রাসিক শ্রমিক-কর্মচারীদের আন্দোলন অব্যাহত

আপডেট: জুলাই ১২, ২০১৭, ১:৩৪ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক


টানা তৃতীয় দিনের মত গতকাল মঙ্গলবার সকালেও নগর ভবনের প্রধান ফটকে অবস্থান নিয়ে সমাবেশ করেছেন শ্রমিক ও কর্মচারীরা। সকাল থেকে বিকেল পাঁচটা পর্যন্ত চলে এ কর্মসূচি। গতকালও নগর ভবনে প্রবেশে ব্যর্থ হয়েছেন সংশ্ল্ষ্টি কর্মকর্তা ও সেবাপ্রার্থীরা। রাসিক কর্মচারী ইউনিয়নের ব্যানারে চলমান এ আন্দোলনে থমকে গেছে সকল নাগরিক সেবা কার্যক্রম।
রাসিক কর্মচারী ইউনিয়নের সভাপতি দুলাল শেখ বলেন, তাদের প্রধান দাবি মজুরি বৃদ্ধি। এটি তাদের ন্যায় সংগত দাবি। তারা স্থায়ী কর্মচারীদের জ্যেষ্ঠতার ভিত্তিতে পদোন্নতিরও দাবি জানিয়েছেন। এছাড়া স্থায়ী কর্মচারীদের গৃহ নির্মাণ ঋণ, মৃত ও অবসরপ্রাপ্ত কর্মচারীদের পোষ্যদের চাকুরি এবং মৃত ও অবসরপ্রাপ্ত কর্মচারীদের অবসরকালীন ভাতা প্রদান করতে হবে। স্থায়ী কর্মচারীদের বদলি, শোকজ ও বরখাস্ত বন্ধ এবং বরখাস্তকৃতদের চাকুরিতে পুনর্বহাল করতে হবে।
অপরদিকে গতকাল সমাবেশে শ্রমিক-কর্মচারী নেতৃবৃন্দ বলেন, সাংগঠনিক কাঠামো সংশোধন করে নিয়োগের ব্যবস্থা করতে হবে। মজুরিভিত্তিক কর্মচারীদের চাকরি স্থায়ী, কল্যাণ তহবিল বাস্তবায়নে চূড়ান্ত অনুমোদন দিতে হবে। স্থায়ী কর্মচারীদের পোশাক, জুতা ও ছাতা সকল বকেয়া পাওনা পরিশোধ করতে হবে। দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত এ আন্দোলন চালিয়ে যাবার ঘোষণা দিয়েছেন আন্দোলনকারীরা।
বক্তারা বলেন, রাজশাহী সিটি করপোরেশনের শ্রমিক-কর্মচারীদের ন্যায্য দাবি আদায়ের ক্ষেত্রে কয়েকজন কর্মকর্তা প্রতিবন্ধকতার সৃষ্টি করছেন। এর মধ্যে প্রধান প্রকৌশলী আশরাফুল হক অন্যতম। তিনি শ্রমিক-কর্মচারীদের আন্দোলন নসাৎ করার অপচেষ্টায় লিপ্ত রয়েছেন। প্রধান প্রকৌশলী শ্রমিক-কর্মচারীদের ন্যায়সঙ্গত দাবি সম্পর্কে সিটি করপোরেশনের  ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে ভুল ‘ম্যাসেজ’ দিচ্ছেন। তিনি এ ধরনের কার্যক্রম অব্যাহত রাখলে সিটি করপোরেশনে তাকে প্রতিরোধ করা হবে।
প্রসঙ্গত, ১১ দফা দাবিতে গত রোববার থেকে টানা আন্দোলন কর্মসূচিতে রয়েছেন রাসিক’র দৈনিক মজুরিভিত্তিক শ্রমিক ও কর্মচারীরা।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ