লালপুরে গভীর রাতে উষ্ণতার পরশ ছড়ালো ডু সামথিং ফাউন্ডেশন

আপডেট: জানুয়ারি ১৬, ২০২৪, ১১:০৬ অপরাহ্ণ

লালপুর (নাটোর) প্রতিনিধি:


তখন ঘড়ির কাঁটাতে রাত ২টা। ঘন কুয়াশা আর ঠান্ডা হিমেল বাতাসে জবুথবু অবস্থা ভাসমান ছিন্নমূল মানুষের। এই মধ্যরাতে নাটোরের লালপুরে রেলওয়ে স্টেশনের প্ল্যাটফর্ম ও রাস্তার পাশে শুয়ে এসব শীতার্ত মানুষদের গরম উষ্ণতার পরশ দিতে কম্বল জড়িয়ে দিলেন ডু সামথিং ফাউন্ডেশনের সদস্যরা।

মঙ্গলবার (১৬ জানুয়ারি) উপজেলার আব্দুলপুর রেলওয়ে জংশন, আজিমনগর রেলস্টেশন ও তার আশেপাশে এলাকায় শীতবস্ত্র বিতারণ করা হয়।
কম্বল পেয়ে ষাটোর্ধ বৃদ্ধ ইসরাইল বলেন, প্রচন্ড শীতের ঠ্যালায় খুব কষ্টে আছিনু। কাইলকি এক স্যার কম্বল দিয়া গিছে। সেডিতো ঠান্ডা মরতিছে না। এই রাইতে তোমাদের হাতত থ্যাকি একটা কম্বল পাইয়্যাছি। এইডিট আমার ঠান্ডা মইরি যাবি।

কনকনে ঠান্ডায় আব্দুলপুর রেল স্টেশনের রাস্তার পাশে শুয়ে থাকা আজিম আলী, আব্দুর গফুর, শুকুর আলী বলেন, আমি দিনে ভিক্ষা করি আর রাইতে স্টেশনের প্লাটফর্মে ঘুমায়। টাকার অভাবে কম্বল কিনতে পারিনি। তাই কনকনে হাড় কাঁপানো শীতে খুব কষ্টে আছিলাম। আপনাদের থেকে কম্বল পেয়ে আমার অনেক উপকার হলো।

এবিষয়ে লালপুর উপজেলা প্রেসক্লাবের সভাপতি এএম রায়হান বলেন, মানুষ মানুষের জন্য তার উদাহরণ হতে পারে ডু সামথিং ফাউন্ডেশন। তারা লালপুরের মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছে তাদের ধন্যবাদ জানাই। আমাদের উচিত সামর্থ্য অনুযায়ী সকলে সমাজের অসহায় দরিদ্র শীতার্ত মানুষের পাশে দাঁড়াতে পারি। বিত্তবানদের এগিয়ে আসার আহবান জানিয়ে তিনি বলেন, নিজ নিজ এলাকায় বৃত্তবানরা এগিয়ে এলে অসহায় দরিদ্র শীতার্ত মানুষগুলো উপকৃত হবে।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ