রোহিঙ্গাদের কাছ থেকে অর্থ আদায়, ৬ দালালের সাজা

আপডেট: সেপ্টেম্বর ১৬, ২০১৭, ১১:১২ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক


মিয়ানমার সেনাবাহিনীর চলমান অমানবিক নির্যাতন থেকে বাঁচতে বাংলাদেশে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গাদের আশ্রয়ের বিনিময়ে অর্থ আদায়ের অভিযোগে ছয়জনকে সাজা দিয়েছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। কক্সবাজারের উখিয়া উপজেলার থাইংখালী এলাকায় র‌্যাব-৭ এর সদস্যরা অভিযান চালিয়ে তাদের আটকের পর ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে।
শুক্রবার দুপুর ২টার দিকে ভ্রাম্যমাণ আদালত ছয়জনকে বিভিন্ন মেয়াদে কারাদণ্ড দেয়ার পর তাদেরকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।
সাজাপ্রাপ্তদের মধ্যে উখিয়া উপজেলার থাইংখালী হাকীমপাড়ার মৃত হাজী আবদুল হাকিমের ছেলে মনির আহাম্মদের (৪৫) ২০ দিন, মোজাহের মিয়ার ছেলে ফরিদ আলমের (৩০), নূরুল কবীর (৩১), আব্দুস শুক্কুরের ছেলে নূরুল আমিন বাবু (৩৫), মৃত নূর মোহাম্মদের ছেলে জয়নাল আবেদীন (৩৫) এবং মৃত ইলিয়াছের ছেলে শাহাব উদ্দিনের (২৪) ১৫ দিন করে বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেয়া হয়েছে।
র‌্যাব-৭ এর কক্সবাজার ক্যাম্প ইনচার্জ মেজর মো. রুহুল আমিন জানান, অভিযোগ আসছিল উখিয়ার থাইংখালীস্ত হাকীমপাড়ায় কিছু দুষ্কৃতকারী রোহিঙ্গা শরণার্থীদের একত্র করে সংরক্ষিত বনাঞ্চলের জায়গায় অবৈধভাবে ক্যাম্প স্থাপন করছে। এর বিনিময়ে তাদের কাছ থেকে অর্থ আদায়, জাতীয় ও আন্তর্জাতিক এনজিও এবং বিভিন্ন সংস্থার নিকট হতে ত্রাণ সামগ্রী গ্রহণ করে তা নিজ বাসস্থানে রেখে ব্যক্তি স্বার্থে ব্যবহার করে আসছে। নিজেদের নিয়ন্ত্রণে রাখতে রোহিঙ্গাদের সরকার অনুমোদিত ক্যাম্পে যেতে বাধা দিচ্ছে।
এর উপর ভিত্তি করে শুক্রবার দুপুরে অভিযানে যান র‌্যাব সদস্যরা। এ সময় ঘটনাস্থল থেকে অভিুযক্ত ৬ জনকে আটক করে জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট জুয়েল আহমেদের মাধ্যমে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে আটকদের বিভিন্ন মেয়াদে কারাদণ্ড দেয়া হয়। আসামিদের কক্সবাজার কারা কর্তৃপক্ষের নিকট হস্তান্তর করা হয়েছে।
তথ্যসূত্র: জাগোনিউজ