শারোদৎসবের মাঝেই সব বাংলাভাষীকে বাংলাদেশি চিহ্নিত করার পোস্টার

আপডেট: October 22, 2020, 4:14 pm

সোনার দেশ ডেস্ক


নাগরিকত্ব আইন ও এনআরসি ইস্যু উস্কে দিয়েছেন বিজেপি সর্বভারতীয় সভাপতি জে পি নাড্ডা। শিলিগুড়িতে তিনি বলেন, অতি দ্রুত এনআরসি চালু হবে ফের। এর পরেই মেঘালয়ে থাকা বাংলাভাষীদের বিরুদ্ধে বিদ্বেষ চাগাড় দিল। খাসি উপজাতি সংগঠনের পোস্টারে দাবি, রাজ্যে সব বাংলাভাষীরা বাংলাদেশি।
এই পোস্টার শিলং সহ বিভিন্ন শহরে দেওয়া হয়। এর জেরে আতঙ্কিত মেঘালয়ে থাকা বাঙালিরা। বিশেষ করে শিলং শহরবাসীর বাংলাভাষীরা। এরা দীর্ঘ কয়েক প্রজন্ম ধরেই মেঘালয়ের বাসিন্দা।
এদিকে উপজাতি খাসি স্টুডেন্টস ইউনিয়নের পোস্টার ঘিরে বিতর্ক বড়সড় আকার নিতে চলেছে। তবে শিলং শহরের পুলিশ দ্রুত পরিস্থিতির সামাল দেয়। বৃহস্পতিবার এই পোস্টার সরিয়ে দিয়েছে প্রশাসন।
জানা গিয়েছে, বুধবার খাসি স্টুডেন্টস ইউনিয়ন এই বিতর্কিত পোস্টার শিলং শহরে ছড়িয়ে দিয়েছিল। এনআরসি ও নাগরিকত্ব সংশোধনী লাগু হওয়ার পর থেকেই রক্তাক্ত পরিস্থিতি তৈরি হয়েছিল অসমে।
নাম্নী অসম বা বরাক উপত্যকায় বাঙালি অধ্যুষিত কাছাড়, হাইলাকান্দি, করিমগঞ্জে থাকা বাঙালিরা আক্রান্ত হন মেঘালয় সীমান্তে। কারণ, তাঁদের গুয়াহাটি সড়কপথে যেতে হলে মেঘালয় পার করতে হয়।
আন্তঃরাজ্য সীমান্তে মেঘালয়ের খাসি সংগঠন রীতিমতো চেকপোস্ট তৈরি করে অসমের দিক থেকে আসা যাত্রীদের পরিচয় জানতে আগ্রাসী ভূমিকা নেয়। সরকারের দেওয়া পরিচয় থাকলেও পরপর হামলার ঘটনা ঘটে।
অভিযোগ, হামলার সময় মেঘালয় সরকারের পুলিশ হাত গুটিয়েছিল। পরিস্থিতি জটিল হয় আরও। একদিকে সিএএ এবং এনআরসি ঘিরে রক্তাক্ত অসম অন্যদিকে মেঘালয়ে ঢুকতে গিয়ে আক্রান্ত হচ্ছিলেন বাংলাভাষীরা।
পরে পরিস্থিতি কিছুটা স্বাভাবিক হয়। এবার শারদোতসবের মাঝেই মেঘালয়ে নতুন করে বাঙালি বিদ্বেষী মনোভাব উস্কে দিতে শুরু করেছে খাসি উপজাতি সংগঠন। তবে শিলং পুলিশ জানিয়েছে, সমস্ত বিদ্বেষমূলক পোস্টার সরিয়ে দেওয়া হয়েছে।
তথ্যসূত্র: kolkata24x7

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ