শিবগঞ্জে মন্থর গতিতে চলছে রাস্তা মেরামত,জনদুর্ভোগ চরমে

আপডেট: মার্চ ৩, ২০২১, ৯:২৫ অপরাহ্ণ

শিবগঞ্জ প্রতিনিধি:


শিবগঞ্জে রাস্তা মেরামতের কাজ চলছে মন্থর গতিতে।ভোগান্তি বেড়েছে জনগনের। ভাড়া দিতে হচ্ছে দ্বিগুন। যাতায়াতে সময় ব্যয় হচ্ছে দ্বিগুন। ধুলাবালিতে একাকর হয়েছে। অসুস্থ মানুষ আরো বেশী অসুস্থ হচ্ছে। বিশেষ করে ্এ্যাজমা রোগীদের যাতায়াত করা খুবই কঠিন হয়ে পড়েছে। যানবাহন ওয়ালারাও পড়েছে বিপাকে। তাদের যানবাহন ঘনঘন নষ্ট হয়ে যাছে বলে জানাচ্ছে। রাস্তার কাজে অনিয়ম হচ্ছে বলেও কিছু কিছু অভিযোগ পাওয়া যাচ্ছে। তবে কর্তৃপক্ষ এ সমস্ত অভিযোগ অস্বীকার করে বলছেন, কাজ ভাল করতে হলে জনগনের কিছু সমস্য হবেই। তবে তা বেশী দিন স্থায়ী হবে না।
সরেজমিনে ঘুরে দেখা গেছে ,শিবগঞ্জ-মনাকষা মোড় থেকে মনাকষা ইদগাহ মোড়, ইদগাহ মোড় থেকে সাহাপাড়া বাজার ও মনাকষা ঈদগাহ মোড় হতে খাসের হাট পর্যন্ত প্রায় ১৮কিলোমিটার রাস্তা মেরামতে রাস্তায় মাত্র কয়েকজন শ্রমিক কাজ করছে। রাস্তার উপরে বালি ও ইটের খোয়া ফেলা রাখা হয়েছে। কয়েক স্থানে কিছু কিশোর ও তরুন লাদনা হাতে করে যানবাহন চলাচল বন্ধ করতে কঠোর অবস্থানে রয়েছে। কারো কারো সাথে দুর্ব্যবহারও করছে। আবার কোন কোন অটো চালক মৌখিকভাবে অভিযেগ করছে যানবাহনের মালিকের কাছ থেকে সামান্য নজরানা নিয়ে যেতেও দিচ্ছে। যাত্রীদের মাঝে মাঝে হেঁটে যেতে হচ্ছে। অনেকেই রোগী নিয়ে বিপাকেও পড়তে দেখা গেছে।
শিবগঞ্জ বাজারের নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক জনৈক দোকানদার বলেন, আমার জীবনে রাস্তা মেরামতে এত সময় ব্যয় করতে দেখিনি। তিনি আরো বলেন রাস্তায় মানুষের চলাচল বন্ধ করে রাস্তায় নিম্ন মানের খোয়া ও বালু ব্যবহার করছে। রাস্তায় পানি ছিটানোর নিয়ম থাকলেও পানি না ছিটানোর কারনে রাস্তা ধুলায় অন্ধকার হয়ে থাকছে।
রায়হান নামে এক অটোচালক বলেন, রাস্তা মেরামতের অজুহাতে যানবাহনের মালিকদের এত হয়রানী আর কোনদিন দেখিনে। রাস্তায় যে সমস্ত ছেলেরা যানবাহনে আঘাত করছেও অশ্লীল ভাষা ব্যবহার ও দূর্ব্যবহার করছে তারা আমাদের ছেলের বয়সের হবে। প্রতিবাদ করলেই মোটেই যানবাহন চলাচল করতে দেবে না সাফ জানিয়ে দিচ্ছে। অন্য এক অটো চালক বলেন সবার অটোতে বাধা দিলেও আমি সহ কয়েকজনের অটোতে কোন বাধা দিবে না।আমরা সেভাবে ম্যানেজ করে চলছি। সফিক নামে জনৈক এ্যাজমার রোগী বলেন প্রয়োজনের তাগিদে প্রায় প্রতিদিনই শিবগঞ্জ সহ বিভিন্ন স্থানে যাতায়াত করতে হচ্ছে। যাতায়াতের পথ একমাত্র এটিই। ফলে সারারাতই অসুস্থ থাকতে হচ্ছে।
এ ব্যাপারে রাস্তার সংশ্লিষ্ট ঠিকাদার মইন খানের সাথে যোগাযোগ করা হলে এ সমস্ত অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, রাস্তার কাজ সঠিক নিয়ম ধরেই চলছে। কোন অনিয়ম হয়নি। যানবাহনে বাধা জনগনের ভোগান্তির কথা অস্বীকার করলেও কিছু কিশোর ও তরুদের দূর্ব্যবহার সম্পর্কে বলেন যে যেমন ব্যবহার করবে, তার সাথে সেরকম ব্যবহার করেই উত্তর দিতে হবে। চলতি রাস্তায় যাত্রীদের চাপ অতিরিক্ত হওয়ায় আমরা ঠিকমত কাজ করতে পারছি না। তাই যাত্রীদের কষ্ট হলেও কিছুটা কঠোর হতে হচ্ছে।তিনি আরো বলেন দুটি প্যাকেজে প্রায় ১৮কিলোমিটার রাস্তা মেরামতে শেষ সময় আছে হচ্ছে ৩০ এপ্রিল। রাস্তার একপাশ দিয়ে ছোট ছোট যানবাহনগুলো চলা চলের ব্যবস্থা করা যায় কি না এমন প্রশ্ন করলে তিনি কাজ আছে বলে ফোন কেটে দেন।
অন্যদিকে শিবগঞ্জ উপজেলা প্রকৌশলী হারুন অর রশিদ বলেন, বড় কাজ তাই কিছুটা দেরী হতে পারে।তিনি আরো বলেন সরু রাস্তার একপাশ দিয়ে কাজ করলে রাস্তা মেরামতের কাজ ভাল হবে ন।তবে যাত্রী বা জনগনকে বুঝিয়ে বলতে হবে। তাদের সাথে দূর্ব্যবহার করা যাবে না।অনিয়মের ব্যাপারে আমি তদন্ত করে দেখবো এবং অনিয়ম হলে তা বন্ধ করবো।
উল্লৈখ, সাম্প্রতিককালে বিভিন্ন মিডিয়ায় শিবগঞ্জে ১৩০ কিলোমিটার রাস্তার বেহাল দশা শিরোনামে সংবাদ প্রকাশিত হলে সংশ্লিষ্ট উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের টনক নড়ে এবং রাস্তার কাজ শুরু হয়। শিবগঞ্জ-মনাকষা মোড় হতে মনাকষা ইদগাহ মোড়. মনাকষা ইদগাহ মোড় হতে সাহাপাড়া বাজার, মনাকষা ইদগাহ মোড় হতে খাসের হাট পর্যন্ত প্রায় ১৮কিলোমিটার রাস্তা মেরামতের কাজ চলছে। যা শুরু হয়েছে প্রায় আড়াই মাস আগে।
সংশ্লিষ্ট সূত্রমতে, ১৮কিলোমিটার রাস্তা মেরামতে প্রায় সাড়ে ৮ কোটি বরাদ্দ ধরা হয়েছে। কাজের মেয়াদ ধরা হয়েছে আগামী ৩০ এপ্রিল পর্যন্ত।