শিবগঞ্জে ভাঙনের কবলে পাকা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় || অনিশ্চিত ১৮৭ শিক্ষার্থীর ভবিষ্যত

আপডেট: সেপ্টেম্বর ২৩, ২০১৭, ১২:১২ পূর্বাহ্ণ

শিবগঞ্জ প্রতিনিধি


নদীগর্ভে বিলীন হওয়ার আগে ভেঙে ফেলা হচ্ছে স্কুলভবন-সোনার দেশ

চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জের ভাঙন কবলিত পাকা ইউনিয়নে ৮৪ নম্বর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়টি পদ্মা নদীর ভাঙনের কবলে পড়েছে। এর ফলে ওই বিদ্যালয়ের ১৮৭ জন শিক্ষার্থীর ভবিষ্যত অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে। বিশেষ করে ক্ষতির মুখে পড়েছেন পঞ্চম শ্রেণির সমাপনী পরীক্ষার্থীরা।
এলাকাবাসীর সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, ১৯৮৪ সালে স্থাপিত ৮৪ নম্বর পাকা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়টি অনেকদিন যাবত নানাবিদ সমস্যায় জর্জরিত ছিল। কাটা ঘায়ে নুনের ছিটার ন্যায় মাসখানেক আগে বিদ্যালয় ভবনটি পদ্মা নদীর ভাঙনের কারণে ভবনটি ঝুঁকিপূর্ণ হওয়ায় প্রায় দেড় মাস থেকে পাঠদান বন্ধ আছে। ফলে বিদ্যালয়ের ৫ম শ্রেণির সমাপনী পরীক্ষায় অংশগ্রহণকারী ৩৩ জন শিক্ষার্থীসহ মোট ২৮৭ জন শিক্ষার্থীর পড়াশোনা বন্ধ হয়ে যায়। সরজমিনে দেখা গেছে, বিদ্যালয়ের ভবনটি ভাঙার কাজ চলছে, বিদ্যালয়ে কোন শিক্ষার্থী নেই। নেই কোন শিক্ষকও।
বিদ্যালয়ের নৈশ প্রহরী ইসমাইল হোসেন বলেন, বিদ্যালয়ের তিন জন শিক্ষক আছেন। তবে ১৫-২০ দিন থেকে বিদ্যালয়টির পাঠদান বন্ধ থাকায় ও প্রাকৃতিক দুর্যোগের কারণে শিক্ষকরা প্রতিদিন আসতে না পারায় মাঝে মাঝে আমি দেখাশুনা করি। পাকা ইউপি চেয়ারম্যান মজিবুর রহমান ও কয়েকজন স্থানীয় জানান, এলাকাটি একদিকে দুর্গম ও ভাঙন কবলিত হওয়ায় কোন শিক্ষকই স্থায়ীভাবে থাকতে চান না। বর্তমানে বিদ্যালয়ের ভবনটি ভাঙার কাজ চলছে। ফলে শিক্ষার্থীদের পাঠদান বন্ধ আছে। এ কারণে বিশেষ করে ৫ শ্রেণির শিক্ষার্থীরা চরম ক্ষতির সম্মুখীন হয়েছে। জরুরি ভিত্তিতে এসব শিক্ষার্থীদের সুব্যবস্থা করার জন্য ঊর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের সুদৃষ্টি প্রয়োজন বলে তারা জানান।
জানতে চাইলে প্রধান শিক্ষক কামাল উদ্দিন জানান, নদী ভাঙনের কারণে বিদ্যালয়টি অন্যত্র সরানো হচ্ছে। মূল ভবনটি এক লাখ ৩০ হাজার টাকায় বিক্রি করা হয়েছে। ফলে শিক্ষার কিছুটা বিঘ্ন ঘটছে। তবে নতুন টিন সেট চালু হবার পর বেশি বেশি করে পাঠদান করিয়ে পুষিয়ে নেয়া হবে।
এ ব্যাপারে উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার সিরাজুল ইসলাম জানান, বিদ্যালয়টি নদী ভাঙনের কবলে পড়ায় অন্যত্র সরিয়ে নেয়া হচ্ছে। যাতে শিক্ষার্থীদের কোন সমস্য না হয়, সেজন্য জরুরি ভিত্তিতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ