শিবগঞ্জে বাল্যবিয়ে নিবন্ধন করায় ক্ষমা চাইলেন নিকাহ রেজিস্ট্রার

আপডেট: ফেব্রুয়ারি ২৭, ২০১৭, ১:০৫ পূর্বাহ্ণ

চাঁপাইনবাবগঞ্জ অফিস


চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জ উপজেলার কানসাট ইউনিয়নের নিকাহ রেজিস্ট্রার আনোয়ারুল আলমের বিরুদ্ধে বাল্যবিয়ে নিবন্ধনের অভিযোগ উঠেছে। এই ঘটনায় জেলা রেজিস্ট্রার মো. আবদুর রেজ্জাক তাকে শোকজ করলে তিনি ভুল স্বীকার করে ক্ষমা চেয়েছেন।
সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, কানসাটের নিকাহ রেজিস্ট্রার আনোয়ারুল আলমের কাছে গত ১ জানুয়ারি নিবন্ধন করা একটি বিয়ের রেজিস্টারে কনে ফিরোজা খাতুনের জন্ম তারিখ ১৯৯৮ সালের ১৫ মার্চ উল্লেখ করা হয়েছে। যা কনের বয়স ১৮ বছর পুর্ণ হতে দুই মাস কম ছিলো। এছাড়া গত বছরের ২০ নভেম্বর রেজিস্ট্রিকৃত আরেকটি বিয়েতে কনে মিতু খাতুনের জন্ম তারিখ লিখা রয়েছে ১৯৯৯ সালের ১৩ জানুয়ারি। অথচ মিতু’র জন্ম নিবন্ধন সনদে জন্ম তারিখ উল্লেখ করা আছে ২০০২ সালের ১৩ জানুয়ারি। এভাবেই ভুল তথ্য দিয়ে তিনি একাধিক বাল্যবিয়ে রেজিস্ট্রি করেছেন বলে অভিযোগ উঠেছে।
বিষয়টি স্বীকার করে জেলা রেজিস্ট্রার মো. আবদুর রেজ্জাক জানান, কানসাট ইউনিয়নে কর্মরত নিকাহ রেজিস্ট্রার আনোয়ারুল আলমের রেকর্ড পরীক্ষাকালে ১৮ বছরের কম বয়সি কনের বিয়ে নিবন্ধনসহ আরো কিছু অনিয়ম ধরা পড়ে। এ ব্যাপারে কেন তার বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে না-এই মর্মে গত ৩০ জানুয়ারি কাজী আনোয়ারুল আলমকে শোকজ করা হয়। পরে শোকজের জবাবে ভবিষ্যতে এমন কাজ আর করবে না উল্লেখ করে ক্ষমা চান নিকাহ রেজিস্ট্রার আনোয়ারুল আলম।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ