শিগগিরই দেশে করেনা টিকার উৎপাদন স্বস্তি ও আশা জাগানিয়া

আপডেট: জুলাই ২৬, ২০২১, ১২:২৫ পূর্বাহ্ণ

শিগগিরই বাংলাদেশে স্থায়ীভাবে করোনা ভাইরাসের টিকা যৌথভাবে উৎপাদন শুরু হবে বলে জানিয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন। তাঁর ভাষ্যমতে সব কাগজপত্র প্রস্তুত, চুক্তিপত্রও পাওয়া গেছে। স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় ও অধিদপ্তরের কর্মকর্তারা কাজ করছেন। যেকোনো মুহূর্তে যৌথভাবে টিকা উৎপাদনের কাজ শুরু হবে।
শনিবার (২৪ জুলাই) বিকেলে জাপান থেকে উপহার দেওয়া অ্যাস্ট্রেজেনেকার দুই লাখ ৪৫ হাজার ২০০ ডোজ করোনা টিকা হস্তান্তর শেষে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের ভিআইপি টার্মিনালে সাংবাদিকদের তিনি এসব কথা বলেন। তিনি বলেন, ইতোমধ্যে অনেকগুলো দেশ যৌথভাবে টিকা উৎপাদন করছে। তারা ভালো ফল পাচ্ছেন।
আশা উদ্দীপক যে, দেশে যৌথভাবে করোনা ভাইরাস টিকার উৎপাদন হবে। পরপরষ্ট্র মন্ত্রী দেয়া তথ্যমতে যৌথ উৎপাদনে যাওয়ার ব্যাপার মোটেও বিলম্বিত হবে না। দেশে যখন করোনা মহামারি নির্বিচার জীবন সংহার করে চলেছে- তখন দেশবাসীর জন্য অবশ্যই উৎসাহব্যঞ্জক খবর এটি।
তথ্যমতে দেশে করোনার টিকা প্রয়োজন ২৭ কোটি। বিপুল সংখ্যক টিকার যোগান কঠিনই বটে কিন্তু দেশে উৎপাদন সম্ভব হলে নিঃসন্দেহে দেশের মানুষের মধ্যে স্বস্তি ও আস্থা ফিরে আসবে। কেননা এই মুহূর্তে দেশের মানুষের মধ্যে করোনা টিকা নেয়ার ব্যাপারে আগ্রহ দেখা দিয়েছে। দ্বিতীয় ধাপে এক কোটি মানুষ টিকার জন্য নিবন্ধিত হয়েছেন। প্রথম দিকে নিবন্ধনকরণে নানা ভয়-ভীতি গুজব আকারে ছড়িয়ে পড়ে যা মানুষকে টিকা নিতে অনীহা লক্ষ্য করা যায়। কিন্তু পরিস্থিতি বিবেচনায় সেটা আর থাকবে না বল্ েধারণা।
অন্যদিকে স্বাস্থ্যমন্ত্রীও আশাবাদ জাগিয়ে তুলেছেন। সংবাদ মাধ্যমের তথ্য অনুযায়ী স্বাস্থ্যমন্ত্রী দেশবাসীকে আশ্বস্ত করেছেন যে, ইতোমধ্যেই ২১ কোটি টিকার বন্দোবস্ত করা গেছে। তিনি বলেছেন প্রতিমাসে ১ কোটি টিকা দেয়া হবে। এই মুহূর্তে ৮ কোটি টিকা সংরক্ষণের সক্ষমতা আছে। এ সক্ষমতা বাড়ানোর বিষয়টিকেও গুরুত্ব দেয়া হচ্ছে।
দেশে টিকা উৎপাদন সম্ভব হলে সেই টিকা যে অন্য দেশের সহায়তায় কিংবা রফতানিতে কাজে আসবে সেটা বলাই বাহুল্য। যাহোক, করোনা সংক্রমণের আগ্রাসনে যে উদ্বেগ- উৎকণ্ঠার সৃষ্টি হয়েছিল তা দেশের যৌথভাবে টিকার উৎপাদন এবং ২১ কোটি টিকার বন্দোবস্ত করার সংবাদ দেশের মানুষের মনোবল বাড়াবে তাতে কোনো সন্দেহ নেই। এ ক্ষেত্রে আমরা বলতে পারবো বাংলাদেশ দুর্ভাবনা পেরিয়ে করোনা প্রতিরোধ যুদ্ধে জয়ী হতে যাচ্ছে।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ