লালপুরে মজুদ রাখা একশ টন চাল জব্দ || ব্যবসায়ীর এক বছরের কারাদণ্ড

আপডেট: সেপ্টেম্বর ২০, ২০১৭, ১২:৫৮ পূর্বাহ্ণ

নাটোর অফিস


অবৈধভাবে মজুদ রাখায় নাটোরের লালপুরে একশ মেট্রিক টন চাল জব্দ করে সাতটি গোডাউন সিলগালা করে দিয়েছে ভ্রাম্যমাণ আদালত। এসময় চাল মজুদ রাখার অপরাধে চান্দু মিয়া (৬৫) নামের এক ব্যবসায়ীকে এক বছরের কারাদণ্ড দেয়া হয়েছে। দণ্ডপ্রাপ্ত চান্দু মিয়া উপজেলার গোপালপুর পৌর এলাকার আজিমুদ্দিনের ছেলে। গতকাল মঙ্গলবার দিনভর এই অভিযান পরিচালনা করেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোর্তুজা খান।
জেলা প্রশাসন সূত্র জানায়, চালের বাজার অস্থিতিশীল ঠেকাতে অবৈধভাবে মজুদদারদের বিরুদ্ধে মাঠে নামে জেলা প্রশাসন। এরই ধারাবাহিকতায় মঙ্গলবার দুপুরে লালপুর উপজেলার গোপালপুর বাজারে অভিযান চালায় ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোর্তুজা খান। এসময় মাত্র ১৫ টন চাল বিক্রির অনুমতি থাকলেও সাতটি গোডাউনে মোট ১১৫ মেট্রিক টন চাল মজুদ করে রাখেন তিনি। পরে ১শ টন চাল অবৈধভাবে মজুদ রাখায় জব্দ করা হয় চালগুলো। এসময় অবৈধভাবে মজুদের অভিযোগে মালিক চান্দু মিয়াকে এক বছরের কারাদণ্ড প্রদান করা হয়।
এ ব্যাপারে নাটোর জেলা খাদ্য কর্মকর্তা মনিরুল ইসলাম জানান, আমরা সাধারণত ধান চাল ব্যবসায়ীদেরকে খুচরা, পাইকারি ও আমদানিকারক এই তিন ধরনের লাইসেন্স দিয়ে থাকি। একজন খুচরা ব্যবসায়ীর জন্য ১৫টন চাল পনের দিন, পাইকারি ব্যবসায়ীর জন্য ৩শ টন ত্রিশ দিন পর্যন্ত মজুদ রাখার নিয়ম রয়েছে।
ভ্রাম্যমাণ আদালতের সঙ্গে র‌্যাব-৫ নাটোর ক্যাম্পের কমান্ডার শেখ আনোয়ার হোসেন, জেলা বাজার মনিটরিং কর্মকর্তা নূর মোমেন, জেলা কনজুমার অসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক রইস উদ্দিন উপস্থিত ছিলেন।