শহিদ কামারুজ্জামান ও জাহানারা জামান ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে ২০ হাজার ব্যক্তিকে ইদ উপহার প্রদান করছি : মেয়র লিটন

আপডেট: মে ৯, ২০২১, ৯:৫০ অপরাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক:


প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশক্রমে শহিদ কামারুজ্জামান ও জাহানারা জামান ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে মহানগরীতে বসবাসরত গরীব, অসহায়, দুস্থ্য, নিম্ন আয়ের ও ছিন্নমূল ২০ হাজার মানুষের মাঝে ইদ উপহার হিসেবে খাদ্য সামগ্রীর বিশেষ প্যাকেজ বিতরণের অংশ হিসেবে আরো ১৮০০ ব্যক্তির মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করা হয়েছে। রোববার (৯ মে) বিকেল ৫টায় টিকাপাড়া ইদগাহ মাঠে নগরীর ২১, ২৩, ২৪, ২৫, ২৬ পশ্চিম ও ২৭ নং ওয়ার্ডের ব্যক্তিদের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করেন জাতীয় চার নেতার অন্যতম শহিদ এ.এইচ.এম কামারুজ্জামান ও জাহানারা জামানের সুযোগ্যপুত্র রাজশাহী মহানগর আওয়ামী লীগ সভাপতি ও সিটি মেয়র এ.এইচ.এম খায়রুজ্জামান লিটন।
ইদ উপহার বিতরণ অনুষ্ঠানে মেয়র খায়রুজ্জামান লিটন বলেন, করোনার কারণে দিনমজুর, খেটে খাওয়া গরীর ও নিম্ন আয়ের মানুষের উপার্জন কমে গেছে। গরীব ও অসহায় এসব মানুষের পাশে আছে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন বর্তমান সরকার। সরকারের পক্ষ থেকে বিভিন্ন সহায়তা প্রদান করা হচ্ছে। পাশাপাশি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীদের সামর্থ অনুযায়ী মানুষের পাশে দাঁড়ানোর নির্দেশ দিয়েছেন। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশক্রমে আমার বাবা শহীদ এ.এইচ.এম কামারুজ্জামান ও মাতা জাহানারা জামানের নামে ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে ২০ হাজার ব্যক্তিকে খাদ্য সহায়তা হিসেবে ঈদ উপহার প্রদান করছি। করোনকালীন ও ঈদের আগে এই খাদ্য মানুষের অনেক উপহার হবে, অন্তত ৭/৮ দিন তারা এটি দিয়ে পরিবার নিয়ে ভলোমতো চলতে পারবেন।
মেয়র আরো বলেন, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ সব সময় মানুষের পাশে থাকে। সেটি আবারো প্রমাণ হলো। করোনার সংক্রমণের শুরু থেকে আমি মানুষের পাশে আছি। করোনায় ক্ষতিগ্রস্থ গরীব, অসহায় ও কর্মহীন মানুষ লক্ষাধিক মানুষকে দফায় দফায় খাদ্য সহায়তা প্রদান করেছি। সরকারি সহায়তার পাশাপাশি ব্যক্তিগত উদ্যোগেও বিপুল সংখ্যক মানুষকে সহায়তা প্রদান করা হয়েছে। আমরা আগামীতেও এভাবেই মানুষের পাশে থাকবো।
এরআগে টিকাপাড়া ইদগাহ মাঠজুড়ে মাঠজুড়ে স্বাস্থ্যবিধি ও সামাজিক দূরত্ব মেনে সারি সারি করে বসানো হয় ১৮০০ টি চেয়ার। বিকাল তিনটার পর থেকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে মাঠে প্রবেশ করে চেয়ারে বসেন উপকারভোগীরা। প্রতিটি চেয়ারের পাশে রাখা হয় একটি করে ইদ উপহারের বিশেষ প্যাকেজের প্যাকেট। প্রতিটি প্যাকেটে আছে ৮ কেজি চাল, ১ কেজি পোলাও চাল, ২ কেজি ডাল, ১ লিটার সয়াবিন তেল, ১ কেজি চিনি ও ১ প্যাকেট সেমাই। বিকেলে ৫টায় অনুষ্ঠানস্থলে আসেন সিটি মেয়র এ.এইচ.এম খায়রুজ্জামান লিটন, সংক্ষেপে বক্তৃতা করেন। এরপর কয়েকজনের হাতে খাদ্য সামগ্রীর বিশেষ প্যাকেট তুলে দিয়ে বিতরণ কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন। এরপর প্রতিটি ব্যক্তি তার চেয়ারের পাশে রাখা প্যাকেট নিয়ে সামাজিক দূরত্ব মেনে সারিবদ্ধ হয়ে মাঠ ত্যাগ করেন।
অনুষ্ঠানে রাজশাহী মহানগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি শাহাদত হোসেন, নাইমুল হুদা রানা, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মোস্তাক হোসেন ও আহসানুল হক পিন্টু, সাংগঠনিক সম্পাদক এ্যাড আসলাম সরকার, স্বাস্থ্য বিষয়ক সম্পাদক ডা. এফএমএ জাহিদ, প্রচার সম্পাদক দিলীপ ঘোষ, তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক জিয়া আজাদ হোসেন হিমেল, কার্যনির্বাহী সদস্য আলেমুল হাসান সজল, আশীষ তরু দে সরকার অর্পণ, বোয়ালিয়া (পূর্ব) থানা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শ্যামল কুমার ঘোষ, মতিহার থানা আওয়ামী লীগ সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা ডা. আব্দুল মান্নান, সাধারণ সম্পাদক মো. আলাউদ্দিন সহ বিভিন্ন ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ, ২৫নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর তরিকুল আলম পল্টু, মহানগর যুবলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক তৌরিদ আল মাসুদ রনি, রাসিকের দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ কর্মকর্তা সৈয়দ জুবায়ের হোসেন মুন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।
উল্লেখ, ৮ মে রাজশাহী বিশ^বিদ্যালয় স্কুল মাঠে ৩০ উত্তর, ৩০ দক্ষিণ, ২৮ পূর্ব, ২৮ পশ্চিম, ২৯ ও ২৬ নং ওয়ার্ড পূর্বের ব্যক্তিদের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করা হয়। এরআগে ৬ মে মুক্তিযুদ্ধ স্মৃতি স্টেডিয়ামে ১৮ দক্ষিণ, ১৯ উত্তর, ১৯ দক্ষিণ, ২০ ও ১৪ পূর্ব ওয়ার্ডের ১৫০০ ব্যক্তিকে ইদ উপহার প্রদান করা হয়। ৫ মে শারীরিক শিক্ষা কলেজ মাঠে ১৬, ১৭ পূর্ব, ১৭ পশ্চিম, ১৮ উত্তর ওয়ার্ডের ১২০০ জনকে, ৪ মে বিকেলে হাজ¦ী লাল মোহাম্মদ ইদগাহ মাঠে ১০, ১৩ ও ১৫নং ওয়ার্ডের ৯০০ জনকে এবং ৩ মে ১, ২, ৪ ও ৮ নং ওয়ার্ডের ১২০০ ব্যক্তিকে ইদ উপহার প্রদান করা হয়। নগরীর প্রত্যেক ওয়ার্ডে ৩০০জন করে ৩৭টি সাংগঠনিক ওয়ার্ডের ১১ হাজার ১০০জন ব্যক্তি ও পেশাজীবীসহ বিভিন্ন সংগঠনের সদস্যবৃন্দ সহ মোট ২০ হাজারের অধিক ব্যক্তিকে খাদ্য সামগ্রীর এই বিশেষ প্যাকেজ প্রদান করা হচ্ছে।