লকডাউন শেষে রাজশাহীতে দোকানপাট খোলার দাবি দোকান মালিক সমিতির

আপডেট: এপ্রিল ১৫, ২০২১, ৯:২০ অপরাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক:


গত বছরের এই সময়ে লক লকডাউনে দেশের সকল নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্য ও ওষুধ ব্যবসায়ী ছাড়া অন্যান্য সকল ব্যবসায়ী পথে গিয়েছিলো। সারা দেশের ন্যায় রাজশাহীর ব্যবসায়ীদের একই অবস্থা হয়েছিলো। এবার একই অবস্থা আবারও শুরু হয়েছে। আসছে ইদ-উল ফিতরের ইদ। এই ইদকে সামনে রেখে ব্যবসায়ীরা ভাল ব্যবসা করে থাকে। বিশেষ করে কাপড় ও তৈরি পোষাক ব্যবসায়ীরা এই ইদে বছরের ব্যবসা করে নেন। কিন্তু গতবছর থেকে দেশে কোভিড-১৯, করোনার প্রাদুর্ভাব বেশী হওয়ায় সরকার লকডাউনের মত কর্মসূচি দিচ্ছেন।
গত বছরের ন্যায় চলতে থাকলে ব্যবসায়ীরা আবারও পথে বসে যাবে বলে জানান বাংলাদেশ দোকান মালিক সমিতি রাজশাহী শাখার সভাপতি গোলাম সারওয়ার স্বপন। তিনি বলেন, গত বছরের লকডাউনে ব্যবসায়ীরা সরকারকে সমর্থন দিয়েছে। দুই ঈদে কোন প্রকার ব্যবসা করতে পারেনি তারা। এই লোকসান থেকে সামান্য পরিত্রাণ পেতে সরকারের নিকট প্রণোদনা চেয়ে বার বার আবেদন করেও কিছুই পায়নি তারা। ব্যবসায়ীরা পুঁজি হারিয়ে পথে বসে আছে। এ অবস্থায় আবারও ঘুরে দাঁড়ানোর চেষ্টা করছেন তারা। কিন্তু পূণরায় লকডাউন ব্যবসায়ীদের চিন্তায় ফেলে দিয়েছে বলে জানান তিনি।
তিনি আরো বলেন, এই ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের উপর শুধু মালিক নয় অনেক পরিবার নির্ভর করে। অর্থনীতির চাকা সচল রাখতে এবং ব্যবসায়ীদের অবস্থা এবং অবস্থানের কথা চিন্তা করে এই সাতদিন লকডাউনের পর দোকানপাট ও অন্যান্য ব্যবসা প্রতিষ্ঠান খুলে দেয়ার জন্য সরকারের প্রতি তিনি দাবী জানিয়েছেন। তিনি আরো বলেন, গত ৫ এপ্রিল বছরের প্রথম লকডাউনে নিত্যপণ্য ও ওষুধের দোকান ছাড়া সকল ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ করে দেয় সরকার। কিন্তু ব্যবসায়ীদের আন্দোলনের মুখে তা খুলে দেন। ১৩ এপ্রিল পর্যন্ত ব্যবসায়ীরা স্বাস্থ্যবিধি মেনে ব্যবসা করেছেন।
স্বপন আরো বলেন, দোকানদার ও কর্মচারীদের কথা চিন্তা করে স্বাস্থ্যবিধি মেনে ইদ কেন্দ্রিক সকল ব্যবসা প্রতিষ্ঠান খোলার অনুমতি দিয়ে রাজশাহীর ব্যবসায়ীদের বাঁচানোর জন্য সরকারর নিকট আবার দাবী জানান। সেইসাথে খুচরা পর্যায়ের ভ্যাট আদায় বন্ধ করে প্রতিটি পণ্যের উৎসে কর নির্ধারন করার আহবান জানান এই ব্যবসায়ী নেতা।