শিবগঞ্জে মনাকষা মোড় যাত্রীদের জন্য আতঙ্ক

আপডেট: December 2, 2020, 9:54 pm

শিবগঞ্জ প্রতিনিধি:


অতিরিক্ত যানজট, রাস্তার পার্শ্বে ময়লার স্তুপ রাস্তার বেহাল দশা ও চৌরাস্তার মোড় হওয়ায় যাত্রীদের যেন নাভিশ্বাস উঠেছে। কোন নিরাপত্তা নেই যাত্রীদের। ঘটনাটি চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার শিবগঞ্জ পৌরসভাধীন শিবগঞ্জ মনাকষা মোড়ের।
সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, শিবগঞ্জ-মনাকষা মোড়টি অত্যন্ত ব্যস্ত। চৌরাস্তার মোড় হওয়ায় চারদিক থেকে বিভিন্ন ধরনের যানবাহন এখানেই এসে দাঁড়ায়। শত শত যাত্রীর ভীড়। পা বাড়াবার স্থানটুকুও নেই। এ স্থানেই শতাধিক অটো বাইক দাঁড়িয়ে। শিক্ষার্থীরা চরম নিরাপত্তাহীনতার মধ্য দিয়ে চলাচল করছে। রাস্তার দুই পার্শ্বে বড় বড় বিল্ডিং গড়ে উঠায় রাস্তা প্রশস্ত একেবারে সরু হয়ে গেছে। রাস্তা। বিল্ডিংওয়ালা বলছেন, বিল্ডিং আমাদের জমিতে আছে। তবে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কয়েকজন জানান, রাস্তার উভয় পার্শ্বে কয়েকজন প্রভাবশালী রাস্তার কিছু জমি দখল করে বিল্ডিং তৈরি করে বড় বড় ব্যবসা প্রতিষ্ঠান গড়ে তুলেছেন। তবে রাস্তার জমি দখল নিয়ে উভয় পাশের বিল্ডিং মালিকরা একে অপরকে দোষারোপ করছেন বলেও জানা গেছে। এ মোড়ের রাস্তার দুই পার্শ্বে ছাই, মাটি, ময়লার স্তুপ জমে আছে। যেখানে কুকুর ও শুকুরের আনাগোনা দেখা গেছে।স্তুপে ফেলা নষ্ট খাবারগুলো কুকুরের একটি দল খাচ্ছে ও ঘেউ ঘেউ শব্দ করছে। তার পার্শ্বে স্তুপের ওপর কয়েকটি শুকুর আরামে ঘুমাচ্ছে। দূর্গন্ধে মানুষ নাকে মুখে কাপড় দিয়ে চলাফেরা করছে। মোড় থেকে একটু পশ্চিমে প্রায় ৫০মিটার দীর্ঘ রাস্তা যেন মরণ ফাঁদ। রাস্তাটুকু ভেঙ্গে ছোড় বড় গর্তে সৃষ্টি হয়ে চলাচলের অযোগ্য হয়ে পড়েছে। এখানে প্রায় প্রতিদিনই ছোড় বড় দূর্ঘটনা ঘটছে।যাত্রীর যানবাহনে থাকা অবস্থায় আতংকের মধ্যে থাকছে। অটো বাইকের চালক দোয়েল জানান এ রাস্তাটুকু আমাদের জন্য পুলসেরাত হয়ে গেছে। এখানে যেমন যানবাহনের কোন নিশ্চয়তা নেই , তেমনি যাত্রীদের জীবনের কোন নিশ্চয়তা নেই। শুধু তাই নয়, রাস্তায় পার্শে দাঁড়িয়ে থাকা কয়েকজন মহিলা বলেন এ রাস্তাটি আমাদের জন্য খুব ভয়ংকার ও আতংকিত রাস্তা। আমরা সংশ্লিষ্ট কর্তৃ পক্ষের সুদৃষ্টি কামনা করছি। এব্যাপারে শিবগঞ্জ থানার অফিসার ইন চার্জ ফরিদ উদ্দিন বলেন, রাস্তার পার্শে ময়লার স্তুপ ও রাস্তা সরু ব্যাপারে আমাদের কিছু করার নেই। এটি পৌরসভা ও এলজিডি অফিসের দায়িত্ব। তবে নিরাপ্তার জন্য আমরা খুব শীঘ্রই একটি কমিটি গঠন করে নিরাপ্তার ব্যবস্তা গ্রহন করবো। উপজেলা প্রৌকশী হারুন অর রশিদ বলেন সরকারী নীতি না মেনে রাস্তার প ার্শে সুনিদিষ্ট স্থান না ছেড়ে দোকানপাট ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠান গড়ে তোলায় এ সমস্যার সৃষ্টি হয়েছে। এটির প্রতিকার হলো একমাত্র গণসচেতনতা। পৌরসভার মেয়র এ আর আজরী এম কারিবুল হক রাজিন বলেন ব্যবস্থা গ্রহন করা হয়েছে।অল্প সময়ের মধ্যে কাজ শুরু হবে। তবে উপজেলা নির্বাহী অফিসার সাকিব আল রাব্বী বলেন ইতিমেেধ্য সিদ্ধান্ত হয়েছে। রাস্তার পার্শের দোকান প াট সরকারী স্থান থেকে সরিয়ে ফেলা হবে। ময়লার স্তুপ দূর করা হবে এবং দ্রুত রাস্তা সংস্কার করা করে জনদূর্ভোগ দূর করা হবে।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ