হবে।
মেয়র আরো বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বর্জ্য ব্যবস্থাপনার উপর আলাদা একটি প্রকল্প তৈরি করতে বলেছেন। করোনা পরিস্থিতির সম্মুখীন না হতে হলে এতোদিনে আমরা প্রকল্পটি তৈরি করতাম।
মেয়র আরো বলেন, প্রথম মেয়াদে ২০১০ সালে নগরীর বড় বড় ড্রেনের কাদামাটি উত্তোলন কাজ কিছুটা করেছিলাম। এর সুফল নগরবাসী পেয়েছেন। এবার ৯০ দিনব্যাপি নগরীর সকল বড় বড় ড্রেনের কাদামাটি উত্তোলন কাজ শেষ পর্যায়ে। এর সুফলও নগরবাসী পাবেন। ড্রেন পরিষ্কার কাজ বেশ ঝুঁকিপূর্ণ। ঝুঁকি নিয়ে ড্রেনের কাদামাটি উত্তোলন কাজ সম্পন্ন করায় সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিবর্গসহ শ্রমিকদের ধন্যবাদ জানাই।
ডেঙ্গু প্রতিরোধে মহানগরবাসীকে সচেতন হওয়ার আহ্বান জানিয়ে মেয়র বলেন, করোনা মোকাবেলা ও ডেঙ্গু প্রতিরোধে আমরা বিভিন্ন উদ্যোগ গ্রহণ করেছি। মহানগরবাসীকেও নিজ নিজ জায়গা থেকে সচেতন হতে হবে।
সভায় বক্তব্য দেন বর্জ্য ব্যবস্থাপনা স্থায়ী কমিটির সভাপতি, প্যানেল মেয়র-১ ও ১২ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর সরিফুল ইসলাম বাবু, ২১ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর নিযাম উল আযিম, ৩ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর কামাল হোসেন, ৫ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর মো. কামরুজ্জামান, ১৩ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর আব্দুল মমিন, ১৪ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর আনোয়ার হোসেন, ১৮ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর শহিদুল ইসলাম, ১৯ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর তৌহিদুল হক সুমন, প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ড. এবিএম শরীফ উদ্দিন, সচিব আবু হায়াত মো. রহমতুল্লাহ। সভায় পরিচালনা করেন, প্রধান পরিচ্ছন্ন কর্মকর্তা শেখ মো. মামুন ডলার।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ