লিবিয়ায় অভিবাসীদের দাস হিসেবে বিক্রি করে দেয়া হয়

আপডেট: এপ্রিল ১৩, ২০১৭, ১২:৩৩ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক



আফ্রিকার সাহারা অঞ্চলের যেসব লোক লিবিয়া হয়ে ভূমাধ্যসাগর পাড়ি দিয়ে ইউরোপ যাওয়ার চেষ্টা করছে তাদেরকে দাস হিসেবে বিক্রি করতে দিচ্ছে অপহরণকারীরা। তাদেরকে লিবিয়ার বিভিন্ন শহরের মোড়ে ও গাড়ি পার্কিং করার জায়গায় জড়ো করে নিলামে উঠিয়ে বিক্রি করে দেয়া হচ্ছে। আন্তর্জাতিক অভিবাসন সংস্থার (আইওএম) এক কর্মকর্তার বরাত দিয়ে বুধবার বিবিসি এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে।
সংস্থাটি তাদের প্রতিবেদনে জানিয়েছে, সাহারা অঞ্চলের কয়েক শতাধিক তরুণকে তথাকথিত দাস বাজার থেকে উদ্ধার করা হয়েছে। সেনেগালের এক অভিবাসী জানিয়েছেন, দক্ষিণ লিবিয়ার শহর সাবহাতে এমনই একটি দাস বাজারে তাকে বিক্রি করে দেওয়া হয়েছিল। এর আগে তাকে শতাধিক অভিবাসীসহ একটি খাঁচার ভেতরে বন্দী করে রাখা হয়েছিল। বন্দী অভিবাসীদেরকে মুক্তিপণের জন্য তাদের স্বজনদের কাছে ফোন করার কথা বলতো অপহরণকারীরা। তাদেরকে যে নির্যাতন করা হচ্ছে সেটি শোনানোর জন্য ফোনে স্বজনদের সঙ্গে কথা বলার সময়, অনেক অভিবাসীকে প্রহার করতো অপহরণকারীরা।
তিনি জানান, বন্দীদের ভয়াবহ পরিস্থিতির মধ্যে দিনযাপন করতে হতো। সেখানে তাদের জন্য বরাদ্দকৃত খাদ্য ছিল একেবারেই কম। যারা মুক্তিপণের অর্থ দিতে পারতো না, হয় তাদেরকে মেরে ফেলা হতো, নয়তো অনাহারে রাখা হতো।
এক প্রত্যক্ষদর্শী জানিয়েছেন, নারীদেরকে লিবিয়ার ধনীদের কাছে বিক্রি করে দেয়া হতো। তাদেরকে যৌনদাসী হিসেবে জীবনযাপনে বাধ্য করা হতো।
লিবিয়ায় আইওএমের প্রধান ওসমান বেলবেইসি জানিয়েছেন, দাস বাজারে যাদের বিক্রি করা হতো, কর্মসামর্থ্যের ওপর ভিত্তি করে তাদের দাম নির্ধারণ করা হতো। যারা মুক্তিপণের অর্থ দিতে পারতো না, তাদেরকে বিক্রির মাধ্যমে ন্যূনতম মুনাফা অর্জন করতে চাইতো অপহরণকারীরা।
নাইজেরিয়ায় আইওএমের কর্মকর্তা জানিয়েছেন, সাবাহতে হয় স্থানীয়রা নতুবা গাড়ির চালকরা অভিবাসীদের কিনে নিয়ে নির্মাণসহ দৈনন্দিন বিভিন্ন কাজে ব্যবহার করছে। পরর্তীতে তাদেরকে মজুরির পরিবর্তে নতুন ক্রেতার কাছে বিক্রি করে দেয়া হয়।- রাইজিংবিডি

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ