শিবগঞ্জে সরকারি নির্দেশনাকে তোয়াক্কা না করে চলছে কেজি স্কুলে পাঠদান

আপডেট: November 21, 2020, 10:26 pm

শিবগঞ্জ প্রতিনিধি:


বৈশ্বিক মহামারী করোনা ভাইরাস প্রাদুর্ভাব সংক্রমণের কারণ সারাদেশে বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা করা হলেও চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জে সরকারি বিধিনিষেধ না মেনে কিন্ডারগার্টেন বিদ্যালয়গুলোতে চালিয়ে যাচ্ছে পাঠদান। আর এই স্কুলের শিশু শিক্ষার্থীরা সকাল ৭টা হতে সকাল ৯টা পর্যন্ত ক্লাস করছে। শীতের বার্তার সাথে সাথে দ্বিতীয় দফায় করোনা ভাইরাস সংক্রমণ বেড়ে চলেছে। তার মধ্যেই এই কেজি স্কুলে পাঠদান নিয়ে সচেতন সুশীল সমাজের প্রতিনিধিরা আতঙ্কে মধ্যে পড়েছেন।
আর কিন্ডারগার্টেন বিদ্যালয়ের পরিচালকগণ বলছেন, শিশু শিক্ষার্থীরা তাদের শিক্ষা অর্জন থেকে বঞ্চিত হওয়ায় ফলে কোচিং হিসাবে দু’টি বিষয়ে সাজেশন দেয়া হচ্ছে। এখানে স্কুলে পাঠদান দেয়ার মতো কোন ক্লাস নেয়া হচ্ছে না।
এদিকে সরেজমিনে পরিদর্শনে গিয়ে দেখা গেছে, কানসাট ইউনিয়নের আব্বাস বাজারে অবস্থিত আইডিয়াল কিন্ডারগার্টেনে প্রথম শ্রেণি থেকে শুরু করে পঞ্চম শ্রেণি পর্যন্ত শিশু শিক্ষার্থীরা ক্লাস করছে। এই কিন্ডারগার্টেনে পরিচালকসহ ৯জন শিক্ষক তাদের শিক্ষা কার্যক্রম চালাচ্ছে। অন্যদিকে, বিশ্বনাথপুর গ্রীন ভিলা কিন্ডারগার্টেনেও একই চিত্র দেখা গেছে। তবে, গণমাধ্যম কর্মী উপস্থিতির টের পেয়ে বিশ্বনাথপুর গ্রীন ভিলা কিন্ডারগার্টেনের পরিচালক আব্দুর রাকিব পালিয়ে যান। কিন্তু তার ৮জন শিক্ষক উপস্থিতি ছিলেন।
শিশু শিক্ষার্থীরা বলছে আমাদের স্যার ক্লাস করাচ্ছে ১০দিন থেকে। আমাদের দু’টি বিষয়ে ক্লাস করাচ্ছেন। তাই প্রতিদিন সকাল ৭টা থেকে ৯টা পর্যন্ত ক্লাস করছি। এছাড়া অধিকাংশ শিশু শিক্ষার্থীর মুখে মাস্ক ছিলো না।
এ ব্যাপারে আইডিয়াল কিন্ডারগার্টেনের পরিচালক মোঃ মোতালেব হোসেন বলেন, আগামী ডিসেম্বরে পরীক্ষার জন্য কোচিং হিসাবে দু’টি বিষয়ে শিক্ষার্থীদের সাজেশন দিচ্ছি। এছাড়া আমাদের প্রাইভেট প্রতিষ্ঠান হওয়ায় অনেক ভাড়া বয়েকা রয়েছে। যার ফলে কোচিং হিসাবে শিক্ষার্থীদের ক্লাস নিয়ে কিছু বেতন আদায়ের জন্য এটা করছি, তবে অন্য কোন উদ্দেশ্য নয়।
অন্যদিকে গ্রীন ভিলা কিন্ডারগার্টেনের পরিচালকের মুঠোফোনে একাধিকবার যোগাযোগ করা হলে তিনি ফোনে রিসিভ বা করে সংযোগটি কেটে দেন। তবে এই কেজি স্কুলের সহকারী শিক্ষকগণ একই কথা বলেন।
এ ব্যাপারে শিবগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার সাকিব আল রাব্বি জানান, সরকারি নির্দেশনা অনুযায়ী আগামী ১৯ ডিসেম্বর পর্যন্ত সব ধরনের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। কেউ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের কর্তৃপক্ষ এর ব্যতিক্রম ঘটালে সঠিক তদন্তপূর্বক প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ