লকডাউন নিশ্চিত করতে কঠোর প্রশাসন মাঠে থাকছে পুলিশের ২৫ টি টহল দল ও ৪ টি ভ্রাম্যমান টিম

আপডেট: এপ্রিল ১৩, ২০২১, ৯:২৬ অপরাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক:


আজ বুধবার (১৪ এপ্রিল) থেকে শুরু হচ্ছে সাত দিনব্যাপি কঠোর লকডাউন। চলবে ২১ এপ্রিল পর্যন্ত। এ সময়ের মধ্যে অতি জরুরি প্রয়োজন ছাড়া বাড়ির বাইরে যাওয়াতে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে সরকার। এ নির্দেশনাকে কঠোরভাবে বাস্তবায়নে প্রস্তুতি নিয়েছেন জেলা প্রশাসনসহ আইনশৃঙ্খলাবাহিনী। কঠোর লকডাউন বাস্তবায়নে রাজশাহী নগরীজুড়ে পুলিশের ২৫ টি নিয়মিত টহল দলসহ জেলা প্রশাসনের ৪টি টিমে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালিত হবে। লকডাউন চলাকালীন কেউ অপ্রয়োজনে বাইরে বের হলে জরিমানাসহ শাস্তিমূলক ব্যবস্থাও গ্রহণ করা হবে বলে জানানো হয়েছে।
এদিকে, কঠোর লকডাউনকে সামনে রেখে জনসাধারণ কেউ নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসপত্র কিনে মজুদ করতে দেখা গেছে। গত কয়েকদিন ধরে অন্য সময়ের চেয়ে নগরীর মার্কেটগুলোতে ভিড় বেশি ছিলো। কঠোর লকডাউনের আগে মঙ্গলবার (১৩ এপ্রিল) সাহেববাজার এলাকায় মানুষের প্রচুর ভিড় দেখা যায়। এই দিন অনেক দোকানিই পণ্যের দাম বাড়িয়েছিলেন বলে অভিযোগ করেছেন ক্রেতারা।
ক্রেতা আফসানা বেগম জানান, বুধবার থেকে কঠোর লকডাউন দিয়েছে সরকার। একারণে নিত্যপ্রয়োজনীয় কিছু জিনিসপত্র আগে থেকে কিনে রাখছেন। লকডাউন চলাকালীন ঝামেলা এড়াতেই আগে বাজারে আসা। তবে এই দিন লকডাউনের অজুহাতে ব্যবসায়ীরা জিনিসপত্রের দাম বেশি নিয়েছেন।
সরকারি নির্দেশনার শতভাগ বাস্তবায়নে পুলিশ কাজ করবে জানিয়ে রাজশাহী পুলিশের মুখপাত্র ও অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার রুহুল কুদ্দুস বলেন, বুধবার থেকে লকডাউনকে সামনে রেখে সকল প্রস্তুতি নিয়েছি। মঙ্গলবার থেকে মাইকিং করে জনসাধারণকে এ কঠোর লকডাউন সম্পর্কে জানানো হয়েছে। জনসাধারণকে সচেতন করার পাশাপাশি অপ্রয়োজনে বের হতে নিষেধ করা হয়েছে। এরপরেও কেউ অপ্রয়োজনে বের হলে তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।
রাজশাহী জেলা প্রশাসক আব্দুল জলিল জানান, বুধবার সকাল থেকে লকডাউন বাস্তবায়নে পুলিশ মাঠে থাকবে। জেলা প্রশাসনের সঙ্গে সমন্বয় করে ম্যাজিস্ট্রেটসহ পুলিশ, র‌্যাব ও আনসার সদস্যরা মাঠে থাকবেন। সকালে দুইটি ও দুপুরের পর দুইটি টিম ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করবে। প্রয়োজনে এ সংখ্যা বাড়ানো হবে। এছাড়া রাজশাহীর কাঁচাবাজারগুলোর ব্যবস্থাপনায় স্বাস্থ্যবিধি নিশ্চিত করতে প্রশাসন কাজ করবে।