শর্ত ভঙ্গ করায় দুটি মিল এখন সরকারের অধীনে

আপডেট: এপ্রিল ১০, ২০১৭, ১২:০৫ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক



মাদারীপুরের এ. আর. হাওলাদার জুট মিলস লিমিটেড ও চট্টগ্রামের ঈগল স্টার টেক্সটাইল মিলস লিমিটেড নামের দুটি মিল হস্তান্তরের শর্ত ভঙ্গ কারায় পুনঃগ্রহণ (টেক ব্যাক) করেছে বস্ত্র ও পাট মন্ত্রণালয়। পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত মিল দুটি ব্যবস্থাপনার নিমিত্তে বস্ত্র ও পাট মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন রাষ্ট্রায়ত্ব সংস্থা বিজেএমসি ও বিটিএমসির নিয়ন্ত্রণে ন্যস্ত করা হয়েছে। শুক্রবার বস্ত্র ও পাট মন্ত্রণালয়ের এক বিবৃতিতে এ তথ্য জানানো হয়।
মাদারীপুরের এ. আর. হাওলাদার জুট মিলস লিমিটেড পুনঃগ্রহণের (টেক-ব্যাক) কারণ হিসেবে মন্ত্রণালয়ের এক বিবৃতিতে বলা হয়, ‘১৯৮২ সালের ১২ ডিসেম্বর শিল্পনীতির শর্তসমূহ প্রতিপালন করে সরকার উক্ত কোম্পানির সঙ্গে সম্পাদিত দ্বি-পাক্ষিক চুক্তি ও বিজেএমসি এবং সংশ্লিষ্ট ব্যাংক ও সরকারের সঙ্গে সম্পাদিত হস্তান্তর চুক্তিমুলে মিল গ্রহিতারা মিলের বিপরীতে সরকার ও সরকারের আর্থিক প্রতিষ্ঠানসমূহের যাবতীয় দায়-দেনা পরিশোধ করার জন্য চুক্তি হয়ে মিলের ব্যাবস্থাপনার দায়িত্ব গ্রহণ করে।
উক্ত দায়-দেনা পরিশোধ না করে এবং দীর্ঘদিন ধরে মিল বন্ধ রেখে উৎপাদন বৃদ্ধি না করে শর্ত ভঙ্গ করেছে। সরকার ও সরকারি আর্থিক প্রতিষ্ঠানসমূহের যাবতীয় পাওনা পরিশোধের পূর্বে মিলের কোন স্থাবর-অস্থাবর সম্পদ সরকারের পূর্বানুমোদন ব্যতিরেকে বিক্রয়/হস্তান্তর না করার জন্য চুক্তিতে অঙ্গিকারবদ্ধ হয়েও মিলের যাবতীয় মেশিনারিজ ও স্থাপনা সরকারের অজান্তে বিক্রয় করে চুক্তি ভঙ্গ করেছে। মিলের ব্যবস্থাপনা কর্তৃপক্ষকে মিলের নিকট সরকারের পাওনা পরিশোধের জন্য তাগিদপত্র প্রদান করা সত্ত্বেও সরকারি পাওনা পরিশোধ করে নি। মিল কর্তৃপক্ষ দীর্ঘদিন যাবৎ মিল পরিচালনা না করে বন্ধ অবস্থায় ফেলে রেখেছে, হাজার হাজার শ্রমিক-কর্মচারীকে তাদের কর্মসংস্থান হতে বঞ্চিত করে রেখেছে, এতে মিল হস্তান্তরের উদ্দেশ্য ব্যহত হয়েছে এবং হস্তান্তরের চুক্তি লঙ্ঘিত হয়েছে। এসব কারণে জনস্বার্থে ১৯৮২ সালের ১২ ডিসেম্বর সম্পাদিত মিল হস্তান্তর চুক্তিদ্বয় (দ্বিপাক্ষিক ও ত্রিপাক্ষিক) বাতিল করা হল। উক্ত কোম্পানির যাবতীয় স্থাবর-অস্থাবর সম্পত্তি ও স্বত্ব সরকার কর্তৃক পুন:গ্রহন (টেক-ব্যাক) করা হল এবং পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত মিলটি ব্যবস্থাপনার নিমিত্ত বস্ত্র ও পাট মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন রাষ্ট্রায়ত্ব সংস্থা বিজেএমসি’র নিয়ন্ত্রণে ন্যাস্ত হল।’
চট্টগ্রামের ঈগল স্টার টেক্সটাইল মিলস লিমিটেড পুনঃগ্রহণ (টেক-ব্যাক) এর কারণ হিসেবে বিবৃতিতে বলা হয়, ‘১৯৮৫ সালের ১ জুন শিল্পনীতির শর্তসমূহ প্রতিপালন করে সরকার উক্ত কোম্পানির সঙ্গে সম্পাদিত দ্বি-পাক্ষিক চুক্তি ও বিটিএমসি এবং সংশ্লিষ্ট ব্যাংক ও সরকারের সঙ্গে সম্পাদিত হস্তান্তর চুক্তিমূলে মিল গ্রহিতারা মিলের বিপরীতে সরকার ও ব্যাংকের দায়-দেনা পরিশোধ না করে এবং মিল পরিচালনা না করে মিলটি বন্ধ রেখে চুক্তিপত্রের শর্ত ভঙ্গ করেছে। ঈগল টেক্সটাইল মিলস লি. চট্টগ্রামের ব্যবস্থাপনা কর্তৃপক্ষ সরকারের অনুমোদন ব্যতিরেকে গোপনে মিলের ৬ দশমিক ৪৩ একর জমি বিক্রি করেছে এবং ১ একর জমি বিক্রয়ের চুক্তিবদ্ধ হয়ে লাভবান হয়েছে। এসব কারণে জনস্বার্থে ১৯৮৫ সালের ১ জুন সম্পাদিত মিল হস্তান্তর চুক্তিদ্বয় (দ্বিপাক্ষিক ও ত্রিপাক্ষিক) বাতিল করা হল । উক্ত কোম্পানির যাবতীয় স্থাবর-অস্থাবর সম্পত্তি ও স্বত্ব সরকার কর্তৃক পুনঃগ্রহণ (টেক-ব্যাক) করা হল এবং পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত মিলটি ব্যবস্থাপনার নিমিত্তে বস্ত্র ও পাট মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন রাষ্ট্রায়ত্ব সংস্থা বিটিএমসি’র নিয়ন্ত্রণে ন্যস্ত হল ।
উল্লেখ্য, বস্ত্র ও পাট মন্ত্রণালয় সংক্রান্ত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির ৭৩তম বৈঠক কর্তৃক ২নং সাব-কমিটি মিলটি বন্ধ রাখায় হস্তান্তর চুক্তির (দ্বিপাক্ষিয় চুক্তি) শর্ত ২৫ অনুযায়ী সরকার  এ বিষয়ে ইন্টারভেন করতে পারে। এ বিষয়ে আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মতামত গ্রহণপূর্বক পরবর্তী ব্যবস্থা গ্রহণ করা যেতে পারে মর্মে সুপারিশ করেছে। আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রণালয় কর্তৃক সরকার দ্বিপাক্ষীয় চুক্তির বর্ণিত শর্ত মতে মিলটির বিষয়ে যথাযথ সিদ্ধান্ত গ্রহণের লক্ষ্যে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহন করতে পারে মর্মে মতামত প্রদান করেছে।