লাকী আখান্দ ফিরবেন না আর

আপডেট: এপ্রিল ২২, ২০১৭, ১২:১৮ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক


‘এই নীল মণিহার’, ‘আমায় ডেকো না’, ‘আগে যদি জানতাম’ এ রকম অনেক জনপ্রিয় গানের শিল্পী লাকী আখান্দ আর নেই।
শুক্রবার সন্ধ্যায় রাজধানীর আরমানিটোলায় নিজের বাসায় শিল্পী শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন বলে তার মেয়ে মাম্মিন্তি আখান্দ নূর জানিয়েছেন।
ফুসফুসের ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়ে লাকী আখান্দ টানা আড়াইমাস চিকিৎসাধীন ছিলেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে। ৭ এপ্রিল হাসপাতাল ছেড়ে বাসায় ফেরেন তিনি।
চিকিৎসকদের পরামর্শেই তিনি বাসায় গিয়েছিলেন জানিয়ে শিল্পীর ঘনিষ্ঠজন এরশাদুল হক টিংকু বৃহস্পতিবার বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেছিলেন, লাকী আখান্দ এখন কিছুটা সুস্থ। বাসায় ফিরে গানে সময় দিচ্ছেন তিনি।
গুরুতর অসুস্থ হয়ে ২০১৫ সালের সেপ্টেম্বরে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হলে ফুসফুসে ক্যান্সার ধরা পড়ে লাকী আখান্দের।
এরপর থাইল্যান্ডের একটি হাসপাতালে গিয়ে চিকিৎসা নেন তিনি। সেখান থেকে ঢাকায় ফেরার পর তাকে কেমোথেরাপি দেওয়া হয়। মুক্তিযোদ্ধা এই শিল্পীর চিকিৎসায় প্রধানমন্ত্রীর তহবিল থেকেও সহায়তা করা হয়েছিল।
আশির দশকের তুমুল জনপ্রিয় কণ্ঠশিল্পী লাকী আখান্দ একাধারে সঙ্গীত পরিচালক, সুরকার ও গীতিকার। ১৯৮৪ সালে সারগামের ব্যানারে প্রথমবারের মতো একক অ্যালবাম বের করেন লাকী আখান্দ।
ওই অ্যালবামের ‘এই নীল মণিহার’, ‘আমায় ডেকো না’, ‘রীতিনীতি জানি না’, ‘মামনিয়া’, ‘আগে যদি জানতাম’ গানগুলো শ্রোতাদের মাঝে ব্যাপক সাড়া ফেলে।
১৯৮৭ সালে ছোট ভাই হ্যাপী আখান্দের মৃত্যুর পরপর সঙ্গীতাঙ্গন থেকে অনেকটাই স্বেচ্ছা নির্বাসন নেন এই গুণী শিল্পী।
মাঝখানে প্রায় এক দশক নীরব থেকে ১৯৯৮-এ ‘পরিচয় কবে হবে’ ও ‘বিতৃষ্ণা জীবনে আমার’ অ্যালবাম দুটি নিয়ে আবারও শ্রোতাদের মাঝে ফিরে আসেন লাকী আখান্দ।- বিডিনিউজ